সোমবার , ২৫ মার্চ ২০১৯ |

 চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা:
 ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মহাকাব্যিক নেতৃত্বে নয় মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ শেষে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বীর বাঙালি অর্জন করে চূড়ান্ত বিজয়। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক নাগরিকের জন্য টেকসই অর্থবহ উন্নয়ন নিশ্চিত করে সুষ্ঠু, সমৃদ্ধ, উন্নত বাংলাদেশ গড়ার সংগ্রামকে এগিয়ে নেবার প্রত্যয়ে এবারের বিজয় দিবস পালন করবেন। 
১০ ডিসেম্বর থেকে ১৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে বিভিন্ন বিজয়ের কর্মসূচি। ১০ ডিসেম্বর সোমবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ কালেক্টরেট ভবন এলাকা থেকে সর্বস্থরের জনগণের অংশগ্রহণে বিজয় র‌্যালি শুরু হয়। সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে এ বিজয় র‌্যালী প্রাণবন্ত হয়ে উঠে। নতুন প্রজন্মসহ সবাই হাতে দাম দিয়ে কেনা লাল সবুজে ঘেরা জাতীয় পতাকা নিয়ে র‌্যালীতে অংশ নেয়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে সকলে শ্রদ্দা জানিয়ে জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে র‌্যালীর সূচনা করা হয়। পরে শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষীণ করা হয়। র‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব আলম খান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন, পৌর মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. সাইফুল ফেরদৌসসহ সরকারি বে-সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্টানের প্রতিনিধিগণ। 
উল্লেখ্য, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে ১০ থেকে ১৬ ডিসেম্বর সপ্তাহব্যাপী মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক দেয়ালিকা প্রদর্শনী হবে। ১৪ থেকে ১৬ ডিসেম্বর প্রতিদিন সন্ধায় জেলার বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচ্চিত্র এবং প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী হবে। এ ছাড়াও ১৪ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯ টায় গ্রীণ ভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিশু একাডেমীর শিশু বিকাশ ও প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশুদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা এবং বিভিন্ন খেলাধুলা অনুষ্ঠিত হবে। 
১৬ ডিসেম্বর সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিনের সূচনা করা হবে। সকল সরকারি/বেসরকারি/স্বায়ত্ব শাসিত/ব্যক্তিমালিকানাধীন ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। এরপরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চত্ত্বওে অবস্থিত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিফলকে পুস্পস্তবক অর্পণ। সকাল পৌনে ৭ টায় হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের পূর্ব-দক্ষিণ কোণে অবস্থিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ। সকাল সাড়ে ৮ টায় পুরাতন স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক কর্তৃক জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন সরকারি বাহিনী/দপ্তর, বিভিন্ন শিক্ষা ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠণ কর্তৃক প্রদত্ত অভিবাদন গ্রহণ ও কুচকাওয়াজ পরিদর্শন। সকাল ১১ টায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ একাদশ বনাম জেলা ক্রীড়া সংস্থা একাদশ সৌখিন টি-২০ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে পুরাতন স্টেডিয়ামে। ১১ টা ২০ মিনিটে একইস্থানে অনুষ্ঠিত হবে শ্যুটিং প্রতিযোগীতা। সন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে সকাল সাড়ে ১১ টায় অনুষ্ঠিত হবে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া হবে। 
বাদ যোহর সুবিধামত জেলার সকল মসজিদ, মন্দির, গীর্জায় সন্ত্রাস ও জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে জনমত সৃষ্টি, জাতির শান্তি ও অগ্রগতি কামনা করে আলোচনা ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদেও আত্মার শান্তি কামনা করে সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ প্রার্থনা করা হবে। দুপুরে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে স্থানীয় হাসপাতাল, জেলখানা, শিশু পরিবার, বৃদ্ধাশ্রম, ডে-কেয় ও বেসরকারি এতিমখানায় উন্নতমানের খাদ্য পরিবেশন করা হবে। বিকেল ৩ টায় স্টেডিয়ামে জেলার প্রাত্তন ফুটবলারদেও সৌখিন ফুটবল প্রতিেিযাগিতা অনুষ্ঠিত হবে। বিকেল সাড়ে ৩ টায় নবাবগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে মহিলাদের অংশগ্রহণে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে। 
বিকেল ৪ টায় অনুষ্ঠিত হবে জেলা প্রশাসক একাদশ বনাম চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভা একাদশ সৌখিন ফুটবল প্রতিযোগিতা। সন্ধা ৬ টায় নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে অনুষ্ঠিত হবে সুখি সমৃদ্ধি বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার এবং মুক্তিযুদ্ধ শীর্ষক আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। 

 জাতীয় থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ