সোমবার , ২২ July ২০১৯ |

কুড়িগ্রাম সংবাদদাতা :  
কুড়িগ্রামে গত ৬দিন হতে থেমে থেমে ভারি বৃষ্টি চলছে। সুর্যের আলো দেখা দেয়নি। ঘর থেকে বের হতে না পাড়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। শ্রমজীবি মানুষরা পড়েছে বিপাকে। এদিকে বৃষ্টির পানি ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে কুড়িগ্রামের সব কটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে  নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এরকম পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে চর, দ্বীপচর-সহ নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলে বন্যা দেখা দিতে পারে। নদী তীরবর্তী বসবাসরত মানুষজন জানান, পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ধরলার তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের পাট, পটল ও বীজতলাসহ বিভিন্ন ফসল ডুবে গেছে। ইতোমধ্যে চর ও দ্বীপচর প্লাবিত হতে শুরু করেছে। ফলে নদী তীরবর্তী এলাকায় বন্যা পরিস্থিতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী সরকার জানান, চলমান বৃষ্টিপাত ও উজানের ঢলে ব্রহ্মপুত্র ও দুধকুমর নদের পানি বৃদ্ধি পেয়ে তার ইউনিয়নের পোড়ারচর, ঝুনকারচর, পশ্চিম ভগবতীপুর, চর পার্বতীপুর, কালির আলগা ও খেওয়ার আলগারসহ বেশ কিছু এলাকায় পানি ঢুকেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুল ইসলাম জানান, ‘বৃষ্টি ও ভারত থেকে নেমে আসা উজানের ঢলে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে। যদিও পানি এখনও বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে তবে এভাবে বাড়তে থাকলে জেলায় বন্যা দেখা দিতে পারে।’

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ