সোমবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলছি তারেক রহমান লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ হাই কমিশনে তার পাসপোর্ট জমা দিয়ে থাকলে তা জাতির সামনে উপস্থাপন করুন। সোমবার সকালে দলের নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। 

রিজভী বলেন, আপনারা ক্ষমতায় আছেন, হাইকমিশনতো সরকারের নিয়ন্ত্রণে। তাহলে তারেক রহমান জমা দিয়ে থাকলে সেটি প্রদর্শন করে সবাইকে দেখান। কই সেটা তো পারলেন না। 

তিনি বলেন, ভোটারবিহীন সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খুশি করতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহারীয়ার আলম বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে নিয়ে মিথ্যাচার করছে। তারেক রহমানের পাসপোর্ট জমা দেয়ার যে উড়ো খবর দেয়া হয়েছে তার জন্য আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

বিএনপির এ নেতা বলেন, বিদেশে বাংলাদেশ হাইকমিশনে তারাই পাসপোর্ট জমা দেন যারা বিদেশীদের বিয়ে করে সে দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে। যিনি বিএনপি ও জিয়া পরিবারেরে বিরুদ্ধে মিথ্যচার করছেন তার সন্তান ও পরিবারের সদস্যরাই বিদেশীদের বিয়ে করে সেসব দেশে আবাস গড়েছে। 

তিনি বলেন, আসলে সংগঠন হিসেবে আওয়ামী লীগ ভিত্তিহীন, কাল্পনিক ও অনর্গল মিথ্যা বলার যে একটি ‘সেন্টার অব এক্সসেলেন্স’ সেটি আবারও প্রমাণ করলো। প্রধানমন্ত্রীকে খুশী করতেই পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তারেক রহমানকে নিয়ে নির্জলা মিথ্যা কথাটি বলেছে। পাসপোর্ট সারেন্ডার করে তারাই যাদের ছেলে মেয়েরা বিদেশীদের বিয়ে করে বিদেশেই নাগরিকত্ব গ্রহণ করে। বিদেশেই বিভিন্ন পদে অধিষ্ঠিত থাকে। 

টিউলিপের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভাগ্নি টিউলিপ সিদ্দিকী গর্বের সঙ্গে নিজেকে বৃটিশ বলতেই ভালোবাসেন, বাংলাদেশী নাগরিক হিসেবে নয়। আওয়ামী নেতারা নিজেদের সন্তানদেরকে বিদেশীদের সাথে বিয়ে দিয়ে আত্মশ্লাঘা লাভ করেন। যারা বাংলা ভাষা, আবহমান বাংলার সংস্কৃতি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে মার্কেটিং করতে সদা তৎপর, অথচ তারাই কোন চেতনায় বিদেশীদের কাছে সন্তানদের বিয়ে দিচ্ছেন। সেই চেতনাটি কী সেটি ক্ষমতাসীনদেরকে পরিস্কার করা উচিৎ। পৈশাচিক একদলীয় শাসনের বর্বর আস্ফালনে আওয়ামী লীগ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে যাতনা দিচ্ছেন জনগণকে।

সরকারেরর সমালোচনা করে তিনি বলেন, জুলুম ও নিপীড়ণের বেড়াজালে দেশকে বন্দী করার জন্যই আজ আওয়ামী সরকার স্বৈরাচারী হিসেবে আন্তর্জাতিক খেতাবপ্রাপ্ত হয়েছে। মেগা প্রজেক্টের নামে দুর্নীতির টাকা আর সম্পদে ভরপুর হওয়াতে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবাজ হিসাবেও খেতাবপ্রাপ্ত। অন্যের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করলে নিজেদের পাপকে ঢেকে রাখা যায় না, সেটি বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়ে।

রিজভী বলেন, জিয়া পরিবারের কেউ বিদেশীদের বিয়ে করেননি। পৃথিবীর কোন দেশে তাঁরা কোন নাগরিকত্ব গ্রহণও করেননি। বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমানের পাসপোর্ট হাইকমিশনে জমার বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী যে উড়ো, অবান্তর কথা বলেছে, তার জন্য আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে, কিন্তু তারা নিজেরাই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংসকারী দল। তারা মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে দিয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহ দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমদ।

 রাজনীতি থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ