শুক্রবার , ১৯ এপ্রিল ২০১৯ |

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
 'যারা শরীরের রক্ত জল করে দেশের সমৃদ্ধির চাকা সচল রেখেছেন,তারাই আগামী দিনে ঘুষ, দূর্নীতি ও মাদকের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ কে উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করবে। বিশ্ব বিপ্লব নেতা এই শ্রমিকরা অন্যায়, অবিচার কে সমর্থন করতে পারে না, আগামী দিনে অন্যায় ও অনিয়মের বিরুদ্ধে লড়বেই।'শনিবার (২রা ফেব্রুয়ারি) নীলফামারী জেলা শ্রমিক ঐক্য  সংগ্রাম পরিষদ আয়োজিত বার্ষিক সাধারন সভা -২০১৯ এ সভাপতির ভাষনে এ কথা বলেন নীলফামারী জেলা শ্রমিক ঐক্য সংগ্রাম পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন। পূর্র্বের ন্যায় শ্রমিকদের অধিকার খর্ব হলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে তা মোকাবেলা করা হবে।মালিক ও শ্রমিকদের সু-সম্পর্ক তৈরি করে দেশের ও সমাজের উন্নয়নে নীলফামারীর শ্রমিকরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যাবে। ১৯৯৩ সালে নীলফামারীর ৪২ টি শ্রমিক ইউনিয়ন ঐক্যবদ্ধ ভাবে সমাজের নির্যাতিত, শোষিত শ্রমিকদের  অধিকার আদায়ে জেলা শ্রমিক ঐক্য সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়। আজ অবধি শ্রমিক অধিকার আদায়ে শ্রমিক ঐক্য অগ্রনী ভূমিকা রেখেছে বলে জানায় শ্রমিক নেতা জয়নাল আবেদীন। নীলফামারী সদর উপজেলা কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আবু বলেন, শ্রমিরা বিভিন্ন সময়ে শোষন ও বঞ্চনার শিকার হয়েছেন।জেলা শ্রমিক ঐক্য আমাদের পাশে থেকে সবসময় আমাদের সাহায্য সহোযোগিতা করেছেন। আগামী দিনে আমরা সমাজের নানা অসঙ্গতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে সমাজ গঠনে বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে নীলফামারী জেলার বিভিন্ন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি -সাধারন সম্পাদক বিভিন্ন সমস্যা, সুযোগ ও সুবিধা তুলে ধরে বক্তব্য রাখে।বার্ষিক সাধারন সভায় বক্তব্য রাখেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল জলিল,বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অষ্ট্রেলিয়া শাখার প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক আইজিদ আরাফাত অরূপ, শ্রমিক নেতা মহিউদ্দিন মহি, প্রমূখ। 

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ