সোমবার , ২৯ জানুয়ারী ২০১৮

মো: সাদের হোসেন বুলু দোহার থেকে: 
ঢাকার দোহার উপজেলা জুড়ে বিস্তৃত শান্ত শ্যামল সুবজে ঘেরা পদ্মা নদী। যার অপরুপ দৃশ্য যেন স্বচ্ছ জলধারার এক নতুন দিগন্ত।
নৈসর্গিক সৌন্দর্যর টানে প্রতিনিয়ত প্রকৃতিপ্রেমীরা ছুটে আসেন এখন এখানে। মেতে উঠেন এক নতুন আড্ডায়। শীত কিংবা গরম যে কোনো পরিবেশে পদ্মার স্বচ্ছ জলাধারা কাছে টানে সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষের। নেই কোন বয়সের  ব্যবধান।
বতর্মান সময়ে তরুণ-তরুণীদের কাছে এলাকাটি খুব প্রিয়। নিঝুম ছায়াঘেরা গ্রাম্য পরিবেশে বসে মনের মানুষের সঙ্গে কথা বলতে অনেকেই খুঁজে নেন এখন দোহারে মৈনটঘাট খ্যাত মিনি কক্সবাজার অঞ্চলকে। ঢাকা দক্ষিণ তথা কেরানীগঞ্জ,নবাবগঞ্জ ও দোহার উপজেলার মানুষের একমাত্র কাছে এখন নির্ঝট বিনোদনকেন্দ্র এ পদ্মা নদী। তাঁজা ইলিশ ও পাখির জলকেলি দেখতে প্রতি দিন শত শত দর্শনার্থী ছুটে আসেন এখানে।
এলাকাবাসীর দাবী, পদ্মা নদীকে ঘিরে গড়ে উঠতে পারে এখানে ঢাকা জেলার শ্রেষ্ঠ পর্যটন কেন্দ্র। রাজধানী ঢাকা গুলিস্থান থেকে মাত্র ৭০/৮০ টাকা খরচ করলেই   বাসে যে কেউ পৌছে যেতে পারেন দোহারে পদ্মা নদীর মৈনটঘাট এলাকায়। বর্তমান শীত মৌসুমে এখানে অতিথি পাখির কিচিরমিচির শব্দ, পানকৌড়ির ডুবে ডুবে মাছ শিকারের দৃশ্য আগন্তুকদের মন কেড়ে নিবে। পদ্মায় জেলেদের  ইলিশ মাছ ধরা দৃশ্য দেখতে কার না মনে চায় ইচ্ছে করলে আপনি পাশে অবস্থিত হোটেলে খেতে পারবেন অল্প খরচে। 
দোহারবাসীর প্রত্যাশা, এই হয়তো একদিন সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এ পদ্মা নদীকে ঘিরে গড়ে উঠবে ঢাকা অঞ্চলের শ্রেষ্ঠ বিনোদন বা পর্যটন কেন্দ্র।   

 পাঁচমিশালি থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ