বুধবার , ২৫ এপ্রিল ২০১৮

কলকাতা:

আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচন উপলক্ষ্যে প্রকাশিত ইশতেহারে (ম্যানিফেস্টো) বাংলাদেশের সহিংসতার একটি ছবি ব্যবহার করে বিতর্কে জড়িয়েছে বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ শাখা। গতকাল মঙ্গলবারই বিজেপি তাদের ইশতেহারটি প্রকাশ করে। পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে শুরু করে ওই ইশতেহার প্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দলের নেতা মুকুল রায়, সাবেক বিধায়ক শমীক ভট্টাচার্য, ওমপ্রকাশ মজুমদার, প্রতাপ ব্যানার্জিসহ শীর্ষ নেতারা। 

ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের শাসনকালে পশ্চিমবঙ্গে আইন-শৃঙ্খলার প্রকৃত ছবি তুলে ধরতে গিয়ে ওই ইশতেহারে একাধিক সহিংসতার ছবি দিয়ে একটি ‘কোলাজ’ ছাপা হয়। অভিযোগ সেই কোলাজের ওপরের ছবিটিই বাংলাদেশের। 

বিজেপির অভিযোগ রাজ্য জুড়ে সহিংসতার ঘটনা ঘটেই চলেছে অথচ পুলিশ সব কিছু দেখেও নীরব দর্শক হয়ে রয়েছে। বিজেপি শিবির সূত্রে খবর, ‘ভুল করে নয়, জেনে বুঝেই ওই ছবিটি কোলাজে ব্যাবহার করা হয়েছে’, কারণ যে পরিপ্রেক্ষিতে ওই কোলাজটি ছাপানো হয়েছে বাংলাদেশের ছবিটি সেই সম্পর্কিত। কিন্তু তবুও অন্য একটি দেশের ছবি কিভাবে ব্যবহার করা যায়? বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে বাংলাদেশের একাধিক জায়গায় হিন্দু দেব-দেবীদের মূর্তিকে অসম্মান করা হয়েছে, সেই কারণেই ওই দেশের ছবিটি ব্যবহার করা হয়েছে। 

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ১১ মার্চ ছবিটি তুলেছিলেন এএফপি’এর এক চিত্র সাংবাদিক। সেসময় বাংলাদেশের বিভিন্ন পত্রিকাতেও ছবিটি প্রকাশিত হয়। অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগে ওই দিন দেশটির বিরোধী দল বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে সাধারণ সম্পাদক মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আটক করার পরই দলের কর্মী-সমর্থকরা ঢাকায় প্রতিবাদে নামে। আওয়ামী লিগের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসতার অভিযোগ তুলে তারা একাধিক গাড়িতে অগ্নিসংযোগ ঘটানোর পাশাপাশি স্লোগানের মুখরিত করে তোলে রাজপথ।

যদিও বিজেটির দাবি মতো ২০১৮ সালে পশ্চিমবঙ্গের আইন-শৃঙ্খলার পরিস্থিতি বোঝাতে গিয়ে ২০১৩ সালে পুলিশের সাথে বাংলাদেশের বিরোধী দল বিএনপি কর্মীদের সংঘর্ষের ছবিটিকে ব্যবহার করাটা নিশ্চিতভাবেই অত্যন্ত অশোভনীয় বলে মনে করছেন পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

 ফিচার থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ