মঙ্গলবার , ২৩ July ২০১৯ |

 
কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ   গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মেদীআশুলাই এলাকায় গত বুধবার রাতে তোফাজ্জল হোসেন নামে এক যুবকে এলোপাতারি ভাবে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় শুক্রবার আহত যুবকের পিতা বাদী হয়ে ৫জনকে আসামী করে কালিয়াকৈর থানায় মামলা দায়ের করা হয়। 
আহত যুবক হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার মেদীআশুলাই গ্রামের বাদশার মিয়ার ছেলে মোঃ তোফাজ্জল হোসেন(৩২)।
আসামীরা হলেন, উপজেলার মেদী আশুলাই গ্রামের সফিকুল ইসলামের ছেলে  (১)মোঃ রাসেল,্একই এলাকার মৃত ভুলা মন্ডলের ছেলে (২)মোঃ সফিকুল ইসলাম ওরফে রসবালি(৩) ইয়াছিনের ছেলে মোশারফ(৪) মুনছুরের আলীর ছেলে নাজমুল(৫) সোরহাব আলীর ছেলে রাজিব উপজেলার মেদী আশুলাই গ্রামের বাসিন্দা। 
মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, বেশ কিছু দিন পূর্বে ওর সাথে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে কথা-কাটাকাটি হয় সেই জের ধরে গত বুধবার রাতে মোটরসাইকেল যোগে মেদীআশুলাই বাজারে ঔষধ আনতে যায়। ঔষধ নিয়ে আসার সংবাদ জানতে পারলে উৎপেতে থাকা রাসেল ওদের বাড়ীর পাশে রাস্তায় মাঝে কয়েকজন সন্ত্রাসী নিয়ে দাড়িয়ে থাকে। পরে রাসেল মোশারফ রাজীব, নাজমুল তাদের হাতে রামদা, হকিষ্ট্রিক, লাঠি এবং রড দিয়ে এলোপাতারি ভাবে  মারপিট করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। তার ডাকচিৎকারে আশে-পাশের লোকজন আগাইয়া আসলে বিবাদীগন খুন জখমের হুমকি দিয়ে চলে যায়। স্বজনরা আহত তোফাজ্জলকে উদ্ধার কালিয়াকৈর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
এবিষয়ে কালিয়াকৈর থানায় গতকাল শুক্রবার রাতে আহত যুবকের পিতা বাদী হয়ে ৫জনকে আসামী করে কালিয়াকৈর থানায় মামলা দায়ের করেন।
কালিয়াকৈর থানার পরির্দশক(এসআই) রাখাল চন্দ্র দেবনাথ জানান, মারামারির ঘটনায় ৫জনকে আসামী করে মামলা করা হয়েছে। তাদেরকে আটক করার চেষ্টা চলছে।


 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ