সোমবার , ২৩ July ২০১৮

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা এলাকায় বর্ষা মৌসুমের শ্রাবন মাসেও কাঙ্খিত বৃষ্টি না হওয়ায় আমন ফসলের মাঠে চড়ছে গরু ছাগল। বৃষ্টির অভাবে কৃষকেরা মাঠে জমি প্রস্তুত করতে পারছে না। তারা জানায় আমন ফসল সময় মত রোপন করা নিয়ে শংকিত। তাদের ভাষায় মাঠে পানি না থাকায় জমি ঠিক করা যাচ্ছে না। এদিকে জমি রোপনে দেরি হওয়ার কারনে বীজের বয়স বেড়ে যাচ্ছে। মাঠে পানি থাকলে এ সময় জমি রোপন করাই এক প্রকার শেষ হয়ে যেত। তবে উপজেলার অনেক এলাকায় কৃষকেরা সুবিধা থাকায় সেচ দেয়ার মাধ্যমে জমি রোপনের কাজ চালিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে। গত রবিবার দিনে থেমে থেমে কিছুটা বৃষ্টির পর সন্ধ্যার পরে প্রায় ঘন্টাব্যাপি বৃষ্টি হয়েছে। ওই বৃষ্টির পানি মাঠে খুব একটা জমে উঠেনি। গতকাল সোমবার মেঘলা আকাশ ছিল।বৃষ্টির অভাবে আমন ফসল রোপন দেরি হওয়ায় কৃষকেরা ক্ষতিগ্রস্থ হবে কিনা বিষয়টি নিয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আবুরেজা মোঃ আসাদুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান নবাবগঞ্জ উপজেলা এলাকায় ব্রী-৩৪ জাতের ধান বেশি চাষ হয়ে থাকে। আর ওই ধানটি লাগানোর এখনও সময় রয়েছে। তাই কৃষকের ক্ষতিগ্রস্থ হবার কোন আশংকা নাই। কৃষি বিভাগ কৃষকদের বৃষ্টির পানির ভরসায় না থেকে সেচের মাধ্যমে জমি রোপনের ব্যবস্থা করার পরামর্শ প্রদান করে যাচ্ছে বলেও তিনি জানান। তার ভাষায় ইতিমধ্যে অনেক এলাকায় সেচের মাধ্যমে জমি রোপনের কাজ শুরু করেছে কৃষকেরা। কৃষকদের চাহিদা মোতাবেক সব খানেই অনুরুপ সেচ ব্যবস্থা চালু করার চেষ্টা করা হচ্ছে। অত্র উপজেলা এলাকায় চলতি আমন মৌসুমে ২১ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে আমন চষের লক্ষ্যমাত্র নির্ধারন করা হয়েছে বলেও তিনি জানান। 

 নগর-মহানগর থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ