মঙ্গলবার , ১৩ মার্চ ২০১৮

রাতুল মন্ডল শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়। এতে গাজীপুরের শ্রীপুরের তিন বছরের একটি শিশু কন্যা ও তাঁর পিতা নিহত হয়। এমন সংবাদ পেয়ে সোমবার রাতেই ওই পরিবারের পাশে দাঁড়াতে নিহত ব্যক্তির বাড়িতে এসে হাজির হন শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রেহেনা আকতার। 
নিহত এফএইচ প্রিয়ক ও তাঁর মেয়ে তামারা প্রিয়সীর স্মৃতি নিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন প্রিয়কের মা ফিরোজা বেগম। এসময় ইউএনও রেহেনা আকতার শোকাহত পরিবারকে শান্তনা দিতে গিয়ে নিজেও কাঁদেন। খুব সহজেই মানুষের মনের ভিতর জায়গা নেন এই মমতাময়ী মা ইউএনও রেহেনা আকতার। শান্তনা দিতে গিয়ে প্রিয়কের মাকে তিনি বলেন, জন্ম-মৃত্যু আল্লাহ্তালার হাতে। মনকে শান্ত করেন। আল্লাহ্তালাই আপনার সকল পথ দেখাবেন। আপনার সন্তানের সকল তথ্য দিয়ে আমরা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগযোগ করেছি। তিনি আরো বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে খুব দ্রুত আপনার সন্তান ও নাতিনসহ সকলকে ফিরিয়ে আনবে।
এসময় তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. সোহেল রানা ও আতাউর রহমান, মো.আকরাম হোসেন কাজল, মাজাহারুল ইসলামসহ ওই গ্রামের শত শত মানুষ। 
উল্লেখ্য: ফারুক আহমেদ প্রিয়ক-এ্যানি দম্পতি ও তাদের মেয়ে প্রিয়সী সঙ্গে মামাতো ভাই মেহেদি হাসান অমিও-কামরুন্নাহার স্বর্ণা আক্তার (সোনামনি প্রিয়তমা) দম্পতি ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে নেপালের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়েন সাড়ে ১২টার দিকে। পরে ওই বিমানটি নেপাল ত্রিভুন এয়ারর্পোটে বিধ্বস্ত হলে ঘটনাস্থলেস প্রারণ হারায় প্রিয়ক ও তার মেয়ে প্রিয়সী। বাকি তিনজন নেপালের হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।  

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ