| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
   * পূর্বাচলে আবারো ৬টি এসএমজি উদ্ধার, জনমনে আতঙ্ক   * শ্রীপুরে ট্রেনের নিচে বাবা-মেয়ে আত্মাহুতির ঘটনায় গ্রেফতার-১   * রাম নাথ কোভিন্দকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন   * টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে : স্পিকার   * বিএনপির লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার জনগণ মানবে না : ওবায়দুল কাদের   * শিগগিরই বিচারকদের শৃঙ্খলা বিধির গেজেট: আইনমন্ত্রী   * নির্বাচন কমিশনের সচিব পরিবর্তন   * সরকার মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   * চিকুনগুনিয়া রোগীর বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা দেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি   * ‘আকাশ সংস্কৃতিতে যা ক্ষতিকর তা বর্জন করুন’  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নাশকতার মামলায় বিএনপি নেতা ফারুকের জামিন

অনলাইন ডেস্ক :

নাশকতার চার মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুককে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে তার মুক্তিতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে বিচারপতি মো. মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ফারুকের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুজ্জামান কবীর।

২০১৫ সালে হরতাল-অবরোধ চলাকালে পল্টন থানায় এসব মামলা দায়ের করা হয়।

নাশকতার মামলায় বিএনপি নেতা ফারুকের জামিন
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

নাশকতার চার মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবেদিন ফারুককে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। এর ফলে তার মুক্তিতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে বিচারপতি মো. মিফতাহ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ফারুকের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুজ্জামান কবীর।

২০১৫ সালে হরতাল-অবরোধ চলাকালে পল্টন থানায় এসব মামলা দায়ের করা হয়।

বিশ্বজিৎ হত্যা : হাইকোর্টের রায় ৬ আগস্ট
                                  
অনলাইন ডেস্ক :
পুরান ঢাকার দর্জি দোকানি বিশ্বজিৎ দাস হত্যা মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আগামী ৬ আগস্ট এ বিষয়ে রায়ের জন্য দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট। 
 
সোমবার বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীস্মদেব চক্রবর্তীর ডিভিশন বেঞ্চ এই দিন ধার্য করে দেন।
 
২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর বিএনপির ডাকা সকাল-সন্ধ্যা অবরোধের সময় রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ ভেবে পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে ছাত্রলীগের একদল কর্মী বিশ্বজিৎকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে। ২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এই মামলায় ৮ আসামিকে ফাঁসি ও ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। দণ্ডপ্রাপ্তরা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী ছিলেন। পরে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।
কিশোরীর ২৬ টুকরো লাশের ঘটনায় আসামির মৃত্যুদণ্ডাদেশ
                                  
অনলাইন ডেস্ক:
ঢাকার হাতিরপুলে এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর খুন করে লাশ ২৬ টুকরো করার ঘটনায় ফাঁসির রায় দিয়েছে আদালত। চার বছর আগে এই ঘটনা ঘটেছিল। এই মামলার একমাত্র আসামি পলাতক রয়েছে।
 
ঢাকার ৩ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জয়শ্রী সমদ্দার আজ বুধবার এই রায় ঘোষণা করেন। একইসঙ্গে আসামি সাইদুজ্জামান বাচ্চুকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পাশাপাশি এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে।
 
উল্লেখ্য, সোনালি ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেলস নামে একটি প্রতিষ্ঠান চালাতেন সাইদুজ্জামান। হাতিরপুলের নাহার প্লাজায় ১৩ তলায় তার অফিস ছিল।
 
মামলার বিবরণে বলা হয়, ২০১২ সালের ১ জুন আসামি সাইদুজ্জামান তার অফিসে ডেকে নিয়ে রোখসানা রুমি নামের ওই কিশোরীকে ধর্ষণ ও হত্যা করে। পরে দা দিয়ে লাশ টুকরো করে টয়লেটের কমোড ও জানালা দিয়ে নিচে ফেলে দেয়।
আ.লীগ নেতা হত্যায় ৫ জনের যাবজ্জীবন
                                  

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে আওয়ামী লীগ নেতা তাহের উদ্দিন হত্যা মামলায় পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। রোববার বিকেলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক মো. আব্দুর রহমান এ রায় দেন।

 

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- হোসেনপুর উপজেলার জিনারী গ্রামের আবদুল কদ্দুস, তার ছেলে আসাদ মিয়া, একই এলাকার হামিজ উদ্দিনের ছেলে হাসিম উদ্দিন, মইজ উদ্দিনের ছেলে আ. রশিদ ও আবদুল হেকিমের ছেলে রুহুল আমিন।

এদের মধ্যে বিচার চলাকালে মৃত্যুবরণ করায় রুহুল আমিনকে দণ্ড থেকে অব্যাহতি দেন আদালত। এ ছাড়া দণ্ডপ্রাপ্ত চারজনের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এ মামলার ২৩ আসামির মধ্যে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ১৮ জনকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। তাদের মধ্যে তিনজন মারা গেছেন এবং ছয়জন পলাতক। বাকিরা রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে গত ২০০০ সালের ১২ নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে স্থানীয় হাজীপুর বাজারের কাছে প্রতিপক্ষের লোকজন হোসেনপুরের জিনারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জিনারী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান তাহের উদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. সালাউদ্দিন বাদী হয়ে ঘটনার পরদিন ১৭ জনকে আসামি করে হোসেনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে ২০০১ সালের ৬ আগস্ট এজাহারভুক্ত ১৭ জনসহ ২৩ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে দীর্ঘ ১৭ বছর পর এ মামলার রায় ঘোষণা করা হলো।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভোকেট শাহ আজিজুল হক এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অশোক সরকার, এম এ রশিদ ও  আবু বকর।

ইমামদের সঠিক বয়ান দিতে অনুরোধ জানিয়েছেন আদালত
                                  

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ ধর্ম নিয়ে মানহানিকর মন্তব্য করলে প্রচলিত আইনে তাদের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। তবে আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া যাবে না। একই সঙ্গে ইসলাম সম্পর্কে ইমামদের সঠিক বয়ান দিতেও অনুরোধ জানিয়েছে আদালত।

আজ রোববার গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী ও ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দার হত্যার ডেথ রেফারেন্স ও আপিল মামলার রায়ের এ পর্যবেক্ষণ বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম ও মো. জাহাঙ্গীর হোসেনের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

হাইকোর্ট বলেছেন,  রাহমানি ছাড়া আসামিরা সবাই মেরিটরিয়াস। তারা কেন বিপথে গেলেন? এ মামলার মধ্যে আমরা তা খুঁজে পাইনি। তবে বিপথে যাওয়ার অনেক কারণ থাকতে পারে। কেউ কেউ অভিভাবকদের দায়ী করেন’।

রায়ে রাজীব হত্যার দায়ে নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র রেদোয়ানুল আজাদ রানা ও ফয়সাল বিন নাঈম ওরফে দীপের মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট।

বিচারিক আদালতের পুরো রায়ের সঙ্গেই একমত হয়েছেন উচ্চ আদালত। ফলে মাকসুর হাসান অনিকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং এহসান রেজা রুম্মান, নাঈম ইরাদ ও নাফিজ ইমতিয়াজকে দশ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড বহাল রয়েছে। একইসঙ্গে বহাল রয়েছে প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

 এছাড়া আনসারুল্লা বাংলা টিমের প্রধান মুফতি জসীমউদ্দিন রাহমানির ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড এবং আসামি সাদমান ইয়াছির মাহমুদের ৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও দুই হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই মাসের কারাদণ্ডও বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট।

 
আগামীকাল মামলায় সাজার আপিল শুনানি শুরু হবে এরশাদের
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

বিভিন্ন উপহার রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেওয়ার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সাজার বিরুদ্ধে করা প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের আপিল শুনানি শুরুর জন্য আগামীকাল দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

বুধবার সকালে বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানির জন্য এ দিন নির্ধারণ করেন।

আদালতে এরশাদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

এর আগে গত সোমবার এইচ এম এরশাদের আপিল ও রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল শুনানির জন্য নতুন বেঞ্চ নির্ধারণ করে দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

সোমবার নতুন বেঞ্চ গঠনের বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান।

এর আগে গত ২৩ মার্চ এরশাদের আপিলের রায় ঘোষণার জন্য দিন নির্ধারিত থাকলেও বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুসের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণা না করে বিষয়টি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠিয়ে দেন।

রায় ঘোষণার আগে মামলার নথিপত্র দেখে আদালত বলেন, ‘এরশাদের আপিল ছাড়াও সরকারের আরো দুটি আপিল বিচারাধীন রয়েছে।  ওই দুটি আপিলে সরকার এরশাদের সাজা বৃদ্ধির আবেদন জানিয়েছে। এ অবস্থায় নিম্ন আদালতের সাজার রায় বাতিলের জন্য এরশাদ যে আবেদন করেছেন সেটির ওপর রায় ঘোষণা করলে তা যুক্তিসংগত হবে না। অতএব ন্যায়বিচারের স্বার্থে তিনটি আপিলের ওপর একসঙ্গে শুনানি করে রায় দেওয়াটা হবে যুক্তিযুক্ত। এই বিবেচনায় তিনটি আপিলের ওপর প্রয়োজনীয় আদেশের জন্য নথি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানো হলো।’

গত বছরের ৩০ নভেম্বর দীর্ঘ ২৪ বছর পর দুনীর্তি মামলায় সাজার বিরুদ্ধে এরশাদের আপিল শুনানি শুরু হয়। দীর্ঘ ২৪ বছর পর প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের সাজার বিরুদ্ধে আপিল শুনানি শুরু করতে উদ্যোগ নেয় দুর্নীতি দমন কমিশন।

এর আগে ২০১২ সালের ২৬ জুন সাজার রায়ের বিরুদ্ধে এইচ এম এরশাদের আপিলে পক্ষভুক্ত হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আপিলে পক্ষভুক্ত হতে দুদকের করা এক আবেদনের প্রেক্ষিতে ওই দিন বিচারপতি খোন্দকার মুসা খালেদ ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের বেঞ্চ দুদকের আবেদন মঞ্জুর করেন।

১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি থাকাকালে বিভিন্ন উপহার রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে এরশাদের বিরুদ্ধে। এ অভিযোগে ১৯৯১ সালের ৮ জানুয়ারি তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর উপপরিচালক সালেহ উদ্দিন আহমেদ সেনানিবাস থানায় মামলাটি করেন। মামলায় ১ কোটি ৯০ লাখ ৮১ হাজার ৫৬৫ টাকা আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়।

ওই মামলায় ১৯৯২ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের রায়ে এরশাদের তিন বছরের সাজা হয়। একই সঙ্গে ওই অর্থ ও একটি টয়োটা ল্যান্ডক্রুজার গাড়ি বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দেওয়া হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে এরশাদ ১৯৯২ সালে হাইকোর্টে আপিল করেন। আদালত আপিল গ্রহণ করে রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করেন ও নিম্ন আদালতের নথি তলব করেন।

এরশাদের আপিল শুনানির বেঞ্চ নির্ধারণ করে দিয়েছে : বিচারপতি
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

রাষ্ট্রপতি থাকাকালীন সময়ে পাওয়া বিভিন্ন উপহার সামগ্রীর অর্থ রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেয়ার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বিচারিক আদালতের সাজার বিরুদ্ধে সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের আপিলের আবেদন শুনানির জন্য হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ নির্ধারণ করে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি।

শুনানির জন্য হাইকোর্টের বিচারপতি রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর সমম্বয়ে সোমবার এই বেঞ্চ নিধারণ করে দেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা।

এর আগে, গত ২৩ মার্চ নির্ধারিত দিনে রায় ঘোষণা করেননি হাইকোর্টের বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুসের একক বেঞ্চ। ওইদিন আদালতে এরশাদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শেখ সিরাজুল ইসলাম। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নজিবুর রহমান।

ওইদিন মামলার নথিপত্র দেখে আদালত বলেন, এরশাদের আপিল ছাড়াও সরকারের পক্ষ থেকে করা আরও দুটি আপিল বিচারাধীন রয়েছে। ওই দুটি আপিলে সরকার এরশাদের সাজা বৃদ্ধির আবেদন জানিয়েছে। এ অবস্থায় নিম্ন আদালতের সাজার রায় বাতিলের জন্য এরশাদ যে আবেদন করেছে সেটির ওপর রায় ঘোষণা করলে তা যুক্তিসংগত হবে না। অতএব ন্যায় বিচারের স্বার্থে তিনটি আপিলের ওপর একসঙ্গে শুনানি করে রায় দেয়াটা হবে যুক্তিযুক্ত। এই বিবেচনায় তিনটি আপিলের ওপর প্রয়োজনীয় আদেশের জন্য নথি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানো হলো।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৩০ নভেম্বর দীর্ঘ ২৪ বছর পর দুনীর্তি মামলায় সাজার বিরুদ্ধে এরশাদের আপিল শুনানি শুরু হয়। দীর্ঘ ২৪ বছর পর সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের সাজার বিরুদ্ধে আপিল শুনানি শুরু করতে উদ্যোগ নেয় দুর্নীতি দমন কমিশন।

এর আগে ২০১২ সালের ২৬ জুন সাজার রায়ের বিরুদ্ধে এইচ এম এরশাদের আপিলে পক্ষভুক্ত হয় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। আপিলে পক্ষভুক্ত হতে দুদকের করা এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ওইদিন বিচারপতি খোন্দকার মুসা খালেদ ও বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমানের বেঞ্চ দুদকের আবেদন মঞ্জুর করেন।

১৯৮৩ সালের ১১ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাষ্ট্রপতি থাকাকালে বিভিন্ন উপহার রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা না দেয়ার অভিযোগ রয়েছে এরশাদের বিরুদ্ধে। এ অভিযোগে ১৯৯১ সালের ৮ জানুয়ারি তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরোর উপ-পরিচালক সালেহ উদ্দিন আহমেদ সেনানিবাস থানায় মামলাটি করেন। মামলায় এক কোটি ৯০ লাখ ৮১ হাজার ৫৬৫ টাকা আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ আনা হয়।

ওই মামলায় ১৯৯২ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের রায়ে এরশাদের তিন বছরের সাজা হয়। একইসঙ্গে ওই অর্থ ও একটি টয়োটা ল্যান্ডক্রুজার গাড়ি বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দেয়া হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে এরশাদ ১৯৯২ সালে হাইকোর্টে আপিল করেন। পরে আদালত আপিল গ্রহণ করে রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত করেন ও নিম্ন আদালতের নথি তলব করেন।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলা নিম্ন আদালতে চলবে
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ বাতিল করে দিয়েছে আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের তিন বিচারপতির বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলার শুনানি এখতিয়ার সম্পন্ন বেঞ্চে আবেদন না করায় হাইকোর্টের দেয়া আদেশ বাতিল করে দেয়া হয়েছে। এরফলে নিম্ন আদালতে নাইকো মামলার কার্যক্রম চলবে।
 
দুদকের পক্ষে খুরশিদ আলম খান শুনানি করেন। অন্যদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মওদুদ আহমেদ।
 
এর আগে হাইকোর্ট এই কার্যক্রম ৬ মাসের জন্য স্থগিত করে দেয়। পরে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করে দুদক। আবেদনে বলা হয়, দুদকের মামলা শুনানির জন্য হাইকোর্টে কয়েকটি বেঞ্চকে এখতিয়ার দেয়া রয়েছে। কিন্তু এসব বেঞ্চে না গিয়ে অন্য বেঞ্চে গিয়ে এই মামলার শুনানি করা হয়েছে। কিন্তু ঐ বেঞ্চে দুদকের মামলা শুনানির এখতিয়ার ছিল না। অতএব হাইকোর্ট যে আদেশ দিয়েছে তা বাতিল যোগ্য।

সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনের ভোট চলছে
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচন শুরু হয়েছে বুধবার সকাল ১০টা থেকে। দু’দিনব্যাপী এই নির্বাচনের ভোট গ্রহণ এখন চলছে। মাঝে এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে তা চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ২০১৭-২০১৮ সালের কার্যনির্বাহী কমিটির ১৪টি পদের বিপরীতে মোট ৩১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবার ৫ হাজার ৮০ জন আইনজীবী ভোটার ভোট প্রদান করবেন। নির্বাচনে সভাপতি, ২টি সহ-সভাপতি সম্পাদক, সম্পাদক, ২টি সহ-সম্পাদক, কোষাধ্যাক্ষ এবং ৭টি সদস্য পদে প্রার্থী নির্বাচনের জন্য ভোট দেবেন আইনজীবীরা।
 
গত এক দশক ধরে প্যানেল ভিত্তিক নির্বাচন হলেও এবার এর ব্যতিক্রম ঘটেছে। নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত সাব কমিটি নির্বাচনী আচরণবিধিমালা কঠোরভাবে অনুসরণ করায় প্যানেলভিত্তিক নির্বাচন করার সুযোগ হারান আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ (সাদা) ও বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের (নীল) আইনজীবীরা। এই দুটি রাজনৈতিক দলের সমর্থিত আইনজীবীরা প্যানেল গঠন করে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আসছিল।

মুফতি হান্নানের ফাঁসির রিভিউ রায় প্রকাশ করেছে : সুপ্রিমকোর্ট
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনারকে হত্যাচেষ্টা মামলায় হুজির শীর্ষ নেতা মুফতি আব্দুল হান্নানসহ ৩ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড বহালের রিভিউর রায় প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। রায়ে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে নিযুক্ত তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনারকে হত্যা করতেই পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ওই হামলা চালানো হয়েছিলো। ওই হামলায় তিন ব্যক্তি মারা যান। যাদের একজন ঘটনাস্থলেই মৃত্যুবরণ করেন। বাকি দু’জন হাসপাতালে। ফলে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড সংঘটনের অপরাধ মার্জনা করার কোন সুযোগ নেই। আদেশে বলা হয়, রিভিউ পিটিশনারদের আইনজীবী বলেছেন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা দশ বছর ধরে কনডেম সেলে বন্দি রয়েছেন। এছাড়া মামলা নিষ্পত্তি করতেও লেগেছে অনেক সময়। এই বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে তাদেরকে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে আমৃত্যু দণ্ড দেওয়া হোক। এ প্রসঙ্গে আপিল বিভাগের আদেশে বলা হয়, এটি সাজা হ্রাসের জন্য কোন আইনি যুক্তি হতে পারে না। এছাড়া রায়ের কোন আইনগত ত্র“টিও খুঁজে বের করতে পারেনি। ফলে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের রিভিউ আবেদন খারিজ করা হল।
 
প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা এবং আপিল বিভাগের অপর দুই জন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর সাক্ষরের পর এ রায় প্রকাশ করা হল। এখন রিভিউ খারিজের এ রায়টি কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন হাইকোর্টের অতিরিক্ত রেজিস্টার (প্রশাসন ও বিচার) মো. সাব্বির ফয়েজ। তিনি বলেন, আমরা দ্রুতই এই রিভিউ খারিজের রায় কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছি এবং আজই তা পাঠানো হবে।
 
বিগত বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আসামি মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল আলম ওরফে বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন রিপনের রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেয়। এ আসামিরা আপিল বিভাগের ফাঁসির রায় হ্রাস করে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেয়ার জন্য আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। আবেদনে বলা হয়েছিল, তারা দীর্ঘদিন কনডেম সেলে মৃত্যু যন্ত্রণা ভোগ করছিল। এ কারণে সাজা হ্রাস করা যেতে পারে। কিন্তু সর্বোচ্চ আদালত অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় নিয়ে সাজা হ্রাসের এই যুক্তি নাকচ করে দিয়ে ফাঁসি বহাল রাখে।
 
আইন বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, কারাগারে এই রায় পৌঁছানোর পর কারা কর্তৃপক্ষ এই তিন আসামিকে রায়ের বিষয়টি অবহিত করবে। এরপর আসামিরা রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাইবেন কিনা, সে বিষয়ে তাদের জিজ্ঞাসা করবে কারা কর্তৃপক্ষ। যদি তারা প্রাণ ভিক্ষা না চান, তাহলে যে কোন সময় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে পারবে কারা কর্তৃপক্ষ।
 
২০০৪ সালের ২১ মে সিলেটে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরী। দরগাহ প্রাঙ্গণে জুমার নামাজ শেষে ফেরার পথে তাকে লক্ষ্য করে গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক কামাল উদ্দিন নিহত হন। এছাড়া বেশ কয়েকজন হতাহত হলেও প্রাণে বেঁচে যান তিনি। এ ঘটনায় দায়েরকৃত হত্যা মামলায় ২০০৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর সিলেটের বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল তিন জনকে মৃত্যুদণ্ড ও দু’জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে। মৃত্যুদণ্ডের ওই রায় অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স আকারে হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আসামিরা খালাস চেয়ে নিয়মিত ও জেল আপিল করেন। ওই আপিল খারিজ করে দিয়ে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ নিম্ন আদালতের সাজার রায় বহাল রাখে। এ ছাড়া মুফতি হান্নানের ভাই মহিবুল্লাহ ওরফে মফিজুর রহমান ওরফে মফিজ ওরফে অভি (৩২) ও মুফতি মইনউদ্দিন ওরফে আবু জান্দাল ওরফে মাসুম বিল্লাহ ওরফে খাজাকে (৩১) দেয়া যাবজ্জীবন সাজার রায়ও বহাল রাখে আদালত। হাইকোর্টের এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তরা। গত ডিসেম্বর মাসে আপিল বিভাগ আসামিদের আপিল খারিজ করে দিয়ে ফাঁসির রায় বহাল রাখে।

কুষ্টিয়ায় আলাদা দুইটি হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসির আদেশ
                                  

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়ায় আলাদা দুইটি হত্যা মামলায় ৩ জনের মৃত্যু দন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত সোমবার দুপুর ১২টায় কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ প্রথম ও দ্বিতীয় আদালত এ রায় দেন। মৃত্যু দন্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামীরা হলেন কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সেন্টু শেখ, মাহাবুল ইসলাম ও শিহাব উদ্দিন শিশির। রায় প্রদানের সময় শিশির ছাড়া বাকি দু’জন আদালতে  উপস্থিত ছিলেন।

মামলার বিবরণে জানা যায় ২০১৫ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারী সকাল ৭টার দিকে ভ্যানচালক নিশানকে ভাড়া নেয়ার নাম করে ডেকে নিয়ে যায় দূর্বৃত্তরা। পওে নিশানকে পাশ্ববর্তী জিকে ক্যানেলের পাশে শ্বাসরোধ কওে হত্যা কওে লাশ ফেলে রাখে। ওই ঘঁনায় নিশানের বাবা মিরপুর থানায় হত্যা মামলা দায়েরকরেন।

২০১৩ সালের অপর এশটি মামলায় শিহাব উদ্দিন শিশির নামে এক কলেজ ছাত্র তার কলেজ ছাত্রী স্ত্রী স্নিগ্ধাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। ওই ঘঁনায় স্নিগ্ধার বড় ভাই বাদি হয়ে মিরপুর থানায় মামালা দায়ের করেন।

ষড়যন্ত্রকারীদের খোঁজার অগ্রগতি জানানোর সময় বাড়লো : আদালত
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

পদ্মা সেতুর ‘দুর্নীতি নিয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট গল্প’ সৃষ্টির নেপথ্যের ষড়যন্ত্রে যুক্ত প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের করতে এখনো কমিশন গঠন করা হয়নি। বিষয়টি আদালতকে অবহিত করলে বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর ডিভিশন বেঞ্চ আগামী ৭ মে মধ্যে আদেশ বাস্তবায়ন সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিল করার আদেশ দেন।
 
এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি কমিশন গঠন করে প্রকৃত অপরাধীদের খুঁজে বের করতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না—এই মর্মে রুল জারি করে হাইকোর্ট। আজ সোমবার ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এডভোকেট তাপস কুমার বিশ্বাস সময় চেয়ে আবেদন করেন। আদালত সময় মঞ্জুর করে আদেশ দেন।
 
বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অবকাঠামো প্রকল্প পদ্মা সেতুতে অর্থায়নের জন্য চুক্তি করে। পরে দুর্নীতির ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলে তা স্থগিত এবং বাতিল করে। এই সেতু প্রকল্পের কাজ তদারকির পাঁচ কোটি ডলারের কাজ পেতে এসএনসি-লাভালিনের কর্মীরা ২০১০ ও ২০১১ সালে বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের ঘুষ দেয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন বলে মামলা হয়েছিল কানাডার আদালতে। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে কানাডার আদালত ওই মামলার তিন আসামিকে খালাস দেয়। রায়ে বিচারক বলেন, এই মামলায় প্রমাণ হিসেবে যেগুলো উপস্থাপন করা হয়েছে সেগুলো ‘অনুমানভিত্তিক, গাল-গল্প ও গুজবের বেশি কিছু নয়’। এই রায় প্রকাশের পরই ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও তার নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট নোবেল বিজয়ী প্রফেসর ড. ইউনূসের বিচারের দাবি জানান। এ নিয়ে ‘ইউনূসের বিচার দাবি’ শিরোনামে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্নীতির অভিযোগ তুলে পদ্মাসেতু নির্মাণে অর্থায়নের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে বিশ্বব্যাংক। এ ঘটনা তখন গোটা বিশ্বে তোলপাড় সৃষ্টি করে। সাড়ে তিন বছর আগের ওই ঘটনার পর বিশ্বব্যাংকের পাশাপাশি দেশি-বিদেশি কিছু ব্যক্তিত্বের দৌড়ঝাপ, আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানের ক্রিয়াকর্ম ও মিডিয়ার অতি উত্সাহ পদ্মা সেতু ইস্যুতে সরকারকে বিপাকে ফেলে দেয়। যা ছিল সরকারের জন্য চরম অবমাননাকর। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ়তায় নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। পদ্মাসেতু নির্মাণে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন থেকে সরে যাওয়ার কারণ পর্দার আড়ালে নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস কলকাঠি নাড়ছেন বলে মনে করে সরকার। কানাডার আদালত পদ্মা সেতু দুর্নীতির মামলা খারিজ করে দেয়ার পর সবর হয়ে উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও তাদের সমমনা দলগুলো। তারা এখন মনে করছেন ওই সময় পদ্মা সেতু ইস্যুতে দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগ তুলে বাংলাদেশের সরকারের ভাবমর্যাদা নষ্ট করায় ড. ইউনূসকে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত। দলটি জাতীয় সংসদে ও সংসদের বাইরে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে ড. ইউনূস ও জার্মানির অর্থে পরিচালিত দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা টিআইবি’র ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। পদ্মা সেতু নির্মাণে বিলম্ব হওয়ায় যে অধিক অর্থ ব্যয় হচ্ছে সে ক্ষতিপূরণ বিশ্বব্যাংককে দিতে হবে। পরে এই প্রতিবেদন আমলে নিয়ে হাইকোর্ট স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করে।

গাজীপুরে হত্যার দায়ে একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

গাজীপুরে হত্যা মামলায় রায়ে একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড আদেশ দিয়েছে আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন, গাজীপুর মহানগরীর বারোবৈকা এলাকায় ফরহাদ হোসেন ওরফে মারুফ (২৫)।
 
বুধবার বেলা দুইটায় গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ একেএম এনামুল হক জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। রায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরো একমাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলায় দুইজনকে খালাস দেয়া হয়।
 
গাজীপুর জজ কোর্টের পিপি অ্যাডভোকেট হারিস উদ্দিন আহমদ জানান, ২০১২ সালের ১০ মে আসামি ফরহাদ বিভিন্ন সমস্যা দেখিয়ে ১৫০ টাকার স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে নূরল হক ভুইয়ার ছেলে মিরু মিয়া ওরফে বিজয় (২৫) কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা ধার নেয়। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও পাওনা টাকা পরিশোধ করতে ফরহাদ ব্যর্থ হয়। প্রতিনিয়ত তাগাদা দিয়েও টাকা না পাওয়া তাকে হুমকি দিতে থাকে নিরু। পরে ফরহাদ হোসেন পাওনা টাকা পরিশোধের কথা বলে নিরু মিয়াকে ডেকে নেয়। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। তিনদিন পর বাড়ির পাশে বারোবৈতা এলাকায় জনৈক হাবিবের বাড়ি পাশে ডোবায় তার লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহতের মা নিলুফা বেগম বাদী হয়ে ফরহাদসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ২০১৩ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি অভিযুক্ত আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় আদালত ১১ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করে এ রায় দেয়।
 
আসামি পক্ষে শুনানি করে ড. মো. শহীদুজ্জামান। এবং রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাড. হারিস উদ্দিন আহমদ।

ফজলুল হকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা চলবে
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক আইন উপদেষ্টা ও সাবেক বিচারপতি ফজলুল হকের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় বিচার কার্যক্রম চলবে। দুদকের এই মামলার কার্যক্রম বাতিল চেয়ে তার করা আবেদন সরাসরি খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্ট।

 
বিচারপতি মো. শওকত হোসাইন ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের ডিভিশন বেঞ্চ আজ বুধবার এই আদেশ দেয়।
 
বর্তমানে মামলাটি ঢাকা বিশেষ জজ আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে রয়েছে। ২০০৮ সালে ১৩ এপ্রিল রাজধানীর রমনা থানায় ফজলুল হকের বিরুদ্ধে এই অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলা করে দুদক।
 
মামলার এজাহারে বলা হয়, ফজলুল হক উপদেষ্টা থাকাকালীন অবৈধভাবে ১ কোটি ২৮ লাখ টাকা অর্জন করেছেন। গত ১৪ জানুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ফজলুল হকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে। এই অভিযোগ গঠন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন তিনি।
 
তার পক্ষে আইনজীবী হেলাল উদ্দিন মোল্লা ও দুদকের পক্ষে খুরশিদ আলম খান শুনানি করেন। শুনানি শেষে হাইকোর্ট উপরোক্ত আদেশ দেয়।

২৮ মার্চ খালেদা জিয়ার ১১ মামলার পরবর্তী শুনানি
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

অসুস্থতার কারণে হাজিরা দিতে ঢাকার নিম্ন আদালতে যাননি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। রাষ্ট্রদ্রোহের একটি ও নাশকতার ১০ মামলায় মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার আদালতে হাজির হওয়ার জন্য দিন ধার্য ছিল।
 
তার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া এবং মাসুদ আহমেদ তালুকদার আদালতে বলেছেন, খালেদা জিয়ার আজ আদালতে হাজির হওয়ার কথা ছিল। তিনি আদালতে আসার প্রস্তুতিও নিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি অসুস্থ হয়ে পড়ায় আদালতে আসতে পারেননি। এজন্য আমরা তার পক্ষে সময় প্রার্থনা করছি। অপরদিকে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু এর বিরোধিতা করেন।
 
শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে পরবর্তী শুনানির তারিখ ২৮ মার্চ ধার্য করেন। ওই দিন খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দেন আদালত।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলা অন্য আদালতে স্থানান্তর
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৩ এর বিচারক আবু আহম্মেদ জমাদ্দারের প্রতি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অনাস্থা আবেদন মঞ্জুর করেছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মামলাটি ঐ আদালত থেকে স্থানান্তর করে ঢাকার সিনিয়র মহানগর বিশেষ জজ আদালতে পাঠানো হয়েছে। এই আদালতকে ৬০ দিনের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি শহীদুল করিমের ডিভিশন বেঞ্চ আজ বুধবার এ আদেশ দেন।
 
এর আগে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ৩ এর বিচারকের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা অন্য আদালতে স্থানান্তরের আবেদন করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিচারক আবু আহমেদ জমাদারের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে হাইকোর্টে এ আবেদন করেন তিনি।
 
হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় খালেদা জিয়ার পক্ষে গত ২ ফেব্রুয়ারি ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এ আবেদন করেন। এরপর ৫ মার্চ এই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে ৮ মার্চ আদেশের জন্য দিন নির্ধারণ করা হয়। মামলার শুনানিতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহম্মদ আলী, ব্যারিস্টার মাহবুবুদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। অন্যদিকে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন খুরশিদ আলম খান।
 
ব্যারিস্টার কায়সার কামাল জানান, হাইকোর্ট ৬০ দিনের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তির জন্য বলেছিল তখন আমরা বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আদালত বলেছে আইন অনুযায়ী মামলাটি নিষ্পত্তি করতে হবে।


   Page 1 of 19
     আদালত
নাশকতার মামলায় বিএনপি নেতা ফারুকের জামিন
.............................................................................................
বিশ্বজিৎ হত্যা : হাইকোর্টের রায় ৬ আগস্ট
.............................................................................................
কিশোরীর ২৬ টুকরো লাশের ঘটনায় আসামির মৃত্যুদণ্ডাদেশ
.............................................................................................
আ.লীগ নেতা হত্যায় ৫ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
ইমামদের সঠিক বয়ান দিতে অনুরোধ জানিয়েছেন আদালত
.............................................................................................
আগামীকাল মামলায় সাজার আপিল শুনানি শুরু হবে এরশাদের
.............................................................................................
এরশাদের আপিল শুনানির বেঞ্চ নির্ধারণ করে দিয়েছে : বিচারপতি
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলা নিম্ন আদালতে চলবে
.............................................................................................
সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনের ভোট চলছে
.............................................................................................
মুফতি হান্নানের ফাঁসির রিভিউ রায় প্রকাশ করেছে : সুপ্রিমকোর্ট
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় আলাদা দুইটি হত্যা মামলায় ৩ জনের ফাঁসির আদেশ
.............................................................................................
ষড়যন্ত্রকারীদের খোঁজার অগ্রগতি জানানোর সময় বাড়লো : আদালত
.............................................................................................
গাজীপুরে হত্যার দায়ে একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
.............................................................................................
ফজলুল হকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা চলবে
.............................................................................................
২৮ মার্চ খালেদা জিয়ার ১১ মামলার পরবর্তী শুনানি
.............................................................................................
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলা অন্য আদালতে স্থানান্তর
.............................................................................................
খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলায় বদরুলের যাবজ্জীবন কারাদন্ড
.............................................................................................
ট্রাক চালক হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত
.............................................................................................
৯ এপ্রিল খালেদার বিরুদ্ধে গ্যাটকো মামলায় অভিযোগ গঠন
.............................................................................................
৯ মার্চ খালেদা জিয়ার দুই মামলায় পরবর্তী শুনানি
.............................................................................................
১৪ মার্চ নাইকো মামলায় খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন
.............................................................................................
মাগুরায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই স্থগিত করেছেন হাইকোট
.............................................................................................
হাইকোর্টে বিনা বিচারে তিন আটক বন্দির জামিন
.............................................................................................
বদরুল আমাকে প্রতিবন্ধী করে দিয়েছে : খাদিজা
.............................................................................................
২ এপ্রিল পর্যন্ত পিলখানা হত্যা মামলার শুনানি মুলতবি করা হয়েছে
.............................................................................................
মুফতি হান্নানসহ ৩ আসামির মৃত্যুদণ্ড দাখিল করেছে রিভিউ
.............................................................................................
৫ এপ্রিল খালেদাসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দাখিল
.............................................................................................
ডিএসসিসি কর্মকর্তা ঘুষের টাকাসহ গ্রেফতার
.............................................................................................
ময়মনসিংহের এসপির নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা
.............................................................................................
খালেদা জিয়া বৃহস্পতিবার আদালতে যাবেন না
.............................................................................................
ওষুধ উৎপাদন বন্ধ ২০ কোম্পানির, এন্টিবায়োটিক ১৪টির : হাইকোর্ট
.............................................................................................
স্থায়ী নিয়োগ পাওয়া ৮ বিচারপতি শপথ নিলেন
.............................................................................................
প্রধান বিচারপতির হস্তক্ষেপে ৪৮ কিশোর মুক্তি পেল
.............................................................................................
বুলুসহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
৮ মার্চ পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন হবে
.............................................................................................
খালেদা বিচারকের প্রতি অনাস্থার আবেদন নিয়ে হাইকোর্টে
.............................................................................................
সাঁওতাল পল্লিতে আগুন : হাইকোর্টের নির্দেশ এসপিসহ পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহার
.............................................................................................
৭ মার্চ আরাফাত সানির বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন দাখিল
.............................................................................................
বিচারকের প্রতি খালেদার আইনজীবীদের অনাস্থা
.............................................................................................
লক্ষ্মীপুরে কৃষক হত্যা মামলায় ৫ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড
.............................................................................................
অপরাধী যত বড় হোক দায়মুক্তি পাবে না : প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
কুমিল্লায় প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ: অভিযুক্তকে গ্রেফতারের নির্দেশ
.............................................................................................
জামিনে মুক্ত মেয়র এম এ মান্নান
.............................................................................................
আরিফুল হক জামিনে মুক্ত
.............................................................................................
আ.লীগের সঙ্গে রাষ্ট্রপতির সংলাপ ১১ জানুয়ারি
.............................................................................................
বুলুসহ ২০ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি
.............................................................................................
মির্জা ফখরুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ১৪ মার্চ
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানি ৫ জানুয়ারি
.............................................................................................
ফের আত্মপক্ষ সমর্থনে বৃহস্পতিবার আদালতে যাবেন খালেদা
.............................................................................................
ব্লগার অভিজিৎ হত্যা মামলার প্রতিবেদন ১৯ জানুয়ারি
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
[ সম্পাদক মন্ডলী ]
2, RK Mission Road (5th Floor) Motijheel, Dhaka - 1203.
মোবাইল: ০১৭১৩৫৯২৬৯৬, ০১৯১৮১৯৮৮২৫ ই-মেইল : deshkalbd@gmail.com
   All Right Reserved By www.deshkalbd.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]