সোমবার , ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

মো.মনিরুল আলম,কালীগঞ্জ (গাজীপুর)ঃ
এমিকো বাংলাদেশ লিঃ (এবিএল) কোম্পানীর নির্মান কাজ  শুরুর পর থেকে এভাবেই নির্মান সামগ্রী ইট,বালী, খোয়া রাস্তায় ফেলে রাখায় , বিভিন্ন প্রকার গাড়ী ও জনসাধারণের  চলাচলে অনেকটায় বিগ্ন ঘটায়। আর এই জন গুরুত্বপূর্ণ্য রাস্তাটি হলো উপজেলার বাহাদুরশাদী  ইউনিয়নের ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে অবস্থীত। উপজেলা প্রশাসন জানালেন দেখে ব্যবস্থা নিবেন ।      
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার বাহাদুরশাদী  ইউনিয়নের ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে অবস্থীত ন্যাশনাল জুট মিল। ওই মিলটি  চালু হওয়ার পর অনেক নারী-পুরুষের কর্মস্থানের সৃষ্টি হইয়েছিল। তখন মিলটি চালু হওয়ায় এলাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আশা অনেক নারী-পুরুষ কাজকর্ম করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। পরে এক সময় ধীরে ধীরে মিলটি বন্ধ হইয়ে গেলে, কর্মহীন হয়ে পড়ে প্রায় অর্ধলক্ষাকি শ্রমিক। 
দ্বীর্ঘদিন জুট মিলটি বন্ধ থাকার পর বেশ কিছুদিন পূর্বে এমিকো বাংলাদেশ লিঃ (এবিএল) কোম্পানী  ওই মিলের অদিকাংশ জমি কিনে গার্মেন্টস নির্মানের কাজ শুরু করেন। আর ওই নির্মান কাজকে কেন্দ্র করে রাস্তার দুই পাশে বালী, ইটা, খোয়া সহ বিভিন্ন প্রকার নির্মান সামগ্রী দিয়ে রাস্তা বেড়িকেট সৃষ্টি করে রেখেছে নাম বিহীন কিছু ক্ষুদ্র ঠিকাদার। যা অতি জনগুরুত্ব পূর্ণ ওই রাস্তাদিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন প্রকার যানবাহন দিয়ে স্কুল,কলেজ মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মজীবি নারী-পুরুষ সহ প্রায় লক্ষাদিক লোক রাস্তাদিয়ে চলাচল করে। ওই রাস্তাদিয়ে চলাচল করতে যেয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে মানুষ। অচিরেই প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে, ওই নির্মান সামগ্রী রাস্তায় থাকার কারনে দুর্ঘটনায় মানুষ চির পঙ্গু থেকে মৃত্যু পযর্ন্ত হতে পারে। 
 এ নিয়ে এমিকো বাংলাদেশ লিঃ (এবিএল) এর সহ-কারী ম্যানেজার আব্দুল বারী সাহেবের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ওই নির্মান সামগ্রী আমাদের কোম্পানীর নয় এড়োলো পাবলিকের।  এর জন্য আমাদের কোম্পানী দ্বায়ী নয়।    
 এবিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো.সুহাগ হোসেন এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নাই দেখে অচিরেই ব্যবস্থা নিব।           

 ক্রাইম নিউজ থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ