২৪ মে বুধবার দুপুরে পৌর এলাকার বেড়াইদের চালা গ্রামের ওই শিক্ষার্থীর নিজ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বিয়ে বন্ধ করে থানা পুলিশ।

বাল্য বিয়ের শিকার হতে যাওয়া আফরোজা আক্তার (১৪) নামের ওই তরুণী স্থানীয় বেড়াইদের চালা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। তার বাবার নাম আনোয়ার হোসেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই এলাকায় ৮ম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে তার পরিবার বিবাহ দিচ্ছেন এমন খবর পেয়ে প্রথমে অভিযান চালায় পুলিশ। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বাল্য বিবাহের কুফল ও আইন সম্পর্কে পরিবারের লোকজনকে ধারণা দিলে তারা বিয়েটি বন্ধ করতে একমত হয়।

এদিকে নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে মেয়ের ১৮ বছর পূর্ণ হলেই কেবল আফরোজার বিয়ে দেয়া হবে বলে জানান পরিবারের লোকজন।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুুজ্জামান জানান, পুলিশের হস্তক্ষেপেই কেবল আজ আফরোজার মতো একটি মেয়ে বাল্য বিয়ের মতো দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেয়েছে। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বরপক্ষের লোকজন বিয়ে বাড়িতে না আসায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

তিনি আরও বলেন, এ উপজেলায় কোথাও বাল্য বিয়ে হতে দিবে না পুলিশ প্রশাসন।