| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
   * শ্রীপুরে ট্রেনের নিচে বাবা-মেয়ে আত্মাহুতির ঘটনায় গ্রেফতার-১   * রাম নাথ কোভিন্দকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন   * টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে : স্পিকার   * বিএনপির লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার জনগণ মানবে না : ওবায়দুল কাদের   * শিগগিরই বিচারকদের শৃঙ্খলা বিধির গেজেট: আইনমন্ত্রী   * নির্বাচন কমিশনের সচিব পরিবর্তন   * সরকার মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   * চিকুনগুনিয়া রোগীর বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা দেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি   * ‘আকাশ সংস্কৃতিতে যা ক্ষতিকর তা বর্জন করুন’   * সবার সহযো‌গিতায় দুর্যোগ মোকা‌বিলা : ত্রাণমন্ত্রী  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শিক্ষার্থীদের মিছিলে বর্বরোচিত পুলিশি হামলার বিচার ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

 ঢাকায় কলেজ শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বর্বরোচিত পুলিশি হামলার প্রতিবাদে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে আজ সন্ধ্যা ৬.০০ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি টিএসসি চত্বর থেকে শুরু হয়ে কলাভবন, শাহবাগ হয়ে রাজু ভাস্কর্য চত্বরে সমাবেশে মিলিত হয়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাঈমা খালেদা মনিকার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা ও অর্থ সম্পাদক শরীফুল চৌধুরী। 
 সমাবেশে সভাপতি নাঈমা খালেদা মনিকা বলেন, আন্দোলন-সংগ্রাম ও প্রতিবাদ একটি স্বাধীন দেশে মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। ৭টি কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাজীবনের সংকট নিরসনের দাবিতে ঢাকার রাজপথে প্রতিবাদে সামিল হয়েছিল। কিন্তু আমাদের সরকার তাদের প্রতিবাদটুকু সহ্য না করে পুলিশ বাহিনী দিয়ে সম্পূর্ণ ফ্যাসিস্ট কায়দায় শিক্ষার্থীদের শরীর বরাবর টিয়ারশেল-রাবার বুলেট মেরে লাঠিচার্জ করে প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের কণ্ঠরোধ করতে রাজপথ রক্তাক্ত করছে। দীর্ঘদিন ধরে এসকল কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষার সংকট নিরসনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। কলেজসমূহ পরিচলনা করার কোনো নীতিমালা ছাড়াই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭টি কলেজের অন্তর্ভূক্তি বিদ্যমান সংকটকে আরো বৃদ্ধি করেছে। কলেজগুলোর সেশনজট, আবাসন, পরিবহন, গবেষণা, সেমিনার ও ক্লাসরুমের সংকট বিদ্যমান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্তর্ভুক্তির ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও চলমান সংকটসমূহ নিরসনের কোনো নীতিমালা ছাত্রসমাজের সামনে হাজির করা হয়নি। শিক্ষার্থীরা তাদের সংকটসমূহ নিরসনে কার্যকরী উদ্যোগ নিতে শাহবাগে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচী ঘোষণা করে। পূর্বঘোষিত শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচীতে পুলিশ বারবার বাধা দেয়। পরবর্তীতে বিনা উস্কানিতে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ারশেল নিক্ষেপ এবং লাঠিচার্জ করে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, একজন পুলিশ সদস্য সামান্য দূরত্বে অবস্থানরত শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের মুখ বরাবর টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এতে সিদ্দিকুরের দুটি চোখই মারাতœকভাবে আহত হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন আঘাতের তীব্রতার কারণে দুচোখ ফেটে গেছে এবং সিদ্দিকুর রহমান আর দেখতে পাবে না। সিদ্দিকুরসহ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর এধরনের বর্বর আক্রমণ ও অজ্ঞাতনামা ১২০০ জন শিক্ষার্থীর ওপর মামলা সরকারের ফ্যাসিবাদী চরিত্রকে আরেকবার উন্মোচিত করলো। এ ঘটনার দায় সরকার কোনোভাবে এড়াতে পারে না। কোনো ধরনের ন্যায়সংগত আন্দোলন যেন দানা বাঁধতে না পারে এজন্য সরকার দমন-নিপীড়নের পথ বেছে নিয়েছে। সাম্প্রতিক সুন্দরবন আন্দোলনসহ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে পুলিশের বর্বরোচিত হামলা এবং উদ্দেশ্যমূলকভাবে শরীর লক্ষ্য করে টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপ, গ্রেফতার, হয়রানিমূলকমূলক মামলা রাষ্ট্রের ফ্যাসিবাদী নীতিরই প্রতিফলন।
নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হামলার সাথে জড়িত পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ১২০০ শিক্ষার্থীর মামলা প্রত্যাহার করতে সরকারের কাছে জোর দাবি জনান এবং ৭টি কলেজের সংকট নিরসনের দাবিতে সংগঠিত প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

 

শিক্ষার্থীদের মিছিলে বর্বরোচিত পুলিশি হামলার বিচার ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
                                  
 ঢাকায় কলেজ শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বর্বরোচিত পুলিশি হামলার প্রতিবাদে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে আজ সন্ধ্যা ৬.০০ টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি টিএসসি চত্বর থেকে শুরু হয়ে কলাভবন, শাহবাগ হয়ে রাজু ভাস্কর্য চত্বরে সমাবেশে মিলিত হয়। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাঈমা খালেদা মনিকার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুদ রানা ও অর্থ সম্পাদক শরীফুল চৌধুরী। 
 সমাবেশে সভাপতি নাঈমা খালেদা মনিকা বলেন, আন্দোলন-সংগ্রাম ও প্রতিবাদ একটি স্বাধীন দেশে মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার। ৭টি কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাজীবনের সংকট নিরসনের দাবিতে ঢাকার রাজপথে প্রতিবাদে সামিল হয়েছিল। কিন্তু আমাদের সরকার তাদের প্রতিবাদটুকু সহ্য না করে পুলিশ বাহিনী দিয়ে সম্পূর্ণ ফ্যাসিস্ট কায়দায় শিক্ষার্থীদের শরীর বরাবর টিয়ারশেল-রাবার বুলেট মেরে লাঠিচার্জ করে প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের কণ্ঠরোধ করতে রাজপথ রক্তাক্ত করছে। দীর্ঘদিন ধরে এসকল কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষার সংকট নিরসনের দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। কলেজসমূহ পরিচলনা করার কোনো নীতিমালা ছাড়াই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭টি কলেজের অন্তর্ভূক্তি বিদ্যমান সংকটকে আরো বৃদ্ধি করেছে। কলেজগুলোর সেশনজট, আবাসন, পরিবহন, গবেষণা, সেমিনার ও ক্লাসরুমের সংকট বিদ্যমান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্তর্ভুক্তির ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও চলমান সংকটসমূহ নিরসনের কোনো নীতিমালা ছাত্রসমাজের সামনে হাজির করা হয়নি। শিক্ষার্থীরা তাদের সংকটসমূহ নিরসনে কার্যকরী উদ্যোগ নিতে শাহবাগে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচী ঘোষণা করে। পূর্বঘোষিত শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচীতে পুলিশ বারবার বাধা দেয়। পরবর্তীতে বিনা উস্কানিতে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ারশেল নিক্ষেপ এবং লাঠিচার্জ করে। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, একজন পুলিশ সদস্য সামান্য দূরত্বে অবস্থানরত শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমানের মুখ বরাবর টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। এতে সিদ্দিকুরের দুটি চোখই মারাতœকভাবে আহত হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন আঘাতের তীব্রতার কারণে দুচোখ ফেটে গেছে এবং সিদ্দিকুর রহমান আর দেখতে পাবে না। সিদ্দিকুরসহ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর এধরনের বর্বর আক্রমণ ও অজ্ঞাতনামা ১২০০ জন শিক্ষার্থীর ওপর মামলা সরকারের ফ্যাসিবাদী চরিত্রকে আরেকবার উন্মোচিত করলো। এ ঘটনার দায় সরকার কোনোভাবে এড়াতে পারে না। কোনো ধরনের ন্যায়সংগত আন্দোলন যেন দানা বাঁধতে না পারে এজন্য সরকার দমন-নিপীড়নের পথ বেছে নিয়েছে। সাম্প্রতিক সুন্দরবন আন্দোলনসহ বিভিন্ন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে পুলিশের বর্বরোচিত হামলা এবং উদ্দেশ্যমূলকভাবে শরীর লক্ষ্য করে টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপ, গ্রেফতার, হয়রানিমূলকমূলক মামলা রাষ্ট্রের ফ্যাসিবাদী নীতিরই প্রতিফলন।
নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে হামলার সাথে জড়িত পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ১২০০ শিক্ষার্থীর মামলা প্রত্যাহার করতে সরকারের কাছে জোর দাবি জনান এবং ৭টি কলেজের সংকট নিরসনের দাবিতে সংগঠিত প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

 

বিএনপির লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার জনগণ মানবে না : ওবায়দুল কাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

লন্ডনে সফররত বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কড়া সমালোচনা করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘খালেদা জিয়া টেমস নদীর পাড়ে বসে নাকি বাংলাদেশের সহায়ক সরকারের রূপরেখা তৈরি করছেন। বিএনপির তৈরি লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার এদেশের জনগণ কখনোই মেনে নিবে না। বৃহস্পতিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পৌরমুক্ত মঞ্চ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভা এবং সদস্য সংগ্রহ অভিযানে সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া লন্ডন গেছেন, কেন গেছেন সেটা নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। পত্র-পত্রিকায় দেখছি খালেদা জিয়া নাকি টেমস্ নদীর পাড়ে বসে বাংলাদেশের সহায়ক সরকারের রূপরেখা তৈরি করছেন। তবে রূপরেখা তৈরির সাহস ও যোগ্যতা কোনোটাই নেই বিএনপির।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি আসলে ভয় পায় এদেশের জনগণকে। নির্বাচনে হেরে যাবে ভেবে এখন নানাভাবে নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কিত করার খেলায় মেতে উঠেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠরিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম ও সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ফজিলাতুন-নেছা বাপ্পি প্রমুখ।

প্রতিনিধি সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ আসনের সংসদ সদস্য ফয়জুর রহমান বাদল, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন, সহ-সভাপতি নায়ার কবির, সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মঈন উদ্দিন মঈন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনারা আলম, সাধারণ সম্পাদক তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত প্রমুখ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক মো. মনির হোসেন।

এর আগে বেলা ১১টায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সরাইল উপজেলার শাহবাজপুরে তিতাস নদীর উপর নির্মিতব্য নতুন সেতুর নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আ.লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড সভা শুক্রবার
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা আগামীকাল শুক্রবার বিকেল পাঁচটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

সভায় সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং স্থানীয় সরকার/ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভাপতি শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংশ্লিষ্ট সবাইকে যথা সময়ে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

দুঃশাসনের অবসান ঘটাতে চায় বিএনপি
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

অবৈধ সরকারকে (আওয়ামী লীগ) নির্বাচনের মাধ্যমে হটিয়ে ‘দুঃশাসনের অবসান’ ঘটাতে চায় বিএনপি। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের হলরুমে এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানান দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘গোটা বাংলাদেশের মানুষ আজ আওয়ামী দুঃশাসনের যাতাকলে পিষ্ট। তাই আগামী জাতীয় নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে এদের নির্মূল করতে হবে।’

‘বারংবার প্রতারণা করে যেন ক্ষমতায় না আসতে পারে সেজন্য জনগণকে সচেতন করতে হবে। বিএনপি বিশ্বাস করে চিরকাল কোনো দুঃশাসন টিকে থাকতে পারে না। এই সরকারও পারবে না।”

বিএনপির সরকারবিরোধী আন্দোলনের ক্ষতিগ্রস্ত এবং গুম-খুনের শিকার নেতা-কর্মীদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদানের জন্য এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ‘জাতীয়তাবাদী হেল্প সেল’ নামের একটি সংগঠন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বর্তমান সরকার হিটলারের দলকেও অতিক্রম করেছে। অথচ মাঝে মাঝে দেশে-বিদেশে চিৎকার করে বলে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে রোল মডেল। আর সেই রোল মডেল হচ্ছে কীভাবে নির্যাতন করা যায়, ভিন্নমত দমন করা এবং অসহায় মানুষদের কীভাবে কুপিয়ে হত্যা করা যায়।’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার লন্ডন সফর নিয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশ সৃষ্টির পর থেকে যিনি গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছেন, ত্যাগ স্বীকার করেছেন তিনি হচ্ছেন খালেদা জিয়া। কাজেই আওয়ামী লীগের নেতাদের বলবো খালেদা জিয়া বন্দুকের নলে ক্ষমতায় আসেননি। তিনি স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করে ক্ষমতায় এসেছেন।

‘মামলার ভয়ে তিনি বিদেশে গেছেন এই ধরনের কথা বলছেন এবং চিন্তা করছেন তাদের আগে উচিত আয়নায় নিজের চেহারা দেখেন, আগে কী আর এখন কী”, বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমতায় রেখে এই সরকারের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এজন্য বিএনপি সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দাবি করছে। যাতে করে সেই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয় এবং জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পায়।’

অনুষ্ঠানে জাতীয়তাবাদী হেল্প সেলের পক্ষ থেকে ৫ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়। পরিবারগুলো হলো রংপুর জেলা যুবদল নেতা মোশাররফ হোসেন পদ্ম, আমিরপুর ইউনিয়ন (খুলনা) যুবদল নেতা নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রনেতা মেহেদী হাসান, পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ ছাত্রদল নেতা মাসুম বিল্লাহ, সিলেট সদর ছাত্রদল নেতা মো. বদরুল আলম প্রমুখ।

এ পর্যন্ত ৬৫ জন স্বজন হারানো পরিবারকে এককালীন আর্থিক অনুদান দেওয়া হলো। স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েলের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক কাদের গনি চৌধুরী, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু, যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, হেল্প লাইনের মাকসুদ আহমেদ খান রুবেল, রাজীব আহসান চৌধুরী পাপ্পু, ইতালি বিএনপি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মান্নান হীরা প্রমুখ।

বাংলাদেশকে পাকিস্তানী ধারায় ঠেলে দিতেই তাহেরকে খুন : ইনু
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

বাংলাদেশকে পাকিস্তানী ধারায় ঠেলে দিতেই জিয়া ঠান্ডা মাথায় কর্নেল তাহেরকে খুন করেন বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।
জিয়ার পাকিস্তানী রাজনীতির পথে মূল বাধা ছিলেন কর্নেল তাহের উল্লেখ করে তিনি বলেন, কর্নেল তাহের পাকিস্তানি ধারার রাজনীতির বিপরীতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার পক্ষে ছিলেন।
হাসানুল হক ইনু আজ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউস্থ শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে ৪১তম তাহের দিবস উপলক্ষে জাতীয় যুব জোট কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন
জাতীয় যুব জোটের সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শরিফুল কবির স্বপনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, জাসদ স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, জাতীয় যুব জোটের সহ-সভাপতি মীর্জা মোঃ আনোয়ারুল হক, বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর সভাপতি সাব্বাহ আলী খান কলিন্স প্রমুখ ।
ইনু বলেন, জিয়া পাকিস্তানপন্থী, পাকিস্তানের দালাল, রাজাকার আলবদর, যুদ্ধাপরাধী, সাম্প্রদায়িক শক্তিকে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করে। এখনও পাকিস্তানপন্থী, পাকিস্তানের দালাল, রাজাকার, আলবদর, জঙ্গীরা বেগম জিয়া-বিএনপির মদদেই অশান্তি-খুনোখুনি করছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র-শান্তি-উন্নয়নের পথে পাকিস্তানপন্থী রাজনৈতিক ধারাই মূল প্রতিবন্ধকতা। খালেদা-বিএনপি-পাকিস্তানপন্থীদের ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত পরাজিত করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে হবে।
সূত্র : বাসস

এই কমিশন দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় : ফখরুল ইসলাম
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের দ্বারা অবাধ, গ্রহণযোগ্য ও সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলে মনে করছে বিএনপি। নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থার সুরাহা হওয়ার আগেই নির্বাচন কমিশনের দেওয়া রোডম্যাপ কোনো সুফল দেবে না বলেও মনে করে দলটি। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে গত রোববার নিজেদের কর্মপরিকল্পনা বা রোডম্যাপ প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশন। সেই রোডম্যাপ বিষয়ে আজ নিজেদের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাল বিএনপি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যক্রমে নির্বাচন কমিশন সেই লক্ষ্যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার জন্যে রোডম্যাপ দিতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছে। এবং এটা প্রমাণিত হয়েছে সেই ইচ্ছাও তাঁদের নেই। তিনি জনগণকে আরো হতাশ করেছেন এই কথা বলে যে, বর্তমান সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন করা সম্ভব। তাঁর এই বক্তব্য সরকারের প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী এবং সরকারি দলের নেতাদের বক্তব্যের প্রতিফলনই ঘটেছে।’

বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব- এমন বক্তব্য দিয়ে সিইসি সরকারের প্রতিনিধিত্ব করছেন বলেও মন্তব্য করেন মির্জা ফখরুল। তিনি বলেন, ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার যখন বলেন, এসব দেখার দায়িত্ব তাঁদের নেই তখন সহজেই বোঝা যায় এই নির্বাচন কমিশন আরেকটি রকিব মার্কা নির্বাচন কমিশনে পরিণত হতে চলেছে। সুতরাং এ ধারণা স্পষ্ট হয়েছে যে এই নির্বাচন কমিশন সবার কাছে কোনো গ্রহণযোগ্য, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের যোগ্য নয়।’

বিএনপির পক্ষ থেকে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের একটি প্রস্তাব শিগগিরই পেশ করা হবে বলেও সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়।

এ সময় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মোশাররফ হোসেনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সিলেটে বন্যার্তদের পাশে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

সিলেটে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। সোমবার দিনব্যাপী সিলেট জেলার বিভিন্ন স্থানে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়।
 
কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতারা জানান, সোমবার বুড়িকেয়ারী ও ভেলকোণা (ফেঞ্চুগঞ্জ), দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জে বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ হয়। মঙ্গলবার আরও কয়েকটি উপজেলায় ছাত্রলীগের ত্রাণ বিতরণের কথা রয়েছে।
 
ত্রাণ বিতরণকালে জাকির হোসাইন বলেন, নদীমাতৃক দেশ হওয়ায় প্রায় প্রতি বছর আমরা প্রকৃতিক দুর্যোগের সম্মুখিন হই। তবে সরকার সব ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করতে প্রস্তুত রয়েছে। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা বলেছেন, আমাদের পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ রয়েছে। এছাড়া বাইরে থেকে নগদ অর্থের মাধ্যমে চাল কেনা শুরু করেছে সরকার। সবাইকে সঙ্গে নিয়ে বন্যার মত প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষতি অচিরেই কাটিয়ে ওঠা যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। এ সময় তিনি বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সমাজের বিত্তবান মানুষের প্রতি আহ্বান জানান।সিলেটে বন্যার্তদের পাশে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ
 
ত্রাণ বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি-হাবিবুর রহমান সুমন, রাজিব আহমেদ রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৃজন ঘোষ সজিব, ক্রিড়া সম্পাদক চিন্ময় রায়, উপ-সাহিত্য সম্পাদক আব্দুর রহমান শাকুর সহ-সম্পাদক ইব্রাহীমসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

রাজনৈতিক সংকট রোডম্যাপ দিয়ে সমাধান হবে না : মির্জা ফখরুল
                                  

অনলাইন  ডেস্ক :

একাদশ নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক সংকট নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত রোডম্যাপে সমাধান হবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার নির্বাচন কমিশন একাদশ সংসদ নির্বাচনের কর্মপরিকল্পনা ঘোষণার (রোডম্যাপ) পর বিকেলে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নিরপেক্ষ অবাধ নির্বাচনের জন্য একটা সহায়ক সরকার প্রয়োজন, সেই সহায়ক সরকার গঠনের ব্যাপারে আলোচনা বড় প্রয়োজন এই মুহূর্তে। সেদিক থেকে কোনো আলোচনা না করে এই রোডম্যাপ দিয়ে তো সমস্যার সমাধান হবে না, সেই সংকটের নিরসন হবে না। রোডটা তো থাকতে হবে।

তিনি বলেন, দেয়ার মাস্ট বি রোড টু ইলেকশন। এখন পর্যন্ত আমরা রোড দেখতে পারছি না। সুতরাং ম্যাপ তো পরের প্রশ্ন।

নির্বাচনকালীন সরকার প্রসঙ্গ টেনে মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচন কমিশন যদিও রোডম্যাপ ঘোষণা করেছে এটা আমরা মনে করি যে, প্রধান বিষয় না। এটা প্রধান সংকট নয়। প্রধান সংকটটা হচ্ছে যে, নির্বাচনটা কীভাবে হবে? নির্বাচনের সময় সরকার কোন জায়গায় থাকবে, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা কী হবে? যে কথা আমরা বারবার বলে আসছি যে, নিরপেক্ষ অবাধ নির্বাচনের জন্য একটা সহায়ক সরকার প্রয়োজন। তাই এই মুহূর্তে সেই সহায়ক সরকার গঠনের ব্যাপারে আলোচনা বড় প্রয়োজন।

নির্বাচন নিয়ে সৃষ্ট সংকট রাজনৈতিক অভিহিত করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সংকটটাকে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। এখানে নির্বাচন কমিশন এককভাবে একটি রোডম্যাপ দিয়ে দিল কোনো আলোচনা না করেই। সেটা তো আলোচনা করতে হবে। নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে আমরা আমাদের বক্তব্য দিয়েছি। কমিশন যেভাবে গঠন হয়েছে, আমরা বক্তব্য দিয়েছি।

লন্ডনে অবস্থানরত দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং ঢাকায় সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে পরে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানো হবে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, এটা যেহেতু অত্যন্ত স্পর্শকাতর ও অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটা বিষয়। আমরা সিনিয়র নেতা এবং চেয়ারপারসনের সঙ্গে আলোচনা করে পরে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাবো।

নির্বাচন কমিশন বলেছে, দেশ-বিদেশের প্রভাবমুক্ত হয়ে একটা সুষ্ঠু নির্বাচন করতে এ রোডম্যাপ ঘোষণা করা হয়েছে- এই প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, উদ্দেশ্য খুব ভালো। সবাই তা-ই বলে। বর্তমান সরকারও বলছে যে, আমরা নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে চাই, সহায়তা করতে চাই। তারপরও দেখতে পারছেন যে, কী অবস্থা দেশের মধ্যে আছে?

তিনি বলেন, আমরা একটা সভা করার অনুমতি পাই না। আমাদের চেয়ারপারসন শনিবার বিদেশে গেলেন, আমাদের সিনিয়র নেতাকে রাস্তার মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। এই একটা পরিস্থিতি-পরিবেশ তৈরি করেছে। দেশে নির্বাচনের আদৌও কোনো পরিবেশ আছে কিনা সেটাও তো সবার আগে দেখতে হবে।

এ সময় দলের ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র হচ্ছে : সেতুমন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

বিএনপি জোটের প্রধান লক্ষ্যবস্তু হচ্ছে জননেত্রী শেখ হাসিনা। তাই বারবার শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।এখনো হচ্ছে। বললেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ রোববার চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়ায় কেবি কনভেনশন হলে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় এসব কথা বলেন তিনি। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির এখন প্রধান শত্রু আওয়ামী লীগ নয়। বিএনপি এবং তার দোসরদের প্রধান টার্গেট শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনাকে হটাতে পারলেই বিএনপির শান্তি।

তিনি বলেন, পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, আমাদের শক্তির উৎস বাংলাদেশের জনগণ। বিদেশে বসে ষড়যন্ত্র করে আওয়ামী লীগ সরকার, শেখ হাসিনার সরকারকে হটানোর চক্রান্ত কোনোদিনও সফল হবে না। 
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদের 

সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড.হাছান মাহমুদ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কেন্দ্রীয় উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়াসহ অনেকে। 

দক্ষিণ চট্টগ্রামের ৮টি উপজেলা ও ৫টি পৌরসভার জনপ্রতিনিধি এবং সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ ২২০০ প্রতিনিধি সভায় যোগ দেন। 

দ্বিধা বিভক্তের দিকে লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর জাতীয় সংসদ নির্বাচন
                                  

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধিঃ লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে জাতীয় নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে রাজনীতিতে দিন দিন নতুন মাত্রা যোগ হচ্ছে। বিশেষ করে আওয়ামীলীগের রাজনীতিকে ঘিরে। লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুরে সরকার দলীয় নেতা কর্মীরা এখন দ্বিধা বিভক্তের দিকে দাবিত হচ্ছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এমপি প্রার্থীরা তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের সু-সংগঠিত করার চেষ্টা করছেন, এবং তাদের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নে তৎপর রয়েছেন। 

জাতীয় পার্টির এখানে রাজনৈতিক কর্মকান্ড দশম সংসদ নির্বাচনে রায়পুরে এমপি নির্বাচিত হওয়ায় মোঃ নোমান সবসময় নির্বাচনী এলাকায় যাতায়ত করছেন। সভা-সেমিনার, রাস্তাাঘাট উন্নয়নে সহযোগীতা করে যাচেছন। জাতীয় পার্টি নেতাকর্মীরা বেশ ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে। আগের চেয়ে বর্তমানে জেলা জাতীয়পার্টির জনসমর্থন বেড়েছে। নেতাকর্মীদের সাথে এমপির সু-সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমান জোট এমপি জনাব নোমান আবারো জাতীয় পার্টি থেকে নমিনেশন পাবেন বলে শুনা যাচ্ছে।
স্বাচীপ নেতা এহসানুল কবীর জগলুল একজন স্বজ্জন ব্যক্তি হিসেবেই এলাকায় পরিচিত। তিনিও বিভিন্ন দলীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে ইতোমেধ্য দলীয় নেতাকর্মীদের আস্তা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি জনাব হারুনুর রশীদের ব্যক্তি ইমেজ নৌকা প্রতীকের জয়ের ক্ষেত্রে বিশেষ ভুমিকা রাখতে পারে। এছাড়াও বর্তমানে দলীয় অনুষ্ঠানগুলোতে তার উপস্থিতি বেশ সরব রয়েছে।
বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান তৃণমূলের পছন্দের নেতা জনাব মাষ্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার (বিএসসি) আওয়ামীলীগের টিকেট পেতে সব ধরনের চেষ্টাই চালিয়ে যাচেছন। মাষ্টার আলতাফ হোসেন হাওলাদার রায়পুরের আওয়ামী রাজনীতির জন্য আশীর্বাদ হিসেবেই মনে করছেন তৃনমুলের দলীয় নেতাকর্মীরা। এই ব্যপারে তিনি বলেন, জননেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যার হাতকে শক্তিশালী করতেই লক্ষ্মীপুর-২ আসনে আমি নৌকার বিজয় চাই, আমাদের প্রচেষ্টা এবং শপথ থাকবে যিনিই নৌকার টিকিট পাবেন তাকে সবাই মিলে বিজয়ী করা। তিনি ইতোমধ্যে ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের সুখে-দুঃখের কান্ডারী হিসেবে মাষ্টার আলাতাফ হোসেন হাওলাদার দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছেন।
এই আসনে বিএনপির ব্যাপক জনসমর্থন থাকা সত্বেও স্থানীয় দূর্বল নের্তৃত্বের কারনে দল এগুতে পারছেনা। বিএনপি থেকে সাবেক এম পি ও লক্ষ্মীপুর জেলা বিএনপির সভাপতি জনাব আবুল খায়ের ভুইয়ার নামই আলোচিত হচেছ বেশী, বিএনপির আরেক প্রার্থী খালেদা জিয়ার সাবেক প্রধান নিরাপত্তা সমন্বয়ক কর্নেল মজিদ(অবঃ) বিএনপির টিকেট পেতে চেষ্টা করছেন বলে জানা যায়। পদবঞ্চিত, দলের বাইরে থাকা কিছু নেতা-কর্মী কর্নেল মজিদের পক্ষে প্রচারনা চালাচেছন।
কুয়েত আওয়ামীলীগ নেতা শহীদ ইসলাম পাপুল নবাগত নেতা হিসেবে অল্প সময়ের মধ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগাতে পেরেছেন। তরুন এই নেতা ইতোমধ্যে এলাকায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন।
জামায়াতে ইসলাম এই আসনে অত্যান্ত শক্তিশালী অবস্থান রয়েছে। বিএনপির সাথে জোটবদ্ধ নির্বাচনে না গেলে তাঁদের প্রার্থী হিসেবে দলের জেলা আমীর মুক্তিযোদ্ধা মাষ্টার রুহুল আমিনের নামই আলোচিত হচেছ বেশী। জামায়াত এখানে প্রকাশ্য রাজনীতি করতে না পারলেও গোপনে তাঁদের সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচেছ। লক্ষ্মীপুর-২ আসনে জামায়াতের প্রার্থী বিজয়ী হয়ে আসবেন বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন দলটির স্থানীয় নেতারা।
সব মিলিয়ে আগামী সংসদ নির্বাচনে লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর আসনে বিএনপি, আওয়ামীলীগ, জাতীয়পার্টির, জামায়াত, জমজমাট ত্রিমুখী লড়াইয়ের আভাস পাওয়া যাচেছ। স্থানীয় ভোটাররাও একটি সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করছে, যেখানে তারা নির্বিঘেœ তাদের ভোটাধীকার প্রয়োগ করতে পারেবে।

বাজেটে কোন স্পষ্টতা নেই: ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু
                                  

রাতুল মন্ডল, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি:
জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমনে বাজেটে কোন স্পষ্টতা নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু। তিনি বলেন, হাজার কোটি টাকা বাজেট হল কিন্তু দেশে শান্তি থাকল না সেই বাজেট দিয়ে কি হবে।
শুক্রবার গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার বেজুরী গ্রামের স্থানীয় বিএনপি নেতা আব্দুল ছালামের ইফতার পার্টিতে তিনি এসব কথা বলেন।
ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু বলেন, গণতন্ত্র বলতে কিছু নাই তা আমরা জানি। ৫ই জানুয়ারী নির্বাচনে কি হয়ে ছিল তা দেশের মানুষ দেখেছে, জেনেছে। দেশ উন্নত জাতি হিসেবে দেখতে হলে শিক্ষাকে বেশী গুরুত্ব দিতে হবে। এখন দুর্নীতি ঢুকে গিয়েছে সর্বস্তরে এমনকি স্কুল পর্যায় থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ও বাদ যায়নি।
তিনি বলেন, জিয়াউর রাহমান বিপ্লবী হতে বলেছেন, কিন্তু সেই বিপ্লবী হতে হবে শিক্ষার বিপ্লবী।
এসময় ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাইফুল হক মোল্লা, শ্রমিকদলের সাবেক আহ্বায়ক আবুল মন্ডল, জাসাসের সভাপতি কবির মন্ডল, বিএনপি নেতা আব্দুল ছালাম, ফজলুল রহমান, ফুরকান আলী, ছাত্রনেতা রাসেল সরকারসহ বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী স্থানীয় এলাকাবাসী, বিভিন্ন মসজিদের ইমামগণ।

ঢাকা ১৫ আসন: মনোনয়ন দৌড়ে সাচ্চু এগিয়ে
                                  
গোয়েন্দা প্রতিবেদন, স্থানীয় নেতা-কর্মী এবং আওয়ামীলীগ সূত্রে জানা যায়, ঢাকা ১৫ আসনের নৌকা প্রতীক নিয়ে এবার মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে স্বোচ্ছাসেবকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু এবং ঢাকা মহানগন উত্তর যুবলীগের সভাপতি মঈনুল হোসেন খান নিখিলের সাথে।
গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু দীর্ঘদিন থেকে স্থানীয় মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকার কারণে সবার ভালবাসা তিনি বরাবরই পেয়ে এসেছেন। মিরপুরের স্থানীয় জনগণ ভালবেসে তাকে বলে, মিরপুরের মাটি ও মানুষের নেতা। ব্যক্তি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু সৎ রাজনীতিবিদ হিসেবে সকল মহলে পরিচিত। অন্য নেতাদের মতো তার বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক কোন দূর্নিতির অভিযোগ কেউ কখনও করতে পারেনি।
তাই সব কিছু বিবেচনায় আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের  মনোনয়ন পাওয়ার পাল্লা গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু দিকেই ভারী।
 
ভারতের সাথে বিতর্কিত চুক্তি করবেন না : মোশাররফ
                                  

ভারতের সাথে কোনো বিতর্কিত চুক্তি না করতে আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, দেশের মানুষের কাছে বিতর্কিত হন এমন কোন চুক্তি করবেন না।আজ বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সংগঠনের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহিলা দলের সাবেক সভাপতি নুরে আরা সাফা, মহিলা দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।
ভারত সরকারকে উদ্দেশ্য করে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, যে চুক্তি সম্পর্কে বাংলাদেশের জনগণ জানে না। এমন বিতর্কিত চুক্তি না করার জন্য অনুরোধ করছি। ভারত আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে এমন চুক্তি করা ঠিক হবে না বলেও জানান তিনি।
তিস্তার পানি বন্টন চুক্তি নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ভারতের সাথে গুরুত্বপূর্ণ চুক্তি হচ্ছে পানি চুক্তি। এই পানি চুক্তি থেকে আর কোনো বড় চুক্তি হতে পারে না। আর এই চুক্তি না হলেও কোনো সমস্যা নেই এটা কিভাবে বলেন।
প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে ড. মোশাররফ বলেন, বাংলাদেশের মানুষের প্রাণের দাবি এই পানি চুক্তি যদি আপনি না করতে পারেন তবে আপনার ভারত সফর সম্পূর্ণ ব্যর্থ হবে।
বিএনপির এই নেতা বলেন, দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বিরোধী কোনো চুক্তি স্বাক্ষর করা হয় তবে দেশের জনগণ মানবে না। শেষ রক্ত দিয়ে হলেও রুখবে।
কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে তিনি বলেন, কুমিল্লা নির্বাচনে জয়ের জন্য আওয়ামী লীগ সব রকমের প্রস্তুতি নিয়েছিল। আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, গুম, হত্যার ভয় দেখিয়েও আটকাতে পারেনি। যদি নিরপেক্ষ ভোট হতো তবে আমাদের প্রার্থী বিপুল ভোটে বিজয়ী হতো।
চলমান আইপিইউ সম্মেলন নিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, যাদের আহ্বানে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা আসছে তারা নিজেরাই নির্বাচিত নয়। আইপিইউ সম্মেলন প্রহসন ছাড়া আর কিছু নয়।

অনুষ্ঠানে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ভারতের সৈন্যরা বাংলাদেশে ঢুকতে পারে সেই চুক্তিই শেখ হাসিনা গোপনে করছে।

তিনি বলেন, প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের নিরাপত্তা ভারতের কাছে ইজারা দেয়ার ব্যবস্থা হচ্ছে। এই চুক্তির মাধ্যমে বাংলাদেশের কোনো লাভ হবে না। দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব ভারতের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে।
এসময় প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বিক্রি করে দিলে আপনি জনগণের ধিকৃত হবেন।
জঙ্গিবাদের কথা উল্লেখ করে রিজভী বলেন, প্রতিটি জঙ্গীদেত বিষয়ে খবর নিয়ে দেখেন সবাই আওয়ামী লীগের। আওয়ামী লীগে রাজাকার পাবেন, জঙ্গী পাবেন, গণতন্ত্র বিরোধী পাবেন। কারণ তারা এসবের উৎপাদনের রাজনীতি করেন।

বিএনপির ভারতবিরোধী রাজনীতি এবারও সফল হবে না : হানিফ
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপির ভারতবিরোধী রাজনীতি এবারও সফল হবে না।

সফর শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের সাথে যে সমঝোতা চুক্তি হবে তা নিয়ে আলোচনা করবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তবে বিএনপি আবার তাদের পুরানা খেলা- যে ভারতবিরোধী রাজনীতি শুরু করেছে তা মনে হয় এবার খুব একটা কাজে লাগবে না।’

হানিফ আজ দুপুরে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা হরিণানায়নপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার আগে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি বলছে ভারতের সাথে প্রতিরক্ষা চুক্তি করলে দেশের ক্ষতি হবে, দেশের স্বার্থ নষ্ট হবে। ২০০২ সালে চীনের সাথে বিএনপি যে প্রতিরক্ষা চুক্তি করেছিল তা তারা জাতির কাছে জানিয়েছিল কিনা প্রশ্ন রেখে হানিফ বলেন, এ ধরনের কাল্পনিক কথা বলে মানুষকে বিভ্রান্তে ফেলে বিএনপির ভারতবিরোধী রাজনীতি খুব একটা সুফল হবে না।

পরে বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

এ সময় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইবাদত হোসেনসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ স্থানীয় দলীয় নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভা শেষে বিজয়ীদের তিনি পুরস্কার বিতরণ করেন।

ছাত্রলীগের নাম নিয়ে জঙ্গিবাদে জড়ালে উপযুক্ত শাস্তি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

জঙ্গিবাদীদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ছাত্রলীগের কোনো নেতা-কর্মী পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগ নামধারী কেউ এখনো জঙ্গিবাদী হয়েছে কীনা তা তদন্ত করে দেখতে হবে। তবে যদি কেউ ছাত্রলীগের নাম নিয়ে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ে তাদের উপযুক্ত শাস্তি পেতে হবে।’

তিনি আজ বুধবার ঢাকা থেকে নেত্রকোনা যাওয়ার পথে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের উদ্দেশে বক্তব্য প্রদানকালে এ কথা বলেন।

ময়মনসিংহে উগ্রবাদী সন্দেহে আটক সাতজনের মধ্যে একজন ছাত্রলীগের নেতাও রয়েছেন- এমন তথ্যের ব্যাপারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মক্তব্য জানতে চেয়েছিলেন সাংবাদিকরা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘এরা (উগ্রবাদী) দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। এরা ইসলাম ধর্মকে ধ্বংস করতে চায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখনই এরা দেশের শান্তি বিনষ্ট করতে নানা অপতৎপরতা চালাচ্ছে। কিন্তু আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দক্ষতার সাথে এদের নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হয়েছে এবং পুলিশ জীবন দিয়ে জঙ্গিদের প্রতিহত করেছে। এজন্য পুলিশের ওপর জনগণের আস্থাও বেড়েছে।’ আগের পুলিশ আর এখনকার পুলিশের মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

স্বরাষ্টমন্ত্রী বলেন, ‘জঙ্গিরা এখন দেশ নয় সারাবিশ্বের আতঙ্ক। সারাবিশ্ব আক্রান্ত হলেও দেশে জঙ্গিদের নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব হয়েছে। জঙ্গিরা যখনই কিছু করার অপচেষ্টা করেছে তখনই জনগণ এগিয়ে এসেছে। সর্বস্তরের জনগণের সহযোগিতায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী জঙ্গিদের দমন করতে পেরেছে।’

ময়মনসিংহে আটক উগ্রবাদীরা পহেলা বৈশাখে হামলার পরিকল্পনা করছিল কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ধর্মীয় উৎসবের পরই পহেলা বৈশাখ বাঙালির প্রাণের উৎসব। জানমালের কোনো ক্ষতি না করেই মানুষের সহযোগিতায় ময়মনসিংহের পুলিশ দক্ষতার সাথে জঙ্গিদের ধরতে সক্ষম হয়েছে। পহেলা বৈশাখে জনগণের নিরাপত্তার জন্য মোটরবাইকে একজনের বেশি চড়া নিষেধ করা হয়েছে। বিকেল পাঁচটার পরই সব ধরণের অনুষ্ঠান সমাপ্ত করতে বলা হয়েছে।’

স্বরাষ্টমন্ত্রী আরো বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত এবং ময়মনসিংহ শহরজুড়ে চারশ’ সিসি ক্যামেরা বসানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১২৮টি সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। এরফলে যে কোনো ঘটনা-দুর্ঘটনা শনাক্তকরণ এবং দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভব হবে।

পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ময়মনসিংহ রেঞ্জের পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ব্রিফিং দেন। এসময় ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ আলম মামুন, অতিরিক্ত ডিআইজি ড. আক্কাস উদ্দিন ভূইয়া, বিভাগীয় কমিশনার জি এম সালেহ উদ্দিন, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নেত্রকোনার উদ্দেশে ময়মনসিংহ ত্যাগ করেন।

উল্লেখ্য, ময়মনসিংহে উগ্রবাদী সন্দেহে আটক সাতজনের মধ্যে জেলার ধোবাউড়া উপজেলার দীঘিরপাড় গ্রামের ইকবাল হোসেনের ছেলে আল আমিন (২৫) বাঘবেড় ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

মঙ্গলবার দুপুরে বাঘবেড় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৌরভ হোসেন মিলন নয়া দিগন্তকে জানান, আল আমিন আওয়ামী পরিবারের ছেলে। তার চাচাতো ভাই জাকির হোসেন ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি। চাচা মোফাখখারুল ছাত্রলীগের ইউনিয়ন শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগের নেতা। দলের বিভিন্ন কর্মসূচিতে আল আমিন সামনের সারিতে থাকতো বলে তাকে ইউনিয়ন শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পদ দেওয়া হয়। সে উগ্রবাদী প্রমাণিত হলে অথবা কোনো ধরনের খারাপ কাজে জড়িত থাকলে অবশ্যই দল থেকে বহিস্কার করা হবে।

‘দেশবিরোধী প্রতিরক্ষা চুক্তি করা যাবে না’
                                  
অনলাইন ডেস্ক:
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে যাচ্ছেন। সেখানে তিনি যাই কিছু করুন না কেন, দেশবিরোধী কোনো চুক্তি করলে মেনে নেওয়া হবে না। আশা করি, এমন কিছু তিনি করবেন না। জনগণকে পাশ কাটিয়ে কিছু করা হলে অবশ্যই আমাদের প্রতিবাদ করতে হবে। প্রয়োজনে রাজপথের আন্দোলনে যেতে হবে।
 
খালেদা জিয়া বলেন, পাশের দেশের সঙ্গে এই সরকার চুক্তি করতে যাচ্ছে- কেন এই চুক্তি? বাংলাদেশের সেনাবাহিনী ভারতের চেয়ে অনেক বেশি চৌকস ও সাহসী। এ ধরনের চুক্তি করতে দেওয়া হবে না।
 
শনিবার রাতে খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজের (একাংশ) নেতারা দেখা করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।
 
তিনি বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনেও নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষতার প্রমাণ দিতে পারেনি। যদি সুষ্ঠু ভোট হতো তাহলে আরো অন্তত ৫০ হাজার ভোটের ব্যবধানে ধানের শীষের বিজয় হতো। 
 
বেগম জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ বুঝতে পেরেছে, সুষ্ঠু ভোট হলে তাদের ভরাডুবি হবে। তাই তারা কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু করছে না। টালবাহানা না করে অবিলম্বে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দেওয়ার দাবি জানান।
 
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ইঙ্গিত করে খালেদা জিয়া বলেন, নির্বাচনের কোনো খবর নেই-উনি বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। হয়ত পরিস্থিতি নিজেদের অনুকূলে দেখলে নির্বাচন দিয়ে দেবেন। কিন্তু সে নির্বাচনে আমরা কেন যাব, গিয়ে কী লাভ? লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই, আকাশ-পাতাল অবস্থান। 
 
তিনি বলেন, লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড না হলে সে নির্বাচনে গিয়ে লাভ হবে না। বিদেশিরাও সবার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চায়।
 
তিনি বলেন, দেশের পরিস্থিতি ভালো নেই। কারো কোনো নিরাপত্তা নেই। গুম-খুন অব্যাহত রয়েছে। ছাত্রদল নেতা নুরুল আলম নুরুর মতো তরুণকে আজ পৈশাচিক কায়দায় হত্যা করা হয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী এ দায় এড়াতে পারে না।
 
সাক্ষাৎকালে ৩০ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিএফইউজে সভাপতি শওকত মাহমুদ। এ সময় চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান, বিএফইউজে সাধারণ সম্পাদক এম আবদুল্লাহ, সাংবাদিক নেতা রুহুল আমিন গাজী, এম এ আজিজ, ইলিয়াস খান, মোদাব্বের হোসেন, বাকের হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

   Page 1 of 56
     রাজনীতি
শিক্ষার্থীদের মিছিলে বর্বরোচিত পুলিশি হামলার বিচার ও আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
.............................................................................................
বিএনপির লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার জনগণ মানবে না : ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
আ.লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড সভা শুক্রবার
.............................................................................................
দুঃশাসনের অবসান ঘটাতে চায় বিএনপি
.............................................................................................
বাংলাদেশকে পাকিস্তানী ধারায় ঠেলে দিতেই তাহেরকে খুন : ইনু
.............................................................................................
এই কমিশন দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় : ফখরুল ইসলাম
.............................................................................................
সিলেটে বন্যার্তদের পাশে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ
.............................................................................................
রাজনৈতিক সংকট রোডম্যাপ দিয়ে সমাধান হবে না : মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র হচ্ছে : সেতুমন্ত্রী
.............................................................................................
দ্বিধা বিভক্তের দিকে লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর জাতীয় সংসদ নির্বাচন
.............................................................................................
বাজেটে কোন স্পষ্টতা নেই: ডা. রফিকুল ইসলাম বাচ্চু
.............................................................................................
ঢাকা ১৫ আসন: মনোনয়ন দৌড়ে সাচ্চু এগিয়ে
.............................................................................................
ভারতের সাথে বিতর্কিত চুক্তি করবেন না : মোশাররফ
.............................................................................................
বিএনপির ভারতবিরোধী রাজনীতি এবারও সফল হবে না : হানিফ
.............................................................................................
ছাত্রলীগের নাম নিয়ে জঙ্গিবাদে জড়ালে উপযুক্ত শাস্তি : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................
‘দেশবিরোধী প্রতিরক্ষা চুক্তি করা যাবে না’
.............................................................................................
অভ্যন্তরীণ কলহ করলে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে
.............................................................................................
জঙ্গিবাদের পেছনে বিএনপির হাত রয়েছে : নৌমন্ত্রী
.............................................................................................
তারেক জিয়া কে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে শাস্তি কার্যকর করতে হবে : এম.এ.গনি
.............................................................................................
‘ইসি ব্যর্থ, প্রশাসন নৌকার পক্ষে মাঠে কাজ করছে’
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার সঙ্গে ইইউ প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ আজ সন্ধ্যায়
.............................................................................................
কুসিক নির্বাচনের মাধ্যমে বর্তমান ইসিকে তারা পর্যবেক্ষণ করছে : রিজভী
.............................................................................................
ব্যারিস্টার দিলারা জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হলেন
.............................................................................................
বিএনপি নেতা আনোয়ারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ
.............................................................................................
নড়াইলের কোটাকোল ইউপি’র উপ-নির্বাচনে ৫ জনের মনোনয়ন পত্র বৈধ
.............................................................................................
ভূমি প্রতিমন্ত্রীর সাথে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী তাঁতী লীগের মত বিনিময়
.............................................................................................
সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রাসেল জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে
.............................................................................................
সরকার জঙ্গিবাদ টিকিয়ে রাখতে চায় : ফখরুল
.............................................................................................
সন্ত্রাসীরা মানুষের জীবন রুদ্ধ করে দিতে উঠেপড়ে লেগেছে : খালেদা
.............................................................................................
কোন দিকে সরকার আমাদের নিয়ে যাচ্ছে : ফখরুল
.............................................................................................
আ.লীগের ছত্রছায়ায় কোনো দোকান খোলা যাবে না : কাদের
.............................................................................................
তিস্তা চুক্তি না হলে অন্য চুক্তি অর্থহীন হয়ে যাবে : ফখরুল
.............................................................................................
আ.লীগ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতেই জঙ্গি সৃষ্টি করছে : মওদুদ
.............................................................................................
প্রতিরক্ষা চুক্তি থেকে দৃষ্টি ফেরাতে পরিকল্পিত জঙ্গি তৎপরতা : রিজভী
.............................................................................................
বিএনপির সব কথার জবাব দিতে নেই : নাসিম
.............................................................................................
সাবেক রাষ্ট্রপতির সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে আওয়ামীলীগ
.............................................................................................
তাঁতী লীগের সভাপতি শওকত সম্পাদক খগেন্দ্র
.............................................................................................
টাইগারদের অসাধারণ কৃতিত্বে আবেগাপ্লুত খালেদা জিয়া
.............................................................................................
খালেদা জিয়া সরকার আমলেই দেশে সন্ত্রাস জঙ্গীবাদের প্রভাব বিস্তার ঘটে
.............................................................................................
সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমেই জঙ্গিবাদের সমাধান হতে পারে
.............................................................................................
সরকার জঙ্গিবাদ টিকিয়ে রাখতে চায় বলে জানা রিজভী
.............................................................................................
বিএনপি জঙ্গিবাদের হোতা : মোশাররফ হোসেন
.............................................................................................
দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি
.............................................................................................
সরকার দেশে জঙ্গি দমনে কাজ করায় বিএনপির অন্তর্জ্বালা : কাদের
.............................................................................................
আজ ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী খোন্দকার দেলোয়ারের
.............................................................................................
সরকার জঙ্গিবাদ নিয়ে উদ্দেশ্য হাসিল করতে চায় : ফখরুল
.............................................................................................
‘যোগ্য নেতৃত্ব দিয়েছিলেন খোন্দকার দেলোয়ার’ : ফখরুল ইসলাম
.............................................................................................
১৯৫ পাকিস্তানি সৈন্যের দ্রুত বিচার দাবি : নৌ-পরিবহনমন্ত্রী
.............................................................................................
ভারতের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তি আত্মঘাতী হবে বলে মন্তব্য : রিজভী
.............................................................................................
‘সংবিধান অনুযায়ী ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনেই নির্বাচন’ : মেনন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
[ সম্পাদক মন্ডলী ]
2, RK Mission Road (5th Floor) Motijheel, Dhaka - 1203.
মোবাইল: ০১৭১৩৫৯২৬৯৬, ০১৯১৮১৯৮৮২৫ ই-মেইল : deshkalbd@gmail.com
   All Right Reserved By www.deshkalbd.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]