মঙ্গলবার , ১৪ আগষ্ট ২০১৮

এম এ রহিম, বেনাপোল:
যশোরের শার্শার উপজেলার সাতমাইল পশুরহাট থেকে ৯ জেব্রা উদ্ধারের মামলার চার্জশিট দিয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। মঙ্গবার (১৪ আগস্ট) মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা শাখার এসআই খাইরুল আলম চার্জশিট দাখিল করেন।
মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, যশোরের শার্শার সাতমাইল গ্রামের আব্দুল বিশ্বাসের ছেলে তুতু, শার্শার উপজেলার পুটখালি গ্রামের উত্তর পাড়ার আলমগীর হোসেন মুক্তি, জামতলা সামটা গ্রামের ইদ্রিস আলী, নরসিংদীর পলাশ উপজেলার বকুলনগর গ্রামের রানা ভূঁইয়া,বগুড়ার আদম দিঘী উপজেলার বশিকোড়া চকপাড়া গ্রামের কামরুজ্জামান বাবু এবং ইয়াছিন। এই বিষয় এসআই খাইরুল আলম জানান,এই মামলার ৪ জন জামিনে আছে অপর দুই জন পালাতক।
মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, গত ৮ মে রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশ জানতে পারে যশোরের শার্শা উপজেলার সাতমাইল পশুর হাটে তুতুর খাটালে কয়েকটি জেব্রা ভারতে পাচারের জন্য এনে রাখা হয়েছে। এ ধরনের সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান পরিচালনা করে যশোরের গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। ওই খাটাল থেকে ৮টি জীবিত ও ১টি মৃত জেব্রা উদ্ধার করা হয়। তবে ওই সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জেব্রা চোরাকারবারিরা পালিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে এসআই মুরাদ হোসেন বাদী হয়ে যশোরের শার্শা থানায় বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে মামলা করেন। তদন্ত শেষে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকায় ওই ৬ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা। চার্জশিটে অভিযুক্ত তুতু ও আলমগীর হোসেনকে পলাতক দেখানো হয়েছে। বাকি চারজন আটকের পর জামিনে আছেন। 

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ