সোমবার , ১৩ নভেম্বর ২০১৭

ঢাকার পাঁচ এলাকায় আগামী ১৯ নভেম্বর রোববার থেকে মাসজুড়ে পাঁচটি স্থানে লক্কড়ঝক্কড় ও লাইসেন্সবিহীন বাসের ওপর মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। এ ছাড়া গুলিস্তান ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় নিয়ে যাওয়া হবে জানালেন দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন।

গতকাল রোববার নগর ভবনের ব্যাংক ফ্লোর সভাকক্ষে ঢাকা দক্ষিণ এলাকায় সেবাদানকারী সংস্থাসমূহের সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর বিষয়টি জানানো হয়। মেয়র জানান, ডিএসসিসি, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সমন্বয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে।

তিনি বলেন, রাজধানীর যানজট অসহনীয় হয়ে উঠেছে। কিন্তু যখন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়, তখন যানজট কম থাকে। ডিএমপি, ডিএসসিসি ও বিআরটিএ দ্রুত সমন্বয় সভা করে ১৯ নভেম্বর থেকে টানা এক মাস মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করবে ডিএসসিসির পাঁচ এলাকায়।

ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম কমিশনার মফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ঢাকায় ৩০০ কোম্পানির প্রায় আট হাজার বাস চলাচল করে। তিনি জানান, এইট টিসি প্রকল্পের মাধ্যমে শহরের বাইরে থেকে গাড়ি ঘুরবে। শহরের মধ্যে গাড়ি ঘুরতে পারবে না।

সাঈদ খোকন বলেন, দেশের দক্ষিণ অঞ্চল থেকে এবং পুরান ঢাকা থেকে নতুন ঢাকায় আসতে হলে ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড পার হয়ে আসতে হয়। ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড অবৈধভাবে চলে আসছে। আর শহরের মাঝে থাকায় যানজট খুব বেশি দেখা দেয়। কারণ সেখানে কোনো শৃঙ্খলা নেই। আগামী ১০ দিনের মধ্যে কমিটি গঠন করে আনন্দবাজার বস্তি এলাকায় ফুলবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ড সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নিতে হবে বলে মেয়র জানান। এ বিষয়ে সিটি করপোরেশন এবং ডিএমপি মিলে কমিটি গঠন করে ডিএমপিকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের নির্দেশ দেন মেয়র।

এ ছাড়া আজিমপুর এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডিএমপি যেন অভিযান পরিচালনা করে এবং সেখানে কোনো বাস যেন থেমে না থাকে, সেদিকে নজর দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। আজিমপুরে বাস শুধু যাত্রী ওঠাবে ও নামাবে-এর বাইরে আর কোনো কাজ করতে পারবে না সে বিষয়ে ডিএমপিকে দায়িত্ব পালনেরও নির্দেশ দেন মেয়র।

সভায় গাবতলী শিকদার মেডিক্যাল থেকে সদরঘাট পর্যন্ত রাস্তা মেরামতে জানুয়ারির ১, ২০১৮ থেকে কাজ শুরু করার সিদ্ধান্ত হয়। অবৈধ রিকশার বিরুদ্ধেও দ্রুত অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত হয়। সভায় খাল উদ্ধারে দ্রুত অভিযান, হকার উচ্ছেদ ও অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতেও সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় ২৪টি এজেন্ডা নিয়ে আলোচনা করা হয়। মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় ২৬টি সেবা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

 জাতীয় থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ