সোমবার , ২০ নভেম্বর ২০১৭

সাহারা খাতুন : জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে ইতিহাসের অন্যতম দলিল হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউনেস্কো। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের ঐতিহাসিক ইতিহাসকে গ্রহণ করার জন্য, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে সঠিকভাবে মূল্যায়ন করার জন্য ইউনেস্কোকে আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। ইউনেস্কোর এই ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবিষয়টি আনন্দের বলে অভিহিত করেছেন। এই বিশাল অর্জনকে শুধুমাত্র আনন্দ শব্দের মাঝে বেধে ফেলে বিএনপি পূনরায় তাদের চিরাচরিত হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছে।

ইউনেস্কোর দ্বারা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ ইতিহাসের অন্যতম সেরা দলিল হিসাবে স্বীকৃতি পাওয়াটা শুধুমাত্র আনন্দ শব্দটির মাঝে সীমাবদ্ধ থাকতে পারে না। একাত্তরে যে একটি ভাষণের মাধ্যমে সাত কোটি বাঙালি একত্রিত হয়ে স্বাধীনতার জন্য জীবন বাজি রেখে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে মুক্তি ছিনিয়ে এনেছিল, সে ভাষণের ব্যাপকতা বিশাল তাৎপর্য বহন করে। এই স্বীকৃতি বাংলাদেশের ষোল কোটি মানুষের জন্য গর্বের বিষয়।

বিএনপি যদি বাংলাদেশের এই অজর্নকে শুধুমাত্র আনন্দের বলেই খান্ত হয়ে যায়, তাহলে পরিপূর্ণতা আসবে না। যদিও বাংলাদেশের মানুষ বিএনপির কাছে ভালো কিছু আশা করে না। সেক্ষেত্রে বিএনপি যেহেতু আনন্দ শব্দটি ব্যবহার করেছে, তা হলো- ভূতের মুখে রাম নাম। তবে সময় থাকতে তাদেরকে সঠিক পথে রাজনীতি করতে হবে। বাংলাদেশে রাজনীতি করতে হলে বিএনপিকে স্বাধীনতার স্বপক্ষে থাকতে হবে। স্বাধীনতা বিরোধীদের বর্জন করতে হবে।

পরিচিতি : সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

 সাক্ষাৎকার থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ