বৃহস্পতিবার , ২৪ জানুয়ারী ২০১৯ |


সরাইল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সহিদ খালিদ জামিল খান অফিস করেন তার মর্জি মত। প্রায় সময় তাকে অফিসে সময় মত পাওয়া যায় না। জরুরী প্রয়োজনে বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে শিক্ষকরা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে এসে তাকে না পেয়ে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। পানিশ্বর, অরুয়াইল, পাকশিমুল সহ প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শিক্ষক বা তাদের প্রতিনিধিরা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে এসে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার দপ্তরে গিয়ে তাকে না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরে যান।

এতে দাপ্তরিক কাজের ব্যাঘাত ঘটে। উল্লেখ্য, উক্ত কর্মকর্তা ইতিপূর্বে বিগত বিএনপি সরকারের সাবেক প্রতিমন্ত্রীর আশীর্বাদে সরাইল উপজেলায় প্রায় দশ বছর চাকরী করে যাওয়ার পর অন্যত্র বদলী হয়। তিনি দীর্ঘদিন সরাইলে চাকরীর সুবাদে উপজেলার প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে নিজস্ব বলয় তৈরী করে রেখেছেন। সে ধারাবাহিকতা সচল রাখতে তিনি বিভিন্ন মহলের কৃপা নিয়ে আবরো সরাইলে যোগদান করেন।

এর পর থেকে তিনি তার মনমত চালিয়ে যাচ্ছেন তার অফিস। জনমনে প্রশ্ন, নিজ জেলায় এবং নিজের নির্বাচনী এলাকায় কীভাবে দীর্ঘ প্রায় বিশ বছর ধরে সরকারী চাকুরী করে যাচ্ছেন? এদিকে গত ২৫ অক্টোবর সাড়ে তিনটায় কয়েকজন গনমাধ্যম কর্মী তার অফিসে গিয়ে তাকে পায়নি। এ সময় মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে তার জন্য কয়েকজন শিক্ষককে অফিসের শেষ সময় পর্যন্ত হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় অপেক্ষা করতে দেখা যায়।

---সরাইল প্রতিনিধি

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ