শনিবার , ১৮ নভেম্বর ২০১৭

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে আরও দুটি চামড়াজাত শিল্প নগরী গড়ে তুলবেন। পরিকল্পনাটা মন্দ নয়। পরিকল্পনা থাকা ভালো। আমরা পুরো দেশটাকে একসময় শিল্পনগরীর দেশ হিসেবে গড়ে তুলবো। কারণ, আমাদেরকে ভবিষ্যতে ম্যানুফ্যাকচারিং’র উপরে বেশি জোর দিতে হবে। এটি পৃথিবীর সব দেশই করছে। যেমন: দক্ষিণ পূর্ব এশিয়াতেও তা করছে।

 

তারা শুরু করেছিল, লো স্কিল ম্যানুফ্যাকচারিং দিয়ে। এখন ধীরে ধীরে হাই স্কিল এ পৌঁছে গেছে। দ্বিতীয়তো হলো, এখন সারা পৃথিবীতে পরিবেশসম্মত শিল্পায়ন ছাড়া অন্য শিল্পায়ন করা সম্ভব নয়। সুতরাং আমরা ম্যানুফ্যাকচারিং এ যাব, এট দ্যা সেইম টাইম পরিবেশের যে বিষয়টি সেটার দিকেও নজর রাখতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটাই বলেছেন। সাভারে যে পরিবেশসম্মত চামড়াশিল্প নগরী করা হয়েছে, সেটাতে এখনো হয়তো কিছু টুকিটাকি কাজ বাকি রয়েছে। সেটার দিকেও নজর দিতে হবে। পাশাপাশি নতুন পরিকল্পনাও তো গ্রহণ করতে হবে। তাই প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, শুধু ঢাকার আশেপাশে নয়, শিল্পায়নটা পুরো দেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। বিশেষ করে চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে। তাই নতুনভাবে শিল্পায়ন করতে গেলে, সাভার থেকে শিক্ষা নিতে হবে। সাভারে যদি কোনো অসম্পূর্ণতা থাকে, তাহলে বাকি গুলোতে খেয়াল রাখবো যেন এই ভুলগুলো না হয়।

 

এই পুরো প্রক্রিয়াতে শিল্পের সাথে যারা জড়িত, যেমন-যারা উদ্যোক্তা, যারা ফাইন্যান্সার, যারা অর্থ-দাতা, যারা শ্রমিক, এদের সবাইকে নিয়ে আলোচনা করে এই ধরনের শিল্পায়ন করলে সেটা ভালো হবে। নতুন করে যদি আরও দুটি চামড়াজাত নগরী করা হয়, তাহলে আমাদের দেশের অনেক বেশি বেনিফিট আসবে। কারণ, আমাদের দেশে গার্মেন্টস শিল্পের পরে কিন্তু চামড়া শিল্প। আগে আমাদের চামড়া শিল্প ইডিএফ (এক্সপোর্ড ডেভেলপড ফান্ড) পেত না। শুধু গার্মেন্টস পেতো।

 

আমি কিন্তু সেটা যুক্ত করেছি। শুধু তাই নয়, যারা যারা এক্সপোর্ট করতো সে সবগুলোকে ইডিএফে যুক্ত করেছি। ২০০৯ সালে এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট ফান্ডে যেখানে ২‘শ মিলিয়ন ছিল, সেটাকে আমরা ২.২ বিলিয়ন ডলারে নিয়ে গেছি। সুতরাং আমরা কিন্তু সেন্ট্রাল ব্যাংক থেকে লেদার শিল্পের জন্য নানা রকমের সহায়তা দিয়েছি। আশা করি, সেটা এখনো কন্টিনিউ করবে। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেটা বলেছেন, সেক্ষেত্রে আমার কথা হল, নতুন শিল্প নগরী করার সময় যেন আমরা পরিবেশের বিষয়টা নজরে রাখি।

 সাক্ষাৎকার থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ