রবিবার , ১৫ July ২০১৮

‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍আশিকুর রহমান"ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ ভালুকায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মুরাদ আকন্দ (৩০) নামে এক ডাকাত সর্দার নিহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার উথুরা ইউনিয়নের হাইজ্যাক মোড়। নিহতের কাছ থেকে ১টি রাম দা,১টি চাপাতি, ১টি ছোরা ও গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধে ২পুলিশ আহত হয়েছেন। মুরাদ ভালুকা উপজেলার বগাজান গ্রামের শাহজাহান আকন্দের ছেলে। মুরাদ নিহত হওয়া পর এলাকায় সাধারণ মানুষের শান্তি ফিরে এসেছে।
সূত্রে জানাযায়, ভালুকা মডেল থানা পুলিশের কাছে খবর আসে ভরাডোবা-ঘাটাইল সড়কের উথুরা হাইজ্যাক মোড় ব্রীজে একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। খবর পেয়ে ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ তালুকাদার নেতৃত্বে পুলিশের একটি বিশেষদল ঘটনাস্থলে পৌঁছতেই ডাকাতদল পুলিশকে লক্ষ্য করে এলো পাথারি ইট পাটকেল ও গুলি ছুড়তে থাকে। এ সময় পুলিশ আতœরক্ষার জন্য পাল্টা গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলেই মুরাদ আকন্দ নামে এক ডাকাত সর্দার ও দুই পুলিশ অফিসার আহত হন। মুরাদকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহে মেডিক্যাল (মমেক) হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। আহত পুলিশ এস,আই মনির (৩২) ও এ,এস,আই ইউসুফ আলী(৩৫)কে উদ্ধার করে রাতেই ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।
এ সময় মুরাদের সহযোগিরা পালিয়ে যায়। নিহত মুরাদের বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ ৬টি মামলা রয়েছে। মুরাদের শরীর তল্লাশি করে পুলিশ ১টি রাম দা, ১টি চাপাতি,১টি ছোরা ও তার পাশ থেকে গুলির খোসা উদ্ধার হয়। মুরাদ আকন্দ দীর্ঘদিন যাবত ওই এলাকায় ত্রাসের রাজ্যত্ব কায়েম করে। সে ডাকাতি,সস্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত ছিলো। তাঁর অত্যাচার থেকে বিভিন্ন মিল শ্রমিকরা রক্ষা পায়নি। বেতন নিয়ে শ্রমিকরা বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা থেকে টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যেতো। ভরাডোবা-ঘাটাইল সড়কের প্রায় সময় তার নেতৃত্বে ডাকাতি সংঘটিত হয়েছে।
ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ তালুকাদার জানান,মুরাদ একজন এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও ডাকাত সর্দার। তার বিরুদ্ধে ভালুকা থানায় ডাকাতিসহ ৫টি মামলা রয়েছে। এ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী থানায় ও বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে।

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ