রবিবার , ১২ নভেম্বর ২০১৭

দর্শক মাতালেন শাহনাজ বেলি

  রবিবার , ১২ নভেম্বর ২০১৭

উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় আয়োজন ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব’। দুই বারের সফল আয়োজনের পর এবারও শুরু হয়েছে সংগীতের এই মহাযজ্ঞের তৃতীয় আসর। আজ এই আসরের শেষ দিন। আজ উৎসবের শেষ দিনে মঞ্চ মাতাবেন-বাংলাদেশের শাহ আলম সরকার এবং আলেয়া বেগম এবং শাহনাজ বেলি, ডেনমার্কের মিকাইল হেমনিতি উইনথার, ইরানের রাস্তাক, ভারতের বাসুদেব দাস বাউল এবং মালির গানের দল তিনারিওয়েন।

সে ধারাবাহিকতায় সন্ধা ৬টার কিছু পর মঞ্চে উঠেন গীতিকার-সুরকার সংগীত শিল্পী শাহ আলম সরকার এবং আলেয়া বেগমের পালা গান।তাদের পরিবেশনার শুরুতে শাহ আলম সরকার গাইলেন‘গান গেয়েছিলেন খাজা সেই দিন’। এর পর মঞ্চে উঠেলেন আলেয়া বেগম। তাদের মন মুগ্ধকর পরিবেশনার পর মঞ্চে উঠেন শাহনাজ বেলি। ‘চাতক স্বভাব না হলে’ গানের মধ্যে দিয়ে শুরু করেন পরিবেশনা। শাহনাজ বেলির দ্বিতীয় পরিবেশনা ছিল ‘আইলায় না আইলায় না রে’ বন্ধু’। এরপর গাইলেন ‘তুমি যাইয়ো না যাইয়ো না বন্ধুরে’। গাইলেন হাছন রাজার‘আগুন লাগাইয়া দিলো কনে’,শাহ আলম করিমের ‘ঝিলমিল ঝিলমিল করে রে ময়ূরপঙ্খী নায়’, লালন সাঁইয়ের ‘প্রেম রসিকা হব কেমনে’,‘গাউসুল আজম বাবা’ছিল শাহনাজ বেলির শেষ পরিবেশনা। তবে পরিবেশনায় মুগ্ধ ছিলেন আর্মি স্টেডিয়ামের উপস্থিত দর্শক।

শাহনাজ বেলী

ফোক গানের পরিচিত শিল্পী শাহনাজ বেলী। কুষ্টিয়ার এ শিল্পীর শুরুটা হয়েছে বাবার সাথে লালনের গান করার মধ্য দিয়ে।১৯৮৯ এ প্রথম ঢাকায় অনুষ্ঠান করতে আসা তার। সেখান থেকে আনসার বাহিনীর অর্কেস্ট্রায় গান শেখার সুযোগ পান তিনি। ৯০’র দশকে ঢাকায় এসে মঞ্চে গেয়ে গেয়ে প্রাথমিক পরিচিতি তৈরি হয় শাহনাজ বেলীর। তার প্রথম অ্যালবাম ‘একবার পাইলে’ প্রকাশিত হয় ২০০৫ সালে। এর পর থেকে এখন পর্যন্ত একক, ডুয়েট, মিশ্র মিলে ১০০’র বেশি অ্যালবামে গান গেয়েছেন তিনি।এছাড়াও কণ্ঠ দিয়েছেন চলচ্চিত্র, নাটক ও বিজ্ঞাপনে।অনেক প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে তিনি শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। 
উল্লেখ্য,‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ২০১৭’-তে এবারে আসরে দেশ ও বিদেশের ১৪০ শিল্পী মঞ্চ মাতাচ্ছেন। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টায় অনুষ্ঠান শুরু হয়ে চলবে রাত দেড়টা পর্যন্ত। ফোক ফেস্টের এবারের আসরে দেশীয় শিল্পী ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ইরান, ব্রাজিল, মালি, তিব্বতসহ বিভিন্ন দেশের শিল্পীরা গান পরিবেশন করছেন।

 বিনোদন থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ