বুধবার , ২২ মে ২০১৯ |

দেশকাল অনলাইন : বেতনভাতাবৃদ্ধি, নিরাপত্তা, নদীপথেচাঁদাবাজি ও সরকার নির্ধারিত কাঠামোয় বেতন দেয়াসহ ১১দফা দাবি পূরণের আশ্বাস পেয়ে সারাদেশে নৌ-ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছে বাংলাদেশ নৌযানশ্রমিক ফেডারেশন। মঙ্গলবার মধ্য রাতে শ্রম অধিদপ্তরের সভাকক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থানপ্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ানের সঙ্গে আন্দোলনরত মালিক-শ্রমিকদের বৈঠকে এসিদ্ধান্ত হয়। বৈঠকে শ্রম অসন্তোষ নিরসনে বাংলাদেশ নৌযানশ্রমিক ফেডারেশন কর্তৃক ঘোষিত ১১ দফা নিয়ে ত্রিপক্ষীয় (শ্রমিক, মালিক, সরকার) আলোচনা হয়। পরে কর্মসংস্থানপ্রতিমন্ত্রী জানান, আলোচনার মাধ্যমে শ্রমিকদের ডাকা অনির্দিষ্টকালেরধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে তাদের সমস্যাও দাবি মীমাংসা করা হবে। নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে মঙ্গলবারপ্রথম প্রহর থেকে এই ধর্মঘটে সারা দেশে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ থাকে। ঘাটে এসেলঞ্চ না পেয়ে ভোগান্তি পোহাতে হয় যাত্রীদের। ব্যবসায়ীরাও বিপাকে পড়েন। এদিকে লঞ্চ মালিকরা ওই দিন দুপুরে ধর্মঘট উপেক্ষাকরেই লঞ্চ ছাড়ার ঘোষণা দেন। এরপর দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি লঞ্চ ঢাকা সদরঘাট ছেড়েওযায়। কিন্তু পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা যায়নি। প্রতিমন্ত্রী তিনি আরো বলেন, ২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর গেজেটে উল্লেখিত যেসব বিষয় বাস্তবায়িত হয়নি,সেগুলো লিখিতভাবে শ্রম মন্ত্রণালয় বা শ্রম অধিদপ্তরকে জানালেসমাধানের উদ্যোগ নেবে সরকার। শ্রমিকদের সুষ্ঠু জীবনমানের সঙ্গে সম্পৃক্ত মানবিকবিষয়াদি অব্যাহত রাখার বিষয়টি ত্রিপক্ষীয় আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসা হবে। নৌযান শ্রমিকদের ১১ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে-নৌপথে চাঁদাবাজি ও ডাকাতি বন্ধ, ২০১৬ সালের ঘোষিত বেতন স্কেলেরপূর্ণ বাস্তবায়ন, ভারতগামী শ্রমিকদের ল্যান্ডিং পাসপ্রদান ও হয়রানি বন্ধ, নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীতে প্রয়োজনীয় মার্কা, বয়া ও বাতি স্থাপন,উৎসব ভাতা প্রদান, গেজেটের মাধ্যমে ছুটিঘোষণা, নৌযানে সন্ত্রাস সরকারি ব্যবস্থাপনায় কল্যাণতহবিল ও প্রভিডেন্ট ফান্ড গঠন, সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরেরঅনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে পদক্ষেপ, নৌযান চলাচলে বিভিন্নসমস্যা সমাধান, লাইটারেজ জাহাজের শ্রমিকদের শতভাগ খোরাকিভাতা ও ঝুঁকি ভাতা প্রদান। শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এমমিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন- শ্রম ও কর্মসংস্থান সচিবউম্মুল হাছনা, বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মো. শাহআলম ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আশিকুল আলম এবং নৌযানমালিক নেতারা।

 জাতীয় থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ