শনিবার , ২৬ মে ২০১৮

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং–উনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বৈঠক হচ্ছে না। ১২ জুন সিঙ্গাপুরে এই দুই নেতার বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। আজ বৃহস্পতিবার ওই বৈঠক বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প।
বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিক এক বিবৃতিতে চরম ক্ষুব্ধ হয়ে ট্রাম্প এই বৈঠক বাতিলের সিদ্ধান্ত নেন। ট্রাম্প ওই বিবৃতিকে ‘প্রকাশ্যে শত্রুতা’ বলেও আখ্যা দেন।
বৈঠক বাতিলের ঘোষণা দিয়ে ট্রাম্প বলেছেন, উনের সঙ্গে ১২ জুন বৈঠক করা যুক্তিযুক্ত হবে না। কিমের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে ট্রাম্প বলেছেন, অন্য কোনো দিন কিমের সঙ্গে সাক্ষাতের অপেক্ষায় থাকবেন তিনি।
ট্রাম্পের বৈঠক বাতিলের বিপরীতে এখনো উত্তর কোরিয়ার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।
উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ট্রাম্পের বৈঠক নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই নানা কথা চলছিল। এ বৈঠক ভেস্তে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছিল।
ট্রাম্প প্রশাসনের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং-উনের বৈঠকের আগে দুই দেশের মধ্যে উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বৈঠক চাইছিল ট্রাম্প প্রশাসন। এ ছাড়া শীর্ষ দুই নেতার বৈঠকের আগেই উত্তর কোরিয়ার কাছ থেকে পরমাণু কর্মসূচি থেকে সরে আসার নিশ্চয়তাও চাচ্ছিল যুক্তরাষ্ট্র।


দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের একটি যৌথ সামরিক মহড়া অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। উত্তর কোরিয়া অবশ্য আগেই হুমকি দিয়েছিল—ওই সামরিক মহড়া অনুষ্ঠিত হলে তারা ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক থেকে সরে যাবে। আবার পরমাণু কর্মসূচি থেকে সরে যাওয়ার জন্য চাপ অব্যাহত রাখলেও একই পরিণতির হুমকি দিয়ে রেখেছিল পিয়ংইয়ং।
এর আগে ট্রাম্প নিজেই এক টুইট বার্তায় আগামী ১২ জুন সিঙ্গাপুরে কিম জং-উনের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন। গত মঙ্গলবার অবশ্য ট্রাম্প বলেন, বৈঠকের জন্য উত্তর কোরিয়াকে কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। যদি তারা সেটা না করে, তাহলে আগামী মাসের পরিবর্তে অন্য কোনো সময়ে বৈঠকটি হতে পারে। তবে কোনো নির্দিষ্ট সময় উল্লেখ করেননি তিনি।

বিবিসি জানিয়েছে, কোরিয়া উপদ্বীপে উত্তেজনা কমাতে আজ বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের ডেকে তাঁদের সামনে একমাত্র পারমাণবিক পরীক্ষাকেন্দ্রের সুড়ঙ্গ ধ্বংস করেছে উত্তর কোরিয়া। এ স্থাপনার সুড়ঙ্গগুলো স্যাটেলাইটের মাধ্যমে পাওয়া ছবিতেও দৃশ্যমান হয়। বিভিন্ন দেশ থেকে বাছাই করা ২০ জন সাংবাদিক এ সুড়ঙ্গ ধ্বংসের ঘটনা প্রত্যক্ষ করেন।

 সারাবিশ্ব থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ