সোমবার , ২৬ আগষ্ট ২০১৯ |

জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকারকে একহাত নিয়েছেন সর্বভারতীয় মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিনের প্রধান ও হায়দরাবাদের সংসদ সদস্য আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। তিনি বলেছেন, ভারত সরকার কাশ্মীরকে ভালোবাসে, কিন্তু এখানকার জনগণকে ভালোবাসে না। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা গেছে।

জওহরলাল নেহরু কিংবা সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের মতো প্রজ্ঞা নেই বলে নরেন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করেন আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। এ ছাড়া রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংস্থাও একসময় কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ও ৩৫-ক অনুচ্ছেদের পক্ষে ছিল বলে জানান তিনি।

এ ছাড়া মোদি সরকারের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করা সম্পর্কে ওয়াইসি বলেন, ‘আমি জানি কাশ্মীরিদের জন্য এই (মোদি) সরকারের কোনো ভালোবাসা নেই। এ সরকার কাশ্মীর ভূখণ্ডকে ভালোবাসে, কিন্তু সেখানকার মানুষকে নয়। তারা (সরকার) ক্ষমতাকে ভালোবাসে, কিন্তু ন্যায়বিচারকে নয়।’

আসাদুদ্দিন আরো বলেন, ‘তারা (সরকার) কেবল ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। কিন্তু আমি তাদের স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, কেউ চিরদিন বেঁচে থাকে না কিংবা শাসন করতে পারে না।’ এ ছাড়া আসাদুদ্দিন ওয়াইসি ভারত সরকারের ৩৫-ক অনুচ্ছেদ বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। কাশ্মীর থেকে অনুচ্ছেদটি বাতিল করা হলে কেন আসাম, মিজোরাম ও নাগাল্যান্ডে এখনো অনুচ্ছেদটি বহাল রয়েছে, তা জানতে চান ওয়াইসি।

তিনি আরো জানান, মোদি সরকার ভারতের সংবিধান ও সংহতির পরিপন্থী একটি ঐতিহাসিক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অবরুদ্ধ কাশ্মীরবাসীকে মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ওয়াইসি বলেন, ‘(মোদি) সরকার জম্মু ও কাশ্মীরে সবকিছু পরিপাটি আছে এমন একটি চিত্র তুলে ধরছে। তাহলে কেন সেখানকার জনগণকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে? কেন তাঁরা যোগাযোগের সুযোগ থেকে বঞ্চিত? তাঁরা (কাশ্মীরের জনগণ) যদি এতই খুশি থাকেন, তাহলে তাঁদের (কাশ্মীর থেকে) বেরিয়ে আসতে দিন, আনন্দ উদযাপন করতে দিন।’ কাশ্মীরের কোনো মুসলমান সাংবাদিক সরকারের পক্ষে নেই বলেও দাবি করেন ওআইসি।

মোদি সরকার গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের সাংবিধানিক স্বায়ত্তশাসনের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার পর ওই উপত্যকা অঞ্চলে অচলাবস্থা চলছে। কাশ্মীরে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে ভূখণ্ডটিকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে রেখেছে ভারত সরকার।
-- ইন্ডিয়া টুডে

 সারাবিশ্ব থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ