রবিবার , ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯ |

বাণিজ্য ডেস্ক:
স্থল বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানির এলসি খোলার  (ঋণপত্র) ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত এক সার্কুলার জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের বলেছে, “অনুমোদিত পণ্য ব্যতীত অন্যান্য পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে ঋণপত্র না খোলার বিষয়ে আপনাদের ডিলার ব্যাংক শাখাগুলোকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে।”জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পরামর্শে ব্যাংকগুলোকে এ নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ‘স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে অনুমোদিত পণ্য তালিকা ব্যতীত অন্যান্য পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে ঋণপত্র না খোলা’ বিষয় সার্কুলারে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে অনুমোদিত পণ্য তালিকার বাইরে বিভিন্ন পণ্য আমদানির প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা অনভিপ্রেত।“এক্ষণে স্থল শুল্ক স্টেশন দিয়ে আমদানির ক্ষেত্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের এসআরও নং-২৩৭- এর নির্দেশনা মোতাবেক উল্লিখিত অনুমোদিত পণ্য ব্যতীত অন্যান্য পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে ঋণপত্র না খোলার বিষয়ে আপনাদের ডিলার ব্যাংক শাখাগুলোকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের জন্য পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে।” গত ১৫ জানুয়ারি এ ব্যাপারে প্রয়োজনী ব্যবস্থা নিতে এনবিআর বাংলাদেশ ব্যাংক একটি চিঠি লিখেছিল। তাতে বলা হয়েছিল,কাস্টমস অ্যাক্ট-১৯৬৯ এর সেকশন ৯(সি) এর ক্ষমতাবলে রাজস্ব বোর্ড স্থল শুল্ক  স্টেশনগুলোর রুট এবং উক্ত শুল্ক স্টেশন দিয়ে আমদানি ও রপ্তানি পণ্য নির্দিষ্ট করে দিয়েছে। পণ্যের বাণিজ্যিক সম্ভাবনা, দেশীয় শিল্পের অবস্থা ও সুরক্ষা,শুল্ক স্টেশনগুলোর সক্ষমতা, লোকবল, অবকাঠামোগত অবস্থা প্রভৃতি বিবেচনা করে স্থল শুল্ক স্টেশনসমূহ দিয়ে আমদানি-রপ্তানি অনুমোদিত পণ্য তালিকা এ  সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন (এসআরও নং-২৩৭, ১৭ জুলাই ২০১৮) দ্বারা নির্ধারিত করা আছে। সেই তালিকা অনুযায়ী ব্যাংকগুলো যাতে এলসি খোলে চিঠিতে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছিল এনবিআর।
 
 

 পাঁচমিশালি থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ