| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
   * রাম নাথ কোভিন্দকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন   * টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে : স্পিকার   * বিএনপির লন্ডন মার্কা সহায়ক সরকার জনগণ মানবে না : ওবায়দুল কাদের   * শিগগিরই বিচারকদের শৃঙ্খলা বিধির গেজেট: আইনমন্ত্রী   * নির্বাচন কমিশনের সচিব পরিবর্তন   * সরকার মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী   * চিকুনগুনিয়া রোগীর বাড়ি গিয়ে চিকিৎসা দেবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি   * ‘আকাশ সংস্কৃতিতে যা ক্ষতিকর তা বর্জন করুন’   * সবার সহযো‌গিতায় দুর্যোগ মোকা‌বিলা : ত্রাণমন্ত্রী   * চিকিৎসার জন্য ভারতে যাচ্ছেন আল্লামা শফী  
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   প্রবাস -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে স্বাধীনতা দিবস পালিত

অনলাইন ডেস্ক :

যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে আজ (২৬ মার্চ ২০১৭) রবিবার দুপুরে হাইফিল্ড ট্রিনিটি চার্চ,লন্ডন রোড,শেফিল্ড এ বাংলাদেশের ৪৬ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম মোহিদ আলী মিঠুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ খালেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন শেফিল্ড আওয়ামী লীগ নেতা খলকু মিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৃটিশ পার্লামেন্ট মেম্বার শেডো মিনিষ্টিার এম পি পল ব্র“মফিল্ড। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, ডেপুটি লর্ড মেয়র, শেফিল্ড কাউন্সিলার এনি মার্ফিন, মিশেলী কুক, নাছিমা আক্তার, মাঝহার ইকবাল, মোহাম্মদ মারুফ, 
এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, শেফিল্ড আওয়ামীলীগ নেতা, জাহিদুল ইসলাম, ইব্রাহিম উল­াহ, গউছ আলী, এম ইব্রাহীম আলী, এম আনাম আলী, কলকু মিয়া, আব্দুল মতিন, সিরাক আলী, মোবারক আলী, খালেদ আহম্মদ চৌধুরী, সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। 
প্রধান অতিথির বক্তব্যে পল ব্র“মফিল্ড এম পি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙ্গালি জাতি স্বাধীন একটি দেশ পেয়েছে। বিশ^ মানচিত্রে তৈরী হয়েছে বাংলাদেশ নামের একটি দেশ। ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চের মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া হত্যাযজ্ঞের ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে উঠে দাঁড়িয়ে বাঙালিরা মুক্তিযুদ্ধ ও দেশ স্বাধীন করার শপথ গ্রহণ করে। ঐ দিনেই প্রতিটি বাঙালির মনে নতুন রাষ্ট্র বাংলাদেশের বীজ রোপিত হয়। স্বাধীন বাংলার অবরুদ্ধ রাজধানী ঢাকা ছাড়া সমগ্র বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত স্বাধীনতা ডাকের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলিত হয়। 
তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর সেই ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশকে হানাদার মুক্ত করার দৃপ্ত অঙ্গীকার নিয়ে বীর বাঙালিরা ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধে। তবে সেই সময় বাঙালিদেরই মুষ্টিমেয় একটি অংশ আবার বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে বেঈমানী ও পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে শান্তি কমিটি, আলবদর ও আলশামস বাহিনী গঠন করে হত্যা, ধর্ষণ ও লুটতরাজে মেতে ওঠেছিল। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার ধীর্ঘদিন পর হলেও বার্তমান প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রকৃত যুদ্ধপরাধীদের সনাক্ত করে শাস্তির যে ব্যবস্থা করেছে এটা অবশ^্যই প্রসংশনিও উদ্বোগ। এ ছাড়াও শেখ হাসিনা নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে করে খুব শীঘ্রই বিশে^র রোল মডেল দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশের উন্নয়নে বিট্রিশ সরকার অতীতেও ছিল বর্তমানেও আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলতে বিট্রিশ সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। 
বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলতে বিট্রিশ সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। 
সভাপতির বক্তব্যে এম মোহিদ আলী মিঠু বলেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলার মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে পাকিস্থানিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করে। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ এ দেশের আপামর জীবনকে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গিতে সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর করেছেন। পৃথিবীর ইতিহাসে এত ত্যাগ, এত মর্মস্পর্শী হৃদয়বিদারক ঘটনা খুব কমই ঘটেছে। লব্ধ অভিজ্ঞতা সত্তে¡ও এত বছর পরে আমরা দেশের ইতিহাসে তার সঠিক প্রয়োগ করতে পারিনি। বিএনপি, জামায়াত সরকার দেশের মুক্তিযুদ্ধকে বিকৃত করার জন্য নানা রকম পাইতারা করেছে। তাদের সরকারের আমলে ছেলে মেয়েদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্ক্য ভ‚ল শিক্ষা দেওয়া হতো যে কারণে নতুন প্রজন্মের কাছে আমরা তুলে ধরতে পারিনি দেশের সঠিক ইতিহাস। সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত দেশ ও সমাজ গড়ে তুলতে আমাদের আগামী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের মতো অভিশাপ থেকে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যেন মুক্তি পায়, তার দায়িত্ব আমাদের সকলকেই নিতে হবে।  
তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সার্বিক ভাবে চেষ্টা করছে আগামী প্রজন্মের কাছে মুক্তিযোদ্ধে সঠিক ইতিহাস পৌছে দেবার জন্য। শুধু মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অক্লান্ত পরিশ্রম ও সঠিক দিকনির্দেশনায় সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ নির্মূল, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন, শিক্ষা- প্রযুক্তির প্রসার, অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে সকল অঙ্গনে। এ ধরনের উন্নয়ন কেবল আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই সম্ভব। 

যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে স্বাধীনতা দিবস পালিত
                                  

অনলাইন ডেস্ক :

যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে আজ (২৬ মার্চ ২০১৭) রবিবার দুপুরে হাইফিল্ড ট্রিনিটি চার্চ,লন্ডন রোড,শেফিল্ড এ বাংলাদেশের ৪৬ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম মোহিদ আলী মিঠুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ খালেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন শেফিল্ড আওয়ামী লীগ নেতা খলকু মিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৃটিশ পার্লামেন্ট মেম্বার শেডো মিনিষ্টিার এম পি পল ব্র“মফিল্ড। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, ডেপুটি লর্ড মেয়র, শেফিল্ড কাউন্সিলার এনি মার্ফিন, মিশেলী কুক, নাছিমা আক্তার, মাঝহার ইকবাল, মোহাম্মদ মারুফ, 
এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, শেফিল্ড আওয়ামীলীগ নেতা, জাহিদুল ইসলাম, ইব্রাহিম উল­াহ, গউছ আলী, এম ইব্রাহীম আলী, এম আনাম আলী, কলকু মিয়া, আব্দুল মতিন, সিরাক আলী, মোবারক আলী, খালেদ আহম্মদ চৌধুরী, সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। 
প্রধান অতিথির বক্তব্যে পল ব্র“মফিল্ড এম পি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাঙ্গালি জাতি স্বাধীন একটি দেশ পেয়েছে। বিশ^ মানচিত্রে তৈরী হয়েছে বাংলাদেশ নামের একটি দেশ। ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চের মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া হত্যাযজ্ঞের ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে উঠে দাঁড়িয়ে বাঙালিরা মুক্তিযুদ্ধ ও দেশ স্বাধীন করার শপথ গ্রহণ করে। ঐ দিনেই প্রতিটি বাঙালির মনে নতুন রাষ্ট্র বাংলাদেশের বীজ রোপিত হয়। স্বাধীন বাংলার অবরুদ্ধ রাজধানী ঢাকা ছাড়া সমগ্র বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত স্বাধীনতা ডাকের মাধ্যমে স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলিত হয়। 
তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর সেই ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশকে হানাদার মুক্ত করার দৃপ্ত অঙ্গীকার নিয়ে বীর বাঙালিরা ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধে। তবে সেই সময় বাঙালিদেরই মুষ্টিমেয় একটি অংশ আবার বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে বেঈমানী ও পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে হাত মিলিয়ে শান্তি কমিটি, আলবদর ও আলশামস বাহিনী গঠন করে হত্যা, ধর্ষণ ও লুটতরাজে মেতে ওঠেছিল। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার ধীর্ঘদিন পর হলেও বার্তমান প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রকৃত যুদ্ধপরাধীদের সনাক্ত করে শাস্তির যে ব্যবস্থা করেছে এটা অবশ^্যই প্রসংশনিও উদ্বোগ। এ ছাড়াও শেখ হাসিনা নেতৃত্বে বাংলাদেশ যে ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে করে খুব শীঘ্রই বিশে^র রোল মডেল দেশে পরিণত হবে। বাংলাদেশের উন্নয়নে বিট্রিশ সরকার অতীতেও ছিল বর্তমানেও আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলতে বিট্রিশ সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। 
বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলতে বিট্রিশ সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। 
সভাপতির বক্তব্যে এম মোহিদ আলী মিঠু বলেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলার মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে পাকিস্থানিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করে। আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ এ দেশের আপামর জীবনকে সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গিতে সমৃদ্ধ থেকে সমৃদ্ধতর করেছেন। পৃথিবীর ইতিহাসে এত ত্যাগ, এত মর্মস্পর্শী হৃদয়বিদারক ঘটনা খুব কমই ঘটেছে। লব্ধ অভিজ্ঞতা সত্তে¡ও এত বছর পরে আমরা দেশের ইতিহাসে তার সঠিক প্রয়োগ করতে পারিনি। বিএনপি, জামায়াত সরকার দেশের মুক্তিযুদ্ধকে বিকৃত করার জন্য নানা রকম পাইতারা করেছে। তাদের সরকারের আমলে ছেলে মেয়েদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্ক্য ভ‚ল শিক্ষা দেওয়া হতো যে কারণে নতুন প্রজন্মের কাছে আমরা তুলে ধরতে পারিনি দেশের সঠিক ইতিহাস। সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মুক্ত দেশ ও সমাজ গড়ে তুলতে আমাদের আগামী প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের মতো অভিশাপ থেকে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম যেন মুক্তি পায়, তার দায়িত্ব আমাদের সকলকেই নিতে হবে।  
তিনি আরো বলেন, বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা সার্বিক ভাবে চেষ্টা করছে আগামী প্রজন্মের কাছে মুক্তিযোদ্ধে সঠিক ইতিহাস পৌছে দেবার জন্য। শুধু মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অক্লান্ত পরিশ্রম ও সঠিক দিকনির্দেশনায় সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ নির্মূল, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন, শিক্ষা- প্রযুক্তির প্রসার, অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে সকল অঙ্গনে। এ ধরনের উন্নয়ন কেবল আওয়ামী লীগ সরকারের আমলেই সম্ভব। 

যুক্তরাষ্ট্রে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা উদযাপন
                                  

অনলাইন ডেস্ক:

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে যথাযোগ্য মর্যাদায় বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে স্থানীয় সময় রবিবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন, বাংলাদেশ কনস্যুলেট, কংগ্রেস অব বাংলাদেশি আমেরিকান ইন্ক, বাংলাদেশ সোসাইটি, মুক্তধারা ফাউন্ডেশন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিসহ বিভিন্ন সংগঠন  বর্ণাঢ্য ও জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
 
সকাল ১০টায় বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন, নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কনস্যুলেট ও কংগ্রেস অব বাংলাদেশি আমেরিকান ইনক্ যৌথভাবে এলম্হার্স্ট হাসপাতালে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচির আয়োজন করে। মিশন ও কনস্যুলেটের কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও স্থানীয় প্রবাসী বাঙালিরা এই কর্মসূচিতে স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন।
 
দুপুরে স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। আলোচনা পর্বের শুরুতে স্বাগত ভাষণ দেন স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসান, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ। বক্তারা বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে প্রবাসীদের আরো অবদান রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
 
নিউইয়র্কের ব্রুকলিনের পিএস-১৭৯ মিলনায়তনে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক্। সংগঠনের সভাপতি কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিনের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অংশ নেন কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসানসহ মূলধারার বেশ কয়েকজন রাজনীতিবিদ। অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল, নাচ, গান ও কবিতা পাঠ।
 
মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে স্বাধীনতা প্যারেডের আয়োজন করে মুক্তধারা ফাউন্ডেশনও বাঙালীর চেতনা মঞ্চ। প্রবাসী বাংলাদেশিরা এই প্যারেডে অংশ নেন। এ ছাড়াও জ্যাকসন হাইটসের পিএস-৬৯ মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
 
মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে উডসাইডের কুইন্স আলোচনা সভার আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ। সংগঠনের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে জ্যাকসন হাইটসের মেজবান রেস্টুরেন্টে আলোচনা সভার আয়োজন করে। নিউইয়র্ক স্টেট বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাঈদুর রহমান সাঈদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় মূল আলোচক ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সিনিয়র নেতা আকতার হোসেন বাদল। এছাড়া সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন।

আরব-আমিরাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু জন্মদিন পালন
                                  
ওবাইদুল হক,আরব আমিরাত প্রতিনিধি :
 
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন  ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আবুধাবীর স্থানীয় তৌহিদ রেস্টুরেন্টের হলরুমে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন  প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু  আরব-আমিরাত। 
প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর,  সভাপতি এস,এম,রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেখ খলিফা বিন জায়েদ বাংলাদেশ ইসলামীয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মীর আনিসুর হাসান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইমরাদ হোসেন ইমু, আরো বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেখ খলিফা বিন জায়েদ বাংলাদেশ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যাপক জনাব এস,এম,আবু তাহের। বিশেষ বক্তা ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কবিতা মঞ্চের উপদেষ্টা সাহিত্যিক ডাঃ শামসুর রহমান। আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলা ভিশনের আরব-আমিরাতে  সিনিয়র প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর কবীর বাপপী, প্রমুখ।   প্রথমেই কোরআন তেলোয়াত করেন মাওলানা মমতাজ, প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু, সাধারণ সম্পাদক আবু মনসুরের  পরিচালনায় ও  উপস্থাপনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক শামসুর হুদা হিরো,  আরো বক্তব্য রাখেন,আবু তাহের তারেক, রুহুল আমিন,মোহাম্মদ সেলিম উদ্দিন, আয়ুব খান,মোহাম্মদ খোরশেদ, হান্নান,কামাল উদ্দিন,মোহাম্মদ খোকন,এনাম, মনজুর আলম,মামুন, এরশাদ, প্রমুখ বক্তারা বলেন বঙ্গবন্ধু জাতির জন্য এক উজ্জল নক্ষত্র। তাঁর জন্মের মাধ্যমে একটা জাতির ভাষা ও জাতির বাংলা বলার অধিকার পেয়েছে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মীর আনিসুর হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধুর মধ্যে যে দেশ প্রেম বা মাতৃত্ববোধ ছিল তা জাতি কখনো ভুলতে পারবেনা। তিনি চাইলে তার ক্ষমতার বলে দশটা বাড়ি,বিশটা গাড়ি নিজের নামে করে রাখতে পারতেন, তিনি চাইলে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে অনেক ব্যবসা বানিজ্য করতে পারতেন, কিন্তু তিনি জাতির জন্য তথা জাতির ভাগ্য উন্নয়নের জন্য নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন কোন কিছুর লোভ তাঁর মাঝে ছিলনা। এরই নাম শেখ মুজিবুর রহমান। অধ্যাপক আবু তাহের তাঁর বিশেষ বক্তিতায় আবেগ পবন হয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম আমরা জাতির জন্য এক উজ্জল প্রদীপ।যে প্রদীপ আমরা জাতি সর্বত্র বিশ্বের দরবারে জ্বালাচ্ছি। সেই মহান বীরকে,  তার কর্মকে আমরা শ্রদ্বার সাথে স্মরণ করছি। অনুষ্ঠানের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু সংগঠন তথা জাতির কল্যাণে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমরা হত দরিদ্র মানুষের জন্য যখন যা পারি সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন নিয়ে আমরা সামনে এগিয়ে যেতে চাই,এজন্য সকলের কাছে পাশে থাকার আহ্বান করছি। তিনি আরো বলেন আমরা সব সময় সামাজিক ভাবে দেশও জাতির জন্য এক হয়ে কাজ করে যাব  এটাই আমার স্বপ্ন। অনুষ্ঠান চলে রাত ১১ পর্যন্ত।  পরে বঙ্গবন্ধু জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে কেক কেটে অনুষ্টানের সমাপ্তি হয়।
বাংলাদেশ হাই কমিশন কানাডার ২১ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠান সর্ষের মধ্যে ভূত সমাচার।
                                  

দেশকাল ডেস্ক :

বাংলাদেশ হাই কমিশন কানাডা প্রতি বছরের ন্যয় এবারও জাতীয় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করে। গত ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ইং শনিবার অটোয়াস্থ একটি কমিউনিটি হলে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন কানাডার নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার মিজানুর রহমান এবং অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ হাই কমিশন অটোয়ার প্রথম সচিব (বাণিজ্যিক) দেওয়ান মাহমুদুল হক। উল্লেখ্য ইতি পূর্বেও হাইকমিশন সকল জাতয়ি দিবস সমূহ যথাযথ মর্যাদা ও শ্রদ্ধার সাথে পালন করে আসছে তবে বর্তমানে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এই প্রথম কোন বিতর্কিত ব্যক্তি হাইকমিশনের সরকারী অনুষ্ঠানে আমন্ত্রি হয় এবং সকল প্রথা ভেঙ্গে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। যা নিয়ে হাই কমিশনের কয়েকজন কর্মকর্তা ও উপস্থিত ব্যক্তি বর্গ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিস্তার করে। উল্লেখ্য, জিয়াউর রহমানের আস্তা ভাজসন এ্যাটাসে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সহযোগী উইং কমান্ডার (অব:) কাউসার আহমেদ, ১৯৮২ সালে সপরিবারে কানাডায় পারি দেন। কানাডায় এসে তিনি স্থানীয় বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন এবং বিএনপিকে সংগঠিত করে। তার দাপটে বিগত বিএনপি আমলে আওয়ামী লীগের লোকজন ততষ্ঠ ছিল। উক্ত সময়ে তারা হাই কমিশনকে বিএনপির অফিস এবং বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রক্ষার কেন্দ্রস্থলে পরিনত করে। খুনি নূর চৌধুরীর আস্থাভজন ও তহবিল সরবরাহকারী এই কাউসার গত সাত আট বছর লোক চক্ষুর অন্তরালে ছিলেন। কিন্তু বর্তমানে হাই কমিশনার যোগদানের পর এবং হাই কমিশনের ভিতরে তার নিজস্ব ললোক থাকার ফলে তিনি পুনরায় হাই কমিশনে জায়গা করে নেন। জানা যায় ছাত্র জীবনে ছাত্র শিবিরের আদর্শপুষ্ট হাই কমিশনের প্রথম সচিব দেওয়ান মাহমুদুল হকের মাধ্যমে তিনি হাই কমিশনারের সাথে ইতোমধ্যেই দুই তিন বার মিটিং ও করেন। অতন্ত্য স্মার্ট এই কাউসার হাই কমিশন থেকে শুধু এই অনুষ্ঠানের আমন্ত্রন গ্রহণ করেননি বরং হাই কমিশনার ছাড়া তিনিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা কদেন। তার এই বক্তৃতাকে ভূতের মুখে রাম নাম উল্লেখ করে এ আওয়ামী লীগ নেতা বলেন ১৬ কোটি বাঙ্গালির মধ্যে বর্তমানে ১৭ কোটি আওয়ামী লীগার কথাটা যথার্থ, তিনি আরও বলেন যে, ব্যক্তি কথায় কথায় বঙ্গবন্ধু এবং বর্তশানে প্রধানমন্ত্রীকে গালিগালাজ করে তিনি কি ভাবে হাই কমিশনারের পাশে বসে বোধগম্য নয়। উল্লেখ্য, উক্ত অনুষ্ঠানে অটোয়া আওয়ামী লীগ এর সভাপতি উপস্থিত থাকা সত্ত্বেও তাকে মঞ্চে উঠতে না দিয়ে হাই কমিশন কাউসার কে দিয়ে বক্তৃতা করায়। জানা যায় এই কাউসার খুনি নূর চৌধুরীকে কানাডায় স্থায়ী ভাবে রাখার জন্য এবং দেশে ফেরৎ না পাঠানোর জন্য কানাডার বর্তমান সরকারের সাথে লবিষ্ঠ হিসেবে কাজ করছে। তিনিই খুনি নূর চৌধুরী টরেন্টতে বাড়ী কেনার বিষয়ে সহযোগীতা করেন এবং নূর চৌধুরীর আইনজীবীর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপন করেন।

জাতীয় অনুষ্ঠানে কাউসারের আমন্ত্রন এবং বক্তৃতা দেয়ার বিষয়ে অনুষ্ঠানের পরিচালনাকারী প্রথম সচিব মাহমুদের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন হাই কমিশনার ও মিনিষ্টার নাইম উদ্দিনের নির্দেশনায় তিনি অনুষ্ঠান পরিচালনা করেছেন এবং তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী তিনি কাউসারকে বক্তৃতার জন্য আমন্ত্রন জানান। উল্লেখ্য, বর্তমান হাই কমিশনার গত সেপ্টেম্বরে প্রধান মন্ত্রীর কানাডা সফরের সময়ও আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের সাথে অসহযোগীতা করে, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রধান মন্ত্রীকে সমবর্ধনা দেওয়ার সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করে প্রধানমন্ত্রী যে হোটেলে ছিলেন সেই হোটেলের বল রুমও ভাড়া করা হয়। কিন্তু দেওয়ান মাহমুদের পরামর্শে নিরাপত্তার অযুহাতে হাই কমিশনার উক্ত হোটেলের বল রুম বুকিং বাতিল করে দেন, যার ফলে কানাডা আওয়ামী লীগকে অনেক সমস্যায় পরতে হয়। পরবর্তীতে কানাডা আওয়ামী লীগ অধিক ডলার খরচ করে অনত্র হল ভাড়া করে সর্ম্বধনা অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন। শুধু তাই নয় হাই কমিশন প্রধানমন্ত্রীর কোন অনুষ্ঠানে আওয়ামী লেিগর নেতা কর্মীদের দাওয়াত বা সম্পৃক্ত করা হয়নি, অথচ জাতীয় অনুষ্ঠানে তারা খুনির সহযোগীকে আমন্ত্রন ও বক্তৃতার ব্যবস্থা করেন। এই বিষয়ে বর্তমানে ঢাকা অবস্থানরত কানাডা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহমুদ মিয়ার ও সাধারন সম্পাদক আজিজুর রহমান প্রিন্সের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা ক্ষোভে ফেটে পরেন এবং বিষয়টি উচ্চ পর্যায়ে অবহিত করবে বলে জানান সেই সাথে এই হাই কমিশনারের সময়ে হাই কমিশনের অনুষ্ঠান বর্জনের কথা জানান।

মহান একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে জাতীয় কবিতা মঞ্চ,আরব আমিরাত শাখা।
                                  
আরব আমিরাত প্রতিনিধি :
 
আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী আমি কি ভুলিতে পারি … সকল প্রবাসীদের কন্ঠে এই সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশীরা তাদের সন্তান,  শিশু  কিশোরদের কে সাথে নিয়ে একেক করে বীর  শহীদদের   ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
আরব আমিরাতে মহান একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে জাতীয় কবিতা মঞ্চ,আরব আমিরাত শাখার   আয়োজনে শহীদ মিনারে লাখো শহীদের   ত্যাগকে উজ্জিবত করা হয়। রাজনৈতিক,সামাজিক,সাংকৃতিক ও বিভিন্ন আঞ্চলিক কমিটির নেতৃবৃন্দদের সার্বিক সহযোগিতায় মহান একুশে ফেব্রুয়ারীর সুন্দর শৃঙ্খলা ও প্রবাসীদের উপস্থিতিতে সকাল ১০ টায় স্থানীয় সময় আবুধাবীর   অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুস্পস্তর্পক অর্পণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
জাতীয় কবিতা মঞ্চ,আরব আমিরাত শাখার সভাপতি কবি মুহাম্মদ সভাপতিত্বে, সহ সভাপতি কবি ওবাইদুল হক এর পরিচালনায় একুশের অনুষ্ঠানের শুরুতে সমবেত জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়।রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইরমান ও বিভিন্ন অঙ্গ- সংগঠন বক্তব্য প্রদান করেন।   ভাষা আন্দোলনে নিহত সকল ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করে  অস্থায়ী শহীদ  মিনারে। পরে পুস্পস্তর্পক অর্পণ করেন জাতীয় কবিতা মঞ্চ,আরব আমিরাত শাখার প্রতিনিধি দল।
চট্রগ্রামের মেয়র আলহাজ্ব আ,জ,ম নাছিরের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও কবি ওবাইদুল হকের নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন।
                                  
আরব-আমিরাত প্রতিনিধি :
 
মাননীয় মেয়র আলহাজ আ.জ.ম নাছির উদ্দীনের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করছেন জাতীয় কবিতা মঞ্চ সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার  তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল।আবুধাবিস্থ ইন্টার কন্টিনেন্টাল হোটেল এ সাক্ষাৎ অনুষ্টিত হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আস্হাভাজন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন  চ,সি,ক মাননীয় মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগ The Raising Sun of Chittagong & Great Leader of Chittagong Mohanogor Awami League  সাধারন সম্পাদক জননেতা আ,জ,ম নাসির উদ্দিন মহোদয় কে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাত এর উপদেষ্টা ডাঃ শেখ শামসুর রহমান সভাপতি কবি মুহাম্মদ মুসা এবং সহ সভাপতি কবি ওবাইদুল হক। মাননীয় মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে ছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় সভাপতি জনাব ইফতেখার হোসেন বাবুল প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু সভাপতি এস এম রফিকুল ইসলাম। 
 প্রবাসী কবি সাহিত্যিকদের কবিতা সংকলন  লাল সবুজের পতাকা কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা এবং জাতীয় কবিতা মঞ্চের সৃজনশীল সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চার বিশদ চিত্র তুলে ধরা হয়। এ সময় মাননীয় মেয়র প্রবাসে সাহিত্য ও সংস্কৃতি চর্চা প্রসার ও প্রচারে অগ্রগামী ভূমিকা পালন করায় কবিতা মঞ্চের সকল সদস্যবৃন্ধ কে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। 
 সাফল্যের অপর নাম আ.জ.ম নাছির মুক্তিযুদ্বের স্বপক্ষের রাজনীতিবিদ, চট্টগ্রামের প্রাণ পুরুষ-যিনি ইতিমধ্যে তার যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখেছেন। চট্টগ্রামকে একটি পরিকল্পিত আধুনিক শহর নির্মানের লক্ষে ইতিমধ্যে পরিকল্পিত ভাবে কাজ শুরু করেছেন তিনি চট্টলাবাসির জন্য সেবক হিসেবে কাজ করছেন  নিপীড়িত-নির্যাতিত-নিগৃহীত বাংলার মানুষের আশার প্রদীপ সঞ্চার করেছেন।
 একজন সফল সংগঠক একজন নিঃস্বার্থ সমাজসেবী ও জন দরদী  ব্যাতিক্রমী মানুষ অপার সম্বাবনাময় নেতা তৃনমূল জাতীয় রাজনীতিতে একটি পরিচিত নাম  আ.জ.ম নাছির উদ্দিন,। যে জাতী গুণীজনদের সমাদরে সাড়া দিতে ব্যর্থ হয় সেই জাতী হতাশার অন্ধকারে আলোর পথ খুঁজে পায় না । মানুষের ব্যক্তিত্ব যখন অগণিত মানুষ কে মুগ্ধ করে সেই মানুষ টি অন্যদের কাছে আদর্শ হয়ে ওঠেন  সততা কর্ম গুনে একজন মানুষ হয়ে উঠেন একজন মহান নেতা বা পথ প্রদর্শক।
 মাননীয় মেয়র আ.জ.ম নাছির
উদ্দিন  বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী আদর্শ বাদী ও স্বপ্নদ্রষ্টা শিক্ষা সমাজ গঠনে সৃজনশীল সমাজহিতকর দেশ গড়ার প্রত্যয়ের ব্যাপ্তি  সমুজ্জ্বল। .. ক‌ন্ঠে তোমার আগুন ঝ‌রে...আগুন ঝ‌রে দৃষ্ট‌ি‌তে, লড়াই তু‌মি চা‌লি‌য়ে যাও নব-বাংলার সৃ‌ষ্টি‌তে"" আসুন আমাদের চট্টগ্রামকে সাজাতে মাননীয় মেয়র কে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দিই।
 
 অন্যায়ের কাছে নত নাহি কর শির, 
ভয়ে কাঁপে কাপুরুষ লড়ে যায় বীর
 
সদা হাস্যেউজ্জ্বল অসাধারণ গুণের অধিকারী মানবতাবাদী জনপরায়ন মানুষটির প্রতি রইলো আমাদের কবিতা মঞ্চের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা। কবি ওবাইদুল হক এর কাব্য গ্রন্থ ভুলিনি মাতৃভূমি বইয়ের মোড়ক উম্মোচন এর মধ্যদিয়ে সাক্ষাত পরিসমাপ্তি হয়,
চট্রগ্রামের মেয়র আ,জ,ম নাছিরের আবুধাবীর বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন।
                                  

ওবাইদুল হক ,আরব-আমিরাত প্রতিনিধি : 

রাষ্ট্রদূত ডা ইমরানের আমন্ত্রণে আবুধাবীর  দূতাবাস পরিদর্শন করেন চট্রগ্রামের মেয়র আ,জ,ম নাছির। দূতাবাসের বিভিন্ন কার্যক্রম দেখে বেশ সন্তুষ্ট হন মেয়র।
তবে আরো কিছু জনবল দরকার মনে করেন তিনি। বিশেষ করে দূর দূরান্ত থেকে আসা সাধারণ মানুষ গুলোর ভোগান্তি যেন না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখার জন্য   রাষ্ট্রদূতকে অবিহিত করেন। সে সময় উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের সম্মানিত সভাপতি জনাব আলহাজ্ব ইফতেখার হোসেন বাবুল। পরে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন চট্রগ্রাম সিটি মেয়র আ,জ,ম নাছির।
তবে আরব-আমিরাতে অবস্থানরত প্রবাসীরা তাকিয়ে আছে এদেশের কূঠনৈতিকের মাধ্যেমে বন্ধ ভিসা কিভাবে চালু করা যায়।সে সম্পর্কে মেয়র জানান সরকার সর্বোত্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরো জানান এখানে আরব-আমিরাতের  আইনকে সম্মান করে চলতে হবে। কোন রকম অনৈতিক অপরাধ মূলক কাজে লিপ্ত না হবার অহ্বান জানান মেয়র। সম্প্রতি মেয়র সপ্তাহ সফরে আরব-আমিরাতে অবস্থান করছেন।
ইয়েমেনের সীমান্ত ৭ বাংলাদেশী শ্রমিকের উদ্ধার করেছেন কনস্যুলেট জেদ্দা
                                  

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় - সৌদি আরব প্রতিনিধি :

সৌদি আরবের সাথে ইয়ামেনের হাউথি বিদ্রোহীদের দমনে চলমান সংঘর্ষে, ইয়েমেনে কর্মরত বাংলাদেশী শ্রমিকদের অনেকে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। ইয়েমেনের রাজধানী সানা থেকে ১৫ দিন আগে পালিয়ে সৌদি আরবের সীমান্তে এসে আশ্রয় নিয়েছেন ৭ বাংলাদেশী শ্রমিক। তারা হলেন মোহাম্মদ মাহবুবুল্লাহ, রাশিদ মিয়া, জায়নাল আবেদীন, মোহাম্মদ সোলাইমান, মুফিদুল ইসলাম, নূরুল ইসলাম ও শফিউল আলম।

দুই সপ্তাহ আগে তারা সানা থেকে পালিয়ে আসতে পারলেও, সৌদি আরবে প্রবেশের কোন বৈধ পাস না থাকায় তারা দেশেও ফিরতে পারছেন না। বর্তমানে তরা সৌদিআরবের নাজরান প্রদেশে শুরুরা অঞ্চলে আল ওয়াদিয়া মান পুজা সীমান্তে বাংলাদেশে ফেরত জাওয়ার অপেক্ষায় আছেন। 

সৌদিআরবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যেমে জানতে পেরে বাংলাদেশ কনস্যুলেটের ভারপ্রাপ্ত কনসাল জেনারেল ড. নজরুল ইসলামের নির্দেশে কনসাল আজিজুর রহমান ও কনস্যুলেটের আইন সহকারী মোহাম্মদ মুমিনুল ইসলাম উক্ত এলাকায় গিয়ে তাদের উদ্ধার করে এবং তাদের সাথে সাথে থাকা কাগজ পত্র যাচাই বাছাই করে বাংলাদেশী নাগরিক বলে চিহ্নিত করেন। তাদের দ্রুত বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর লক্ষ্যে সৌদিআরবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়/ যোওয়াতের সাথে যোগাযোগ করে ট্রানজিট ভিসা ইসো করে ২/৩ দিনের মধ্যেই দেশে ফেরত পাঠানো সম্ভব বলে মনে করেন কনসাল আজিজুর রহমান।

উল্লেখ্য পর্যন্ত বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল জেদ্দার সহয়তাই ইয়েমেনের সীমান্ত থেকে দুইশত বাংলাদেশী শ্রমিকদের দেশে ফেরত পাঠিয়েছেন বলে জানিয়েছেন কনস্যুলেটের কনসাল আজিজুর রহমান।
সৌদি আরব প্রবাসী শাহরাস্তি ফোরামের উদ্যোগে রুবি ইসলামের শোক সভা অনুষ্ঠিত
                                  

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় – সৌদি আরব প্রতিনিধি  :

সৌদি আরব প্রবাসী শাহরাস্তি ফোরামের উদ্যোগে চাঁদপুর ৫- [হাজীগঞ্জ শাহরাস্তি] নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য মুক্তিযুদ্ধের ১ নং সেক্টর কমান্ডার সাবেক সফল  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর [অবঃ] রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এর সহধর্মিণী রুবি ইসলামের শোক সভা ও দোয়া মাহফিল স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

 

শুরুতেই বাংলাদেশ থেকে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন শাহরাস্তি পৈীর মেয়র হাজী মোঃ আবদুল লতিফ ।

 

 শাহরাস্তি ফোরামের প্রতিষ্ঠীত সভাপতি সাংবাদিক ও নাট্যকার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়ের সভাপতিত্বে – সহ সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন লাবলুর সঞ্চালনায়

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন – সাংবাদিক মোঃ ইউসুফ খান ।

 

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন – মোঃ ফারুক হোসেন , এইচ,এম আলমগির হোসেন , মোঃ শরীফ হোসেন , শহীদ উল্লাহ্‌ জিন্না , নিজাম উদ্দিন জন্টু ,মোঃ  মনিরুল ইসলাম , মহসিন খান ,মোতালেব হোসেন, বাদল মোল্লা ,মাজহারুল ইসলাম রুবেল,    আবদুল আহাদ নয়ন ,  সুমন আহমেদ খান ,জয়নাল আবেদিন,   সাইফুল্লাহ নাহিদ শাহ্‌ , হাজী  জসিম উদ্দিন, মহসিন মিয়াজি ,এ,কে আযাদ লিটন, সাইফুল ইসলাম,   সহ প্রবাসী শাহরাস্তির ফোরামের বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন ।  

মক্কা আওয়ামী পরিষদের বিজয় দিবস অনুষ্ঠান
                                  
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়, সৌদি আরব প্রতিনিধি:  
 
মক্কা আওয়ামী পরিষদ কতৃক আয়োজিত মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে আমিনুল ইসলাম আমিন বলেন ......... 
 
রতজনীতি মানুষের জন্য। যদি রাজনীতিবিদদের কাছ থেকে কোন সাহায্য সহযোগিতা না পায় তবে মানুষ যাবে কোথায়। 
আজ বঙ্গবন্ধু কেন এত বড় রাজনীতিবিদ হতে পেরেছেন। কারন তিনি মানুষের কথা শুনতেন। মানুষের পাশে থাকতেন। রাজনীতি যারা করে, তাদের মনে রাখতে হবে, রাজনীতি মানুষের জন্য। মানুষ যাতে ভাল থাকে সে ব্যবস্থা করতে হবে। টাকার জন্য রাজনীতি নয় আর্দশের জন্য রাজনীতি করি ।
 
আমিন আরও  বলেন, -  জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল ধেমে রুপান্তরিত হয়েছে। দেশব্যাপী যখন উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে তখনই দেশকে অকার্যকর করতে জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টি করে মানুষ হত্যা করছে। এদের দেশ থেকে প্রতিহত করতে হবে।
 
জঙ্গিবাদ নির্মুলে সকলকে আজ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। কারন সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ এদেশ থেকে চিরতরে নির্মুল করতে হবে। ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলাম কখনো নিরহ মানুষকে আঘাত করা বা অত্যাচার করা সমর্থন করে না। ধর্মকে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে আজ একজন মুসলমান আরেকজন মুসলমানকে আল্লাহর ইবাদতে ঈদগাহ ও মসজিদে হামলা করছে। আজ আমাদের এদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে। কোনভাবেই সহিংসতাকে ইসলাম সমর্থন করেনা। 
 
মক্কা আওয়ামী পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডাঃ মোস্তাফা তৌফিক এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তাফার সঞ্চালনায় অনুষ্টানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, প্রধান বক্তা ছিলেন চট্রগ্রাম দক্ষিন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মফিজুর রহমান মফিজ।
 
এতে বক্তব্য রাখেন সাইফুর রহমান সভাপতি বঙ্গবন্ধু স্মৃতি পরিষদ মক্কা, সাজ্জাদুল ইসলাম দিপু সাধারন সম্পাদক আওয়ামী পরিষদ জেদ্দা, কাজী নওফেল আহমেদ, হারুনু খান সভাপতি মক্কা আওমী ফাউন্ডেশন, ওয়াজিউল্লাহ, সোহেল রানা, মুমিনুল হক, আজিজুর রহমান, আবু তৈয়ব, মাষ্টার সেলিম, সাইফুর রহমান ও সেলিম আহমেদ প্রমুখ।
 
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান প্রধান বক্তার বক্তব্যে বলেন, হরতাল অবরোধের নামে নৈরাজ্য চালিয়েছে তার জন্য জামায়াত শিবিরকে বাংলাদেশের মাটি থেকে বিতাড়িত করা হবে। অতীতে তারা ধর্মের নাম ভেঙে বাংলাদেশের মানুষকে অনেক ধোঁকা দিয়েছে। মানুষের সাথে বারবার প্রতারণা করে গেছে। ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পুরো দেশটা জুড়ে নৃশংস তাণ্ডব চালিয়েছে। তাদের ভন্ডামি সম্পর্কে মানুষ এখন বুঝে গেছে। দেশের মানুষের কাছে জামায়াত শিবির এখন ইসলামের শত্রু এবং সন্ত্রাসী দল হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি এখন অনেক বেশি সংগঠিত।
রিয়াদ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
                                  
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয় - সৌদি আরব প্রতিনিধি :
 
রিয়াদ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা 
ও সাংসাক্রিতিক সন্ধ্যা স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছে  । 
 
অনুষ্ঠানের শুরুতেই মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও  শিশুদের মধ্যে   কেরাত প্রতিযোগিতা , যেমন খুশি সাজো , চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা , রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় এবং বিজয়িদের মাঝে পুরুস্কার বিতরণ করা হয়েছে । 
 
জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবদুর রহমান চৈীধুরির সভাপতিত্বে - নুরুজ্জামান সুমনের সঞ্চালনায় 
 
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন - বাংলাদেশ পণ্য আমদানি রপ্তানি কারক সমিতির সভাপতি মোঃ কাপ্তান হোসেন । 
 
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন -  বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক  মোঃ আবদুস সালাম , রিয়াদ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি  গোলাম মহিউদিন , রিয়াদ মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক  মোঃ ফারুক হোসেন ,রিয়াদ সিলেট ভিবাগ পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা মোঃ  এরশাদ আলী , সভাপতি মোঃ  আবদুল আজিজ মাসুক ,ব্যাবসায়ি মোঃ সাইফুল ইসলাম , লেখক মোঃ শাহজান চঞ্চল , আলতাফ হোসেন বাবুল , মাহতাব উদ্দিন , ইঞ্জিনিয়ার রোকন ইবনে ফয়েজী  , মোঃ নাজিম উদ্দিন সহ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য ও প্রবাসী বাংলাদেশীরা উপস্থিত ছিলেন ।
মহান বিজয় দিবস উদযাপন ও সাহিত্য সম্মেলন ২০১৬
                                  
আরব-আমিরাত প্রতিনিধি :
সমৃদ্ধশীল কাব্য সৃষ্টির আলোয় আমাদের সমাজ হোক উজ্জ্বল ও চির উন্নত, এই প্রত্যয় নিয়ে উদযাপিত হলো- জাতীয় কবিতা মঞ্চ  কর্তৃক, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে, আল আইন কিনারা রেস্টুরেন্ট এ- আয়োজিত মহান_বিজয়_দিবস_ও_সাহিত্য_সম্মেলন_২০১৬,
 
এই মহতী  অনুষ্টানে সভাপতি  হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় কবিতা মঞ্চ, সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার সম্মানিত সভাপতি, জনাব কবি মুহাম্মদ মুসা সাহেব,কবি ও সাংবাদিক মোহাম্মদ মনির উদ্দিন মান্না পরিচালনা, 
শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন সহ-সভাপতি  কবি ও সাহিত্যিক ওবাইদুল হক, 
 
 প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  ছিলেন বাংলাদেশ সমিতির, সংযুক্ত আরব আমিরাত এর সম্মানিত সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন,
 উদ্বোধক জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাত শাখার প্রধান উপদেষ্টা বিশিষ্ট শিল্পপতি সমাজ সেবক শিক্ষানুরাগী মাজহার উল্লাহ্‌ মিয়া, প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত  ছিলেন বাংলাদেশ সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম তালুকদার,কবি মনসুর আলী, কবি জানে আলম ,মাই টিভি প্রতিনিধি সিরাজুল হক, বিশিষ্ট সমাজ সেবক জসিম উদ্দিন, ও , কবি মির্জা মোহাম্মদ আলী,কবি সাইফুল তালুকদার,সিরাজদ্দৈালা মামুন, কবি আরিফ ইসলাম,মোহাম্মদ  সাইফুল আলম সাইফ, প্রকৌশলী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, এম. এ.খায়ের নিজামী, সহ প্রবাসের কবি সাহিত্যিক লেখক সাংবাদিক ও সংগঠক ব্যাক্তিত্ব বৃন্ধ। 
প্রথম পর্বে মোমবাতি জ্বেলে শহীদদের প্রতি সম্মান জানানো হয়। এর পর জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে অনুষ্টানের আনুষ্টানিকতা শুরু করেন মাজহরুল্লাহ্ মিয়া।
বক্তরা প্রবাসে সাহিত্যকে আরো এগিয়ে নেবার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এত পৃথক পৃথক বক্তব্যে বক্তারা জাতীয় কবিতা মঞ্চ এর সামনে স্বপ্ন পথ দিক নির্দেশনা দেন। সংযুগক্ত আরব -আমিরাত এর বাংলাদেশ সমিতির প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব-আমিরাত শাখা আমিরাতে বৈধ করণে যে সকল সাহায্য সহযোগিতা দরকার সবই তিনি চেষ্টা করবেন। যাতে সামনের দিনে কোন অনুষ্টান করতে হলে যাতে আইনি প্রক্রিয়ার কোন সমস্যা না হয়। 
তাঁর বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়ে জাতীয় কবিতা মঞ্চ এর সভাপতি কবি মুসা,সহ-সভাপতি ওবাইদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মনির মান্না, তৎক্ষনাত তাকে স্বাগত জানান।
 
এর পর আমিরাতের গুণী সম্মাননায় 
 সেরা কবি,সেরা গায়ক,সেরা টিভি রিপোর্টার, সেরা আবৃত্তিকারদের এ সম্মাননা দেয়া হয়।
 
অনুষ্টান চলে রাত ২ টা পর্যন্ত পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্টান পরিবেশন করেন আমিরাতে সাংস্কৃতিক দল।
বিজয় দিবস উপলক্ষে যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা
                                  

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি:

যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে আজ দুপুরে লন্ডনরোডস্থ শেফিল্ডের হাইফিল্ড টিএনটি চার্জ কোমিউনিটি সেন্টারে বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এম মোহিদ আলী মিঠুর সভাপতিত্বে ও যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ খালেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন শেফিল্ড আওয়ামী লীগ নেতা খলকু মিয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন Sheffile City Load Mayor Counsellor Denise Fox,

প্রধান অতিথির বক্তব্যে  Counsellor Denise Fox, বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের মধ্যে উন্নয়নশীল একটি দেশ।। বাঙ্গালী জাতি ১৯৭১ সালে পাকিস্থানের বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধ করে ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে দেশকে স্বাধীন করে। বিশ্ব ইতিহাসে সাহসী জাতি হিসেবে পরিচিতি লাভের মাধ্যমে বিশ্ব মানচিত্রে একটি স্বাধীন জাতি হিসেবে স্থান লাভ করে। এ ধরণের অর্জন বিশ্ব ইতিহাসে বিরল। যা কেবল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঠিক দিকনির্দেশনার কারণেই সম্ভব হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি, বঙ্গবন্ধু যে ভাবে দক্ষ নেতৃত্বের মাধ্যমে বাঙ্গালি জাতিকে স্বাধীন একটি দেশ উপহার দিয়েছেন ঠিক তেমনি ভাবে বঙ্গবন্ধু কন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে একটি রোল মডেল দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে।

সভাপতির বক্তব্যে এম মোহিদ আলী মিঠু বলেন, আমাদের মুখেই শুধু মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে কথা বললে হবে না, বরং নিজেদের মধ্যে চেতনাকে লালন করতে হবে। আমরা মুখে সাম্যের কথা বলি, সমাজতন্ত্রের কথা বলি, কিন্তু আমাদের চিন্তা করতে হবে যে, স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর আমরা কতটুকু এগিয়েছি। আমরা এখনও সাম্প্রদায়িকতা, সন্ত্রাসবাদ থেকে বের হতে পারিনি। জীবনকে সঠিক ও সুন্দর ভাবে ধারণ করার জন্য আমাদের এবং আমদের আগামী প্রজন্মকে সাম্প্রদায়িকতা ও সন্ত্রাসবাদ থেকে বেড়িয়ে এসে মুক্তিযোদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। এজন্য শুধু উচ্চশিক্ষা নয় বরং প্রাথমিক স্তর থেকেই এ বিষয়ে পাঠদান করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে যথাযথভাবে গবেষণার অভাবেই অনেক যুদ্ধাপরাধীরা এখনও অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে। যদিও বঙ্গবন্ধু কন্য জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর অনেক যুদ্ধপরাধীদের উপযুক্ত স্বাস্তির আওতায় আনা হয়েছে। দেশের সার্বিক উন্নয়নের সাথে সাথে সকল রাজাকারদের সঠিক স্বাস্তির আওতায় এনে আমাদের বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে।

 

এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, শেফিল্ড আওয়ামীলীগ নেতা, হাজী ওয়াহীদ আলী, মতিউর রহমান শাহীন, এম ইব্রাহীম আলী, এম আহনাম আলী, সুফিয়ান আহমদ চৌধুরী, গউস আলী, কলকু মিয়া, , আব্দুর রশিদ, আব্দুর মতিন, জাহিদুল ইসলাম, চ্যানেল এস এর রিপোর্টার আহমদ হোসাইন হেলালসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

ফিদেল ক্যাস্ত্রোর জীবন-কর্মকে বাংলাদেশ স্মরণ করবে
                                  
অনলাইন ডেস্ক :
নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে কিউবার সাবেক প্রেসিডেন্ট ফিদেল কাস্ত্রোর স্মরণসভায় বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, ক্যাস্ত্রো শুধুমাত্র কিউবাকেই উদ্বুদ্ধ করেননি, তিনি অনেক উন্নয়নশীল দেশকে দারিদ্র্য, অসাম্য ও অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করে পুনরুত্থানে অনুপ্রাণিত করেছেন।
 
স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে অনু্িষ্ঠত এই স্মরণসভায় রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ১৯৭৩ সালে আলজিয়ার্সে অনুষ্ঠিত ন্যাম সম্মেলনের সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে ক্যাস্ত্রোর প্রথম সাক্ষাতের ঐতিহাসিক স্মৃতির পূনরুল্লেখ করেন। 
 
এ প্রসঙ্গে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, সেই সাক্ষাতের সময় এই দুই মহান নেতার সমসাময়িক বৈশ্বিক ঘটনা নিয়ে আলোচনা করেছিলেন। তারা এমন একটি শান্তিময় বিশ্বের স্বপ্ন দেখেছিলেন যেখানে দারিদ্র্য, সংঘাত ও কোনো ধরনের অবিচার থাকবে না। 
 
মাসুদ বিন মোমেন আরো উল্লেখ করেন, সাক্ষাৎ শেষে কমান্ডার ক্যাস্ত্রো বঙ্গবন্ধুকে জড়িয়ে ধরে বলেছিলেন, ‘আমি হিমালয় দেখিনি। শেখ মুজিবকে দেখলাম। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে মানুষটি হিমালয় সমতুল্য। তাকে দেখে আমি হিমালয় দেখার অভিজ্ঞতা অর্জন করলাম।
 
রাষ্ট্রদূত বলেন, ফিদেল ক্যাস্ত্রোর আজন্ম বাসনা ছিল ন্যায় ও সাম্যভিত্তিক একটি বিশ্বব্যবস্থা গড়ে তোলা। তিনি আধুনিক কিউবার স্থপতি, ন্যামের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং অসহায় মানুষের কণ্ঠস্বর হিসাবে আজীবন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এই মহান ব্যক্তিত্বের জীবন ও কর্মকে সবসময় স্মরণ করবে। 
 
বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের প্রেস উইং জানায়, বিকালে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে ‘সংঘাতময় পরিস্থিতিতে মানব পাচার’ বিষয়ক উচ্চপর্যায়ের একটি উন্মুক্ত বিতর্কে বক্তব্য দেন। স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজয়-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সভায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে একটি নতুন ও পূর্নাঙ্গ রেজুলেশন গ্রহণ করা হয়।
 
রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন মানব পাচারের বৈশ্বিক অভিশাপ প্রতিরোধে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির পূনর্ব্যক্ত করেন। কতিপয় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মানব পাচারের মাধ্যমে তাদের শক্তি, লোকবল ও আর্থিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করছে মর্মে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
 
রাষ্ট্রদূত একটি পূর্নাঙ্গ অভিবাসন ব্যবস্থাপনা এবং নিরাপদ, নিয়মতান্ত্রিক ও নিয়মিত অভিগমনের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। মানবপাচার সংশ্লিষ্ট মামলার বিচার ও দণ্ডপ্রদান ব্যবস্থার উন্নয়নে দেশসমূহের মধ্যে পারস্পরিক আইনগত সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়ে
অনলাইন ডেস্ক :
নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে কিউবার সাবেক প্রেসিডেন্ট ফিদেল কাস্ত্রোর স্মরণসভায় বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, ক্যাস্ত্রো শুধুমাত্র কিউবাকেই উদ্বুদ্ধ করেননি, তিনি অনেক উন্নয়নশীল দেশকে দারিদ্র্য, অসাম্য ও অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করে পুনরুত্থানে অনুপ্রাণিত করেছেন।
 
স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে অনু্িষ্ঠত এই স্মরণসভায় রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন ১৯৭৩ সালে আলজিয়ার্সে অনুষ্ঠিত ন্যাম সম্মেলনের সময় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে ক্যাস্ত্রোর প্রথম সাক্ষাতের ঐতিহাসিক স্মৃতির পূনরুল্লেখ করেন। 
 
এ প্রসঙ্গে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, সেই সাক্ষাতের সময় এই দুই মহান নেতার সমসাময়িক বৈশ্বিক ঘটনা নিয়ে আলোচনা করেছিলেন। তারা এমন একটি শান্তিময় বিশ্বের স্বপ্ন দেখেছিলেন যেখানে দারিদ্র্য, সংঘাত ও কোনো ধরনের অবিচার থাকবে না। 
 
মাসুদ বিন মোমেন আরো উল্লেখ করেন, সাক্ষাৎ শেষে কমান্ডার ক্যাস্ত্রো বঙ্গবন্ধুকে জড়িয়ে ধরে বলেছিলেন, আমি হিমালয় দেখিনি। শেখ মুজিবকে দেখলাম। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে মানুষটি হিমালয় সমতুল্য। তাকে দেখে আমি হিমালয় দেখার অভিজ্ঞতা অর্জন করলাম।
 
রাষ্ট্রদূত বলেন, ফিদেল ক্যাস্ত্রোর আজন্ম বাসনা ছিল ন্যায় ও সাম্যভিত্তিক একটি বিশ্বব্যবস্থা গড়ে তোলা। তিনি আধুনিক কিউবার স্থপতি, ন্যামের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং অসহায় মানুষের কণ্ঠস্বর হিসাবে আজীবন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এই মহান ব্যক্তিত্বের জীবন ও কর্মকে সবসময় স্মরণ করবে। 
 
বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের প্রেস উইং জানায়, বিকালে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে সংঘাতময় পরিস্থিতিতে মানব পাচার বিষয়ক উচ্চপর্যায়ের একটি উন্মুক্ত বিতর্কে বক্তব্য দেন। স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাজয়-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই সভায় সংশ্লিষ্ট বিষয়ে একটি নতুন ও পূর্নাঙ্গ রেজুলেশন গ্রহণ করা হয়।
 
রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন মানব পাচারের বৈশ্বিক অভিশাপ প্রতিরোধে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির পূনর্ব্যক্ত করেন। কতিপয় আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী মানব পাচারের মাধ্যমে তাদের শক্তি, লোকবল ও আর্থিক ক্ষমতা বৃদ্ধি করছে মর্মে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
 
রাষ্ট্রদূত একটি পূর্নাঙ্গ অভিবাসন ব্যবস্থাপনা এবং নিরাপদ, নিয়মতান্ত্রিক ও নিয়মিত অভিগমনের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। মানবপাচার সংশ্লিষ্ট মামলার বিচার ও দণ্ডপ্রদান ব্যবস্থার উন্নয়নে দেশসমূহের মধ্যে পারস্পরিক আইনগত সহযোগিতা বৃদ্ধির বিষয়েও তিনি জোর দেন।
 
সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতিতে মানব পাচার ও সংঘবদ্ধ অপরাধের মাঝে সৃষ্ট অনৈতিক বন্ধন ভেঙ্গে ফেলতে সংশ্লিষ্ট আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক ও জাতীয় সংস্থাসমূহকে এক সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।
ও তিনি জোর দেন।
 
সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতিতে মানব পাচার ও সংঘবদ্ধ অপরাধের মাঝে সৃষ্ট অনৈতিক বন্ধন ভেঙ্গে ফেলতে সংশ্লিষ্ট আন্তর্জাতিক, আঞ্চলিক ও জাতীয় সংস্থাসমূহকে এক সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।
প্রবীণ কবি ও গবেষক খালেদ এয়ারকে সংবর্ধনা দিলেন জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব-আমিরাত শাখা।
                                  

আরব আমিরাত প্রতিনিধি :

জাতীয় কবিতা মঞ্চ  আরব আমিরাত শাখার সম্মানিত  উপদেষ্টা, বিশিষ্ট  লেখক, সাহিত্যিক মোহাম্মদ খালেদ ইয়ার কে বিদায়ী সংবর্ধনা, কবিতা পাঠের  আসর  ও  সমাবেশ,আরব আমিরাত শাখার
উদ্যেগে বিদায়ী সংবর্ধনা দেয়া হয়।

জাতীয় কবিতা মঞ্চও আরব আমিরাত শাখার সভাপতি, বিশিষ্ট কবি ও কলামিস্ট মোহাম্মদ মুসা সভাপতিত্বে এবং কবি  মোহাম্মদ সাখাওয়াত হোসেন বুকলেরর  সঞ্চালনায় এই বিদায়ী সংবর্ধনা  ও কবিতা পাঠ অসর অনুষ্ঠিত হয় ।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন জাতীয় কবিতা মঞ্চের   সহ সভাপতি, কবি ও সাংবাদিক ওবাইদুল হক। বক্তব্যে বলেন, পৃথিবীর একপ্রান্তে বাংলাদেশ,অপর প্রান্তে আরব আমিরাত  বসবাসরত কবি, সাহিত্যিক, লেখক বাঙালিদের সংস্পর্শে এসে মনে হচ্ছে। আমি যেন বাংলাদেশেই ছিলাম। সত্যি আমি কৃতিত্বপূর্ণ মনে করি তার অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রবাসে গুণী বিশিষ্ট  লেখক, সাহিত্যিক মোহাম্মদ খালেদ এয়ার পেয়ে।

আরব আমিরাত রাজধানী আবুধাবী শহরে প্রবাসী বাঙালিদের সাংস্কৃতিক ও সাহিত্য  সংগঠন জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাত শাখার পক্ষে থেকে  লেখক, সাহিত্যিক মোহাম্মদ খালেদ ইয়ার
কে বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদান করেছে।  গত ২৭নভেম্বর রোজ রবিবার আবুধাবীস্থ তৌহিদ রেস্টেুরেন্টে বিদায়ী সংবর্ধনা এ অনুষ্ঠানটি শুরু হয় স্থানীয় সময় সন্ধ্যা রাত ৯ টায়। বিপুলসংখ্যক প্রবাসী বাঙালির উপস্থিতিতে এই বিদায়ী  সংবর্ধনা অনুষ্ঠান পরিণত হয় স্থানীয় বাঙালিদের এক মিলনমেলায়।
তিন ঘণ্টার এই আয়োজনে ছিল রবীন্দ্রসঙ্গীত, নজরুলগীতি, লোকগীতি ও কবিতা পাঠ ।
সংগীত পরিবেশন করেন প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম ও নয়ন।
বিদায়ী সংবর্ধনা টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের   শুভ  উদ্বোধন  করেন  মিরসরাইয়ের কৃতি সন্তান, বাংলাদেশে বিশিষ্ট কবি ও কথা -সাহিত্যিক,হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বাংলাদেশের মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন কাহিনী নিয়ে লিখেছেন দীর্ঘ ৫ শতাধিক পৃষ্ঠার কবিতার গ্রন্থ  ‘ টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম তোমার’ বইয়ে লেখক কাইয়ুম নিজামী।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে কবিকে ফুল দিয়ে মঞ্চে স্বাগত জানান জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব আমিরাত শাখার সাধারণ সম্পাদকও কবি নজরুল সাহিত্য পরিষদ,  আরব আমিরাত শাখা সভাপতি, কবি ও সাংবাদিক মোহাম্মদ মনির উদ্দিন মান্না । স্বাগত বক্তব্যে তিনি বলেন, লেখক, সাহিত্যিক মোহাম্মদ খালেদ ইয়ার  মাটি ও মানুষের কবি, আর্ত-নিপীড়িতের কবি ও লেখক , প্রকৃতি ও ভালোবাসার কবি। তাঁর কবিতা গুরুত্বপূর্ণ বার্তা বহন করে। কবির উপস্থিতি আমাদের সংগঠনের অনুষ্ঠানকে আরো আনন্দমুখর করে তুলেছে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাজহার উল্ল্যাহ মিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন লালন মিয়া তালুকদার, সাহিত্যিক ডাঃ শামসুর রহমান প্রবাসী কবি-সাংবাদিক, কাশফুল সম্পাদক মোহাম্মদ এনামুল হক, সাংবাদিক সিরাজুল হক, জাফর উদ্দিন ভূঞা, কবি জানে আলম জাহাঙ্গীর।
নুরুল আমিন, মোহাম্মদ আরিফ, জাহিদুল ইসলাম প্রমূখ অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি করেন এস, এম, তরিকুল ইসলাম, জানে আলম, কালন মিয়া তালুকদার।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জাতীয় কবিতা মঞ্চের সংযুক্ত আরব আমিরাত শাখার সহ-সভাপতি কবি ও সাংবাদিক ওবাইদুল হক ও  সম্পাদক কবি-সাংবাদিক মনির উদ্দিন মান্না।

প্রবাসী কবি ওবাইদুল হক কে সম্মাননা
                                  

দেশকাল ডেস্ক :

সাপ্তাহিক সোনালী দিন পত্রিকা ও নজরুল চর্চা সংগঠন  অগ্নিবীণার   পক্ষ থেকে প্রবাসী কবি ওবাইদুল হক কে এ সম্মাননা দেয়া হয়। সম্প্রতি কবি সংযুক্ত আরব-আমিরাতে কর্মরত আছেন। তাঁর কষ্টের প্রবাস বইয়ের জন্য কবি এ সম্মাননা পান।
সে জন্য তিনি ধন্যবাদ জানান  কবি ফখরুল হাসান  শাওন ভাইকে তাঁর কষ্টের প্রবাস বইয়ের  নাম প্রস্তাব  করার জন্য। আরো ধন্যবাদ জানান  বিশিষ্ট নজরুল গবেষক অগ্নিবীণার প্রধান সমন্বয়ক কবি এইচ,এম, সিরাজ ভাইকে। কবি  প্রবাসে থাকায় কবির  পক্ষ থেকে সম্মাননা গ্রহন করেন বিশিষ্ট আবৃত্তিকার বদরুল আহসান খান। এক প্রসঙ্গে কবি বলেন,
জীবন চলার পথে অনেক বাঁধা, পছন্দ-অপছন্দ থাকবে...  আসবে প্রতিকূলতা, তার মাঝেই চালিয়ে যেতে হবে আমাদের জীবন তরী... এরই নাম  জীবন সংগ্রাম।  লেখনীর মাঝে নিজেকে জড়িয়ে জীবনের স্বাদ পেয়েছি, পেয়েছি অনেক ভালবাসা।
           লেখার মাঝে নিজেকে খুঁজতে গিয়ে জীবনে
অনেক সখ্যদের পেয়েছি। অনেক গুণী মানুষের সান্নিধ্যে পেয়েছি, যা তাদের ঋীণ কখনো শোধ হবার নয়।
এজন্য কবি সবার কাছে কৃতজ্ঞ।

অনুষ্ঠান এ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  ছিলেন , জনাব শাজাহান খান এম পি ( মাননীয় মন্ত্রী নৌ পরিবহন মন্ত্রালয় ) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ।

সভাপতির আসন গ্রহণ করেন একুশে পদক প্রাপ্ত জাতি সত্ত্বার কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা ।

বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলে বাংলা একাডেমি পদক প্রাপ্ত কবি রেজাউদ্দিন স্টালিন প্রমুখ।


   Page 1 of 7
     প্রবাস
যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের উদ্দ্যেগে স্বাধীনতা দিবস পালিত
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান স্বাধীনতা উদযাপন
.............................................................................................
আরব-আমিরাতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু জন্মদিন পালন
.............................................................................................
বাংলাদেশ হাই কমিশন কানাডার ২১ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠান সর্ষের মধ্যে ভূত সমাচার।
.............................................................................................
মহান একুশে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে জাতীয় কবিতা মঞ্চ,আরব আমিরাত শাখা।
.............................................................................................
চট্রগ্রামের মেয়র আলহাজ্ব আ,জ,ম নাছিরের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত ও কবি ওবাইদুল হকের নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন।
.............................................................................................
চট্রগ্রামের মেয়র আ,জ,ম নাছিরের আবুধাবীর বাংলাদেশ দূতাবাস পরিদর্শন।
.............................................................................................
ইয়েমেনের সীমান্ত ৭ বাংলাদেশী শ্রমিকের উদ্ধার করেছেন কনস্যুলেট জেদ্দা
.............................................................................................
সৌদি আরব প্রবাসী শাহরাস্তি ফোরামের উদ্যোগে রুবি ইসলামের শোক সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
মক্কা আওয়ামী পরিষদের বিজয় দিবস অনুষ্ঠান
.............................................................................................
রিয়াদ জালালাবাদ এ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
মহান বিজয় দিবস উদযাপন ও সাহিত্য সম্মেলন ২০১৬
.............................................................................................
বিজয় দিবস উপলক্ষে যুক্তরাজ্য শেফিল্ড আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা
.............................................................................................
ফিদেল ক্যাস্ত্রোর জীবন-কর্মকে বাংলাদেশ স্মরণ করবে
.............................................................................................
প্রবীণ কবি ও গবেষক খালেদ এয়ারকে সংবর্ধনা দিলেন জাতীয় কবিতা মঞ্চ আরব-আমিরাত শাখা।
.............................................................................................
প্রবাসী কবি ওবাইদুল হক কে সম্মাননা
.............................................................................................
আবুধবীতে যুবলীগের ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
.............................................................................................
বাংলাদেশ কমিনিদাদ এন কাতালোনিয়ার উদ্দ্যোগে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
আদর্শ বন্ধু ফোরাম এর ৮ম বর্ষপূর্তি উদযাপন
.............................................................................................
ইউএইতে আজমান বিএনপির উদ্যোগে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালিত
.............................................................................................
রিয়াদ মহানগর জাতীয় পার্টির উদ্যোগে পিঠা উৎসব
.............................................................................................
রিয়াদ প্রবাসী যুবলীগের পক্ষ থেকে আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কে শুভেচ্ছা
.............................................................................................
দুবাইয়ে বাংলাদেশি যুবক খুন
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে লরিচাপায় ২ বাংলাদেশী নিহত
.............................................................................................
রিয়াদ মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে জেল হত্যা দিবস পালিত
.............................................................................................
আরব-আমিরাতে অনলাইন প্রেসক্লাব গঠনের উদ্দ্যেগ
.............................................................................................
সৌদি আরব রিয়াদে ১ নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
.............................................................................................
অর্থসঙ্কটের কারণে বিদেশে মারা যাওয়া বাংলাদেশীদের লাশ দেশে পাঠাতে পারছে না বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বাংলাদেশ কমিউনিটি
.............................................................................................
সৌদি আরব রিয়াদের দাখেল মদুদে প্রবাসীর হাতে প্রবাসী খুন
.............................................................................................
স্পেইনের বার্সেলোনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক ২০১৬ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
সৌদি আরব আল খারিজে ভবনের ছাদ ধ্বসে বাংলাদেশী দুই নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু
.............................................................................................
আমিরাতে সাহিত্য আড্ডার আসর ও সংগীত পরিবেশন
.............................................................................................
ব্রিটেনে ধর্ষণ মামলায় এক বাংলাদেশী স্পেইনে গ্রেফতার
.............................................................................................
সৌদি আরব সড়ক দুর্ঘটনায় আহত মোস্তাফিজ আর নেই
.............................................................................................
আমিরাতে প্রবাসী তারুণ্যের কন্ঠে জাতীয় সংগীতের শুটিং শুরু
.............................................................................................
সৌদি আরব রিয়াদে কাউন্সেলর প্রাথি আকবর হোসেন চৈীধুরির সমর্থনে কুমিল্লা সদর দক্ষিণে প্রবাসীদের আলোচনা সভা ।
.............................................................................................
আবুধাবীতে মধ্যপ্রাচ্য বঙ্গবন্ধু পরিষদ সমন্বয় কমিটির সাংবাদিক সম্মেলন
.............................................................................................
এবার যুক্তরাজ্যের ছায়ামন্ত্রী হলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রূপা হক
.............................................................................................
আমিরাতে ভিসা খুলার সম্ভাবনা
.............................................................................................
প্রবাসী ডক্টর মোঃ রেজাউল করিম কে সংবর্ধনা
.............................................................................................
করবিনের মন্ত্রিসভায় আরো বড় দায়িত্বে পেলেন টিউলিপ
.............................................................................................
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ বাংলাদেশী নিহত
.............................................................................................
রিয়াদ প্রবাসী কুমিল্লা জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সাথে পূর্বাঞ্চল কেন্দ্রীয় বিএনপির মতবিনিময়
.............................................................................................
সৌদি আরব রিয়াদ আওয়ামী পরিবারের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের রুহের মাগফেরাত কামনারথে পশু কোরবানি
.............................................................................................
সৌদি আরবে যথাযত মর্যাদার সাথে ঈদুল আযহা উদযাপিত
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে জিকায় আক্রান্ত বাংলাদেশির সংখ্যা বেড়ে ১৯
.............................................................................................
নিউইয়র্কে বাংলাদেশি নারীর হত্যাকারী গ্রেফতার
.............................................................................................
মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকর করায় সৌদি আরব আনন্দ উল্লাশ ও মিস্টি বিতরণ
.............................................................................................
সৌদি আরব বি এন পি পশ্চিম অঞ্চলের উদ্যোগে দলের ৩৮ তম প্রতিষ্টা বার্ষিকি উদযাপন
.............................................................................................
রিয়াদে প্রবাসী লেখক ও সাংবাদিক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম হৃদয়কে সংবর্ধনা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
[ সম্পাদক মন্ডলী ]
2, RK Mission Road (5th Floor) Motijheel, Dhaka - 1203.
মোবাইল: ০১৭১৩৫৯২৬৯৬, ০১৯১৮১৯৮৮২৫ ই-মেইল : deshkalbd@gmail.com
   All Right Reserved By www.deshkalbd.com Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]