বৃহস্পতিবার , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮

মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা প্রধান রেজোয়ানুল হক বলেন, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে বললো, সেটা কোন বিষয় না বড় কথা তারা জাতিসংঘের বৈঠকে সরাসরি রোঙ্গিা সঙ্কটে মিয়ানমারের পক্ষ নিয়েছে।

মিথিলা ফারজানা’র সঞ্চালনায় একাত্তর টেলিভিশনের নিয়মিত অনুষ্ঠান একাত্তর জার্নালে তিনি একথা বলেন। এছাড়া ছিলেন ডিবিসি’র সম্পাদক জায়েদুল হক পিন্টু।

জায়েদুল আহসান পিন্টু বলেন, চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজকে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা সঙ্কটের কারণে বাংলাদেশ এর প্রভাব পড়েছে। তাতে তারা আলোচনার দুই দেশের মধ্যে সংলাপ করে সমস্যা সমাধানে কোন সাহায্য লাগে। চীন তা করতে প্রস্তুত আছে। এতে নিজেদের কূটনৈতিক পারদর্শীতার সাথে আন্তর্জাতিক চাপ আছে। সেগুলো মিলিয়ে চীন চাপ মনে করছে। কতটা মনে করছে সেটা চীনের ব্যাপার। চীনের সাথে মিয়ানমারের অর্থনীতিক সর্ম্পক আছে। কিন্তু আমাদের কেউ বাদ দিতে পারবে না। জাতিসংঘের প্রথম বৈঠকে চীন ভেটো দিয়েছে। আগামী মাসে আবার বৈঠক আছে। তখন চীনের মনোভাব পাল্টেও যেতে পারে। সেজন্য অপেক্ষা করতে। বিষয়টা একটু দীর্ঘতর প্রক্রিয়া পড়ে যাবে। আস্তে আস্তে সবাই বুঝতে পারছে রোহিঙ্গা সঙ্কটের জন্য মিয়ানমারেরই দোষ।

রেজোয়ানুল হক বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কটে চীনের রোলটা হচ্ছে সরাসরি আমাদের দেশের বিরুদ্ধে। আজ চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসেছে। তার কারণ মুখে আমাদের বন্ধু রাষ্ট্র বলে। সেই বন্ধু রাষ্ট্র বলতে আজকে এসে প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করেছে। দেখা করে কি বলেছে তা মুখ্য নয়। মূখ্য হচ্ছে তারা কি করেছে?  আমরা দেখেছি। চীন জাতিসংঘে সরাসরি মিয়ানমারের পক্ষ নিয়েছে।

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ