শনিবার , ০৪ আগষ্ট ২০১৮

লিটন সরকার বাদল, দাউদকান্দি(কুমিল্লা) থেকে ।। ৪ আগস্ট ১৮ ইং নিরাপদ সড়ক চাই’ দাবীতে দেশব্যাপী চলমান আন্দোলনের অংশ হিসেবে আজ দাউদকান্দির বিভিন্নস্থানে সড়কে মানববন্ধন ও মিছিল করেছে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা। পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনের সুন্দর আচরনে পুলিশের হাতে পানি ও চকলেট খেয়ে বাড়ী ফিরেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। সরেজমিন পরিদর্শন, প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আজ সকালে থেকে দাউদকান্দি উপজেলার বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীরা জড়ো হতে থাকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ইলিয়টগঞ্জ, গৌরীপুর, শহীদনগর, হাসানপুর ও দাউদকান্দি বিশ্বরোডে। এক পর্যায়ে নিরাপদ সড়ক চাই” শ্লোগান দিয়ে মহাসড়কে শান্তিপূর্ন আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের খবর পেয়ে মহাসড়কের বিভিন্নস্থানে ছুটে যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহাবুব আলম, পুলিশের সিনিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার (দাউদকান্দি সার্কেল) মহিদুল ইসলাম, দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন, দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ, গৌরীপুর পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এএসএম আব্দুন নূর ও সুন্দলপুর মডেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদ আলম। গৌরীপুর বাসস্টেশনে অবস্থাননেয় সুবল আফতাব উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা গৌরীপুর ফাড়ীর ইনচার্জ এএসএম আব্দুন নূর শিক্ষার্থীদেরকে বুঝিয়ে স্কুলে নিয়ে যান। গৌরীপুর কলেজের সামনে কলেজ শিক্ষার্থীরা বের হবে, এমন সময় দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ শিক্ষার্থীদের বুঝালে ওরা বের হয়নি। এদিকে বরকোটা, জুরানপুর, হাসানপুর, মোশাররফ কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা দাউদকান্দি বিশ্বরোড থেকে মিছিল নিয়ে শহীদনগর বাসস্টেশনে এসে জড়ো হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুল আলম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহিদুল ইসলাম ও দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি আলমগীর হোসেন শিক্ষার্থীদের শান্ত করেন। তাদের দাবী পূরণ করার আশ্বাস দেন। শিক্ষার্থীরা ওনাদের বক্তব্যে খুশি হয়ে আন্দোলন স্থগিত করলে। পুলিশ তাদেরকে চকলেট ও পানি খাওয়ান। পরে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক ত্যাগ করে তাদের গন্তব্যে ফিরেন।
এব্যাপারে হাইওয়ে থানার ওসি বলেন, শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ন আন্দোলন করেছে। ওরা আমাদের কথা রেখেছে। বুঝিয়ে বলার বাড়ী ফিরে গেছে।
সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা তাদের দাবী পূরনের আশ্বাস দিয়েছে। তাঁরা আন্দোলন বন্ধ করেছে। তাদেরকে আমরা বিভিন্ন পরিবহনে করে গন্তব্যে পৌছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি।

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ