সোমবার , ০৭ মে ২০১৮

 মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মানিকগঞ্জ সাটুরিয়া উপজেলার সাটুরিয়া ইউনিয়নের চামুটিয়া গ্রামে রুস্তম আলী (৩৫) নামে এক ব্যক্তি বিষ পানে আত্মহত্যা করে। গত ২৯ এপ্রিল রবিবার রুস্তমের নিজ বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। রুস্তম চামুটিয়া গ্রামের বুদ্দু মিয়ার ছেলে। জানা গেছে, সুন্দরী স্ত্রী মিমিকে এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল দীর্ঘদিন ধরে উত্তপ্ত করে আসছিল এর জের ধরে এই ঘটনা ঘটে। রুস্তমের আত্মহত্যার বিষয়ে স্ত্রী মিমি বেগম জানান, প্রায় এক যুগ আগে প্রেমের টানেই মিমি রুস্তমের হাত ধরে পাড়ি জমায়। এর পর যথারীতি তাদের বিয়েও হয়। তাদের ঘরে মিম নামের ৮ বছরের সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকেই মিমি স্বামী রুস্তমের সঙ্গে চাকুরীর সুবাদে অন্যত্র বাসা ভাড়া করে থাকত। এক সময়ে রুস্তমের আর্থিক অবস্থা অবনতি হলে তারা গ্রামের বাড়ীতে চলে আসে। স্বামী সন্তান নিয়ে সুখ শান্তিতে তাদের জীবন কাটছিল। প্রতিবেশী মৃত ফজল হকের ছেলে বিকাশ ও মোবাইল রিচার্জ ব্যবসায়ী আব্দুস সালামের সাথে আত্মীয় স্বজনের পাঠানো টাকা উত্তোলনের সূত্রে পরিচয় ঘটে। পরিচয়ের সুবাদে কৌশলী আব্দুস সালাম তার অজান্তে মোবাইল নম্বরে প্রতিনিয়ত কল দিয়ে বিরক্ত করে থাকত এবং নানা রকম মিথ্যা প্রলোভন সহ কু-প্রস্তাব দেয়। প্রস্তাবে ব্যর্থ হয়ে আব্দুস সালাম তার মোবাইল নাম্বারটি প্রতিবেশী দুধের ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম সহ তার স্বামীর ভগ্নিপতি রহমানকে সরবরাহ করে এবং সে সময় সালাম তাদের কে তার চারিত্রিক বিষয়ে খারাপ ধারনা দেয়। এর পর শহিদুল ঐ প্রাপ্ত মোবাইল নাম্বারে তাকে একইভাবে যথারিতী বিরক্ত করতে থাকে এবং চতুরতার আশ্রয় নিয়ে সম্পর্কের চেষ্টা চালায় ও কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। নিরুপায় হয়ে বিষয়টি স্বামী রুস্তকে একাধিকবার জানায়। এতে প্রতিকার না হওয়ায় মিমি তার ছেলেকে নিয়ে বাবার বাড়ী রাজবাড়ীতে চলে যায়। সেই সময়ে মিমির রাগ ভাঙাতে স্বামী রুস্তম আলী একাধিকবার যোগাযোগে ব্যর্থ হয়ে মিমিকে বাবার বাড়ী থেকে ফিরিয়ে আনতে গেলে মিমি রুস্তমের নিকট আবারো অভিযুক্তদের বিচার দাবী করে। ঐ সময় রুস্তম নিরব থাকায় মিমি বাবার বাড়ী থেকে আসতে রাজি হয় না। পরে রুস্তম একাই চলে আসে এবং বাড়ীতে এসে বিষপানে আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যার বিষয়টি জানতে পেরে মিমি পরিবার পরিজন নিয়ে স্বামীর বাড়ীতে আসে। সেখানে উপস্থিত উৎসোগ এলাকাবাসী, জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে সাটুরিয়া থানা পুলিশ রুস্তমের আত্মহত্যার বিষয় নিয়ে মিমিকে প্রশ্ন করলে মিমি কান্নায় ভেঙ্গে পরে এবং পুলিশকে আসল  ঘটনা খুলে বলেন। এ বিষয়ে সাটুরিয়া থানায় কর্তব্যরত উপ-পুলিশ পরিদর্শক হাসান জানান রুস্তমের আত্মহত্যা নিয়ে থানায় একটি ইউ ডি মামলা দায়ের হয়েছে ও রুস্তমের স্ত্রীর অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্ত করে সত্যতা পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ