রবিবার , ১১ মার্চ ২০১৮

সুদাম চন্দ্র, নওগাঁ থেকে:
নওগাঁ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র শ্যামল চন্দ্রকে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। রোববার সকাল ১১ টায় নওগাঁ পলিটেক ইনস্টিটিউট সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে  কলেজের সামনে শহরের দুবলহাটি সড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। রোববার ছিল শ্যামল চন্দ্রের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী। বান্ধবীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ২০১৭ সালের ১১ মার্চ নওগাঁ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার বিভাগের ৬ষ্ঠ সেমিস্টারের শিক্ষার্থী শ্যামল চন্দ্র শহরের আরজি নওগাঁর ফিশারি গেটের সামনে ছুরিকাঘাত হয়ে নিহত হন। 
মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, শ্যামলের হত্যাকারীরা জামিনে মুক্তি পেয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য তাঁর পরিবারকে হুমকি-ধামকি দিয়ে যাচ্ছে। হত্যাকারীরা বিভিন্ন মহলের আশ্রয়-প্রশ্রয় নিয়ে প্রকাশ্যে অবাধে চলাফেরা করছে। শ্যামলকে হত্যার ঘটনায় পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের যে কয়জন শিক্ষার্থীদের নাম এসেছে তাঁদেরকে বহিস্কারের জন্য সাধারণ শিক্ষার্থীরা কলেজ কর্তৃপক্ষকে বারবার দাবি জানানোর পরেও তাদের বহিস্কার করা হয়নি। এখনও তারা কলেজ ক্যাম্পাসে ত্রাস সৃষ্টি করে যাচ্ছে। দ্রুত শ্যামল হত্যা মামলার বিচার সম্পন্ন করে আসামিদের দৃষ্টান্তুমূলক শাস্তি দেওয়ার দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।  
পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী তারেক রহমানের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাব্বির রহমান, সাধারণ সম্পাদক আমানুজ্জামান সিউল, পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী শাহিনুর ইসলাম, জিহাদ রহমান, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ। 
মানববন্ধনের আগে সকালে শ্যামলের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে কলেজ ক্যাম্পাসে শহিদ মিনারের বেদীতে শ্যামলের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান কলেজের শিক্ষার্থীরা।
শ্যামল হত্যা মামলার তদন্ত শেষে গত বছরের ৭ সেপ্টম্বর ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নওগাঁ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন। অভিযুক্ত আসামিরা হলেন, আতোয়ার হোসেন (২০), আরমান হোসেন রোমন (১৯), রাশেদ (২২), রনি আহম্মেদ (১৯), ফায়সাল হোসেন মিজান (২০), মমিনুল ইসলাম (২০), সজীব চন্দ্র (২০), পাইলট হোসেন সিজার (২২), পুস্প চন্দ্র রায় (২২), আসিক (২৫) ও মাসুদ (২৬)।

 সভা-সেমিনার থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ