বুধবার , ২২ মে ২০১৯ |

ভেদরগঞ্জে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার

  রবিবার , ২০ জানুয়ারী ২০১৯

ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি:
গত বুধবার বিকাল চার ঘটিকার সময় শরীয়তপুরের সখিপুর থানার নুর মোহাম্মদ মাষ্টার কান্দিতে ৬ বছরের ১ম শ্রেণির ছাত্রী ফারিয়াকে ঘরে ঢেকে ধর্ষণ করল একই গ্রামের দুশ্চরিত্র লম্পট মিজান (১৫)। সরেজমিনে ফারিয়ার মামা আক্কাস শিকদারের কাছ থেকে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার ভাগ্নি ফারিয়ার স্থায়ী বাড়ি জামালপুরে। সে আমাদের বাড়িতে থেকে থেকে পড়াশুনা করে।  বুধবার বিকাল ০৪.০০ টার সময় আমার ভাগ্নে ফারিয়া মিজান সিকদারের বাড়িতে বাচ্চাদের সাথে খেলা করতে যায়। খেলা শেষ করে বাচ্চারা চলে গেলে সে ফারিয়াকে ঘরে ডেকে নিয়ে যায়। ঘরে নিয়ে ফারিয়ার মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। এরপর রাতে ফারিয়ার খালা রক্তমাখা প্যান্ট দেখে বিষয়টি ফারিয়াকে জিজ্ঞেস করে, তখন ফারিয়া রাসেল সরদারের ছেলে লম্পট মিজান সিকদারের কথা বলে। ফারিয়া বলে আমাকে এই ঘটনা কারো কাছে বলতে নিষেধ করেছে, যদি বলি তাহলে আমাকে মেরে ফেলবে। তারপর বিষয়টি এলাকার মুরব্বীগণকে জানালে তারা ধামাচাপার চেষ্টা চালায় এবং দ্রুত ফারিয়াকে চাঁদপুর বেলবিউ ডায়েগনষ্টিক সেন্টারে নিলে থানায় জিডি না থাকার কারণে ভর্তি করানো সম্ভব হয়নি। তারপর ফারিয়ার বাবা ফারুক খান বৃহস্পতিবার সখিপুর থানায় এসে মিজানকে দায়ী করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। মামলার এস.আই মফিজুল হকের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি বলেন, বুধবার বিকালে ঘটনা ঘটেছে। তারা থানায় না এসে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করলেও তা সম্ভব হয়নি। পরে থানায় এসে মামলা দায়ের করে এবং ফারিয়াকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বলেন, বর্তমানে আসামী পলাতক এবং আমরা শ্রীঘই আসামীকে বিচারের আওতায় আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

 ক্রাইম নিউজ থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ