বুধবার , ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ |

বিশেষ প্রতিবেদন ঃ পাখিদেরও যখন ঘুম ভাঙ্গেনি সুর্যের আলো দেয়নি তার আগেই দুবলার চরের জেলেরা ব্যস্ত হয়ে উঠেছে মাছ শিকারে।
ভোরের সূর্যের কিরন গায়ে পড়ার আগেই কাঁচা মাছ শিকার শুরু করে দেয় জেলেরা। তারপর তা রোদে শুকিয়ে শুটকি প্রক্রিয়া করা হয়। লইট্যা, রুপচাাঁদা, খলিসা, ছুরি, ভেদা, পোয়া, দাইতনা, মেদ, জাবা, কাইন, ভোলা, ঢ্যালা, চিংড়ি, সাদা মাছসহ অন্তত এক’শ প্রজাতির কাাঁচা মাছ শুকিয়ে এ শুটকি তৈরী করছেন জেলেরা।  সাগরপড়ের দুবলা, মেহের আলী, আলোরকোল, অফিস কিল্লা, মাঝির কিল্লা, শেলার চর, নারকেল বাড়িয়া, ছোট আমবাড়িয়া, বড় আমবাড়িয়া, মানিক খালী, কবরখালী ও চাপড়া খালীস, কোকিলমনি সহ ১৫ টি চরাঞ্চালে এভাবেই শুটকি করেন জেলেরা। 
জেলেদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতি আমবশ্যা ও পূর্ণিমার গোনে বেশি মাছ পাওয়া যায়। দক্ষিনাঞ্চলের সাতক্ষীরা, খুলানা, পাইকগাছা, পিরোজপুর, বরগুনা, মোংলা ও রামপালের বিভিন্ন এলাকা থেকে শুটকি তৈরীতে দুবলা জেলে পল্লীর অধীনে এসব চরে এসে অস্থায়ী বসতি গড়েন। আগামী ছয়মাস তারা এখানে শুটকি তৈরী করবেন। এ জন্য তারা আলাদা পারিশ্রমিক পাবেন। এই শুটকি চট্রগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রয় করা হবে। । 
পূর্বসুন্দরবনের বিভাগীয় বনকর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান বলেন, এবারের শুটকি প্রক্রিয়াকরন থেকে গতবছরের তুলনায় রাজস্ব আদায় বেশি হবে। জেলেরা তাদের শুটকি তৈরীতে এরই মধ্যে সাগর পাড়ের চরে ঘর তৈরী আবাস গড়েছেন। দিন-রাত এসব জেলেরা সাগরে নেমে কাঁচা মাছ সংগ্রহ করছেন এবং একই সাথে তা শুকিয়ে শুটকি তৈরী করছেন। জেলেদের জন্য আমরা ১ হাজার ২৫ টি ঘর বরাদ্দ দিয়েছে। জেলেরা কোন রকম অনিয়ম করতে না পারে সেজন্য আমাদের তদারিক বাড়ানো হয়েছে। 
কোষ্টগার্ড পশ্চিমজোন (মোংলা সদর দপ্তর) অপারেশেন কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জানান, দুবলায় এবার জেলেদের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। সুন্দরবন এবং সাগর এলাকায় দস্যু দমন অভিযান সবসময়ই অব্যাহত থাকে। যদিও সুন্দরবনকে এরই মধ্যে দস্যুমুক্ত ঘোষনা করা হয়েছে, তারপরও শুটকী প্রক্রিয়াকরনের জন্য জেলেদের বাড়তি নিরাপত্তা দিতে আরো কঠোর থাকবো।  
পূর্ব সুন্দরবনের শরনখোলা রেঞ্জের এসিএফ (সহকারী বন সংরক্ষক) জয়নাল আবেদীন জানান, মোংলা থেকে নদী পথে দুবলা জেলে পল্লীর দূরত্ব প্রায় ১২০ কিলোমিটার। সুন্দরবন সংলগ্ন এ পল্লীর সকল কর্মকান্ড জেলেদের ঘিরে। সুন্দরবন অভ্যান্তরের ১৩ টি মৎস্য আহরন, প্রক্রিয়াকরন ও বাজারজাতকরন কেন্দ্র নিয়ে গঠিত দুবলা জেলে পল্লী । 

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ