মঙ্গলবার , ১৫ অক্টোবর ২০১৯ |

এলাকাবাসীর বিক্ষোভ ও প্রতিরোধ

আবরারের মায়ের সাথে দেখা না করেই পুলিশ প্রহরায় সটকে পড়লেন বুয়েট ভিসি

  বুধবার , ০৯ অক্টোবর ২০১৯

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :

৩৬ ঘন্টা পর কুষ্টিয়ায় আবারের গ্রামের বাড়িতে তার কবর জিয়ারত করতে এসে এলাকাবাসীর বাঁধার মুখে পড়লেন ভূয়েট ভিসি মো. সাইফুল ইসলাম। বাঁধার মুখে তিনি আবরার ফায়াদের মায়ের সাথে দেখা না করেই দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। ভিসি কুষ্টিয়া সার্কিট হাউজে আসেন বিকেল ৪টায়, এরপর আবরারের গ্রামে যান বিকেল সাড়ে ৪টায়, কবর জিয়ারত করে ৪টা ৪০ মিনিটের দিকে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। এরপর রওনা দেন আবরারের বাড়ির দিকে সেখানে ৪টা ৪৫ মিনিটের দিকে আবরারের বাড়ির সামনে নারীদের বাঁধার মুখে পড়েন।  এরপর গাড়ি থেকে নেমে এগুতো না পেরে গাড়িতে উঠে সটকে পড়েন। সে সময় জেলা প্রশাসক , পুলিশ সুপার, জেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।  পরে স্থানীয়রা নারী-পুরুষ মিছিল করে প্রতিবাদগ জানান। ভিসির কাছে জানতে যান আবরার নিহত হওয়ার পর কেন জানাযায় জাননি, এখন কেন বাড়িতে আসলেন, আবরারকে কেন মারা হল এই নিয়ে জানতে চেয়ে নারীরা বিক্ষোভ করে।পরে ভিসি পুলিশ প্রহরায় ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত চলে যান। উত্তেজিত জনতাকে শান্ত থাকার আহাবান জানান আওয়ামী লীগ নেতারাসহ প্রশাসনের লোকজন। তারপরও আবরারের পরিবারের সদস্যরা প্রতিবাদ করে ভিসির কর্মকান্ডের। এ সময় মৃদু উত্তেজনা তৈরি হয়। স্থাণীয়রা মারমুখী হয়ে উঠলে পুলিশ বাঁশি মেরে পরিস্থিতি  নিয়ন্ত্রন আনেন। পরে ভিসির সাথে আইন শৃংখলা বাহিনীর লোকজন ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। ঘন্টাখানেক পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে। এ সময় আবারের পরিবার থেকে অভিযোগ করা হয় পুলিশের কয়েকজন সদস্য তাদের তাদের খারাপ ব্যবহার করেছেন , তাদের হামলায় আবারের ছোট ভাই ও তার ফুফু আহত হয় বলে অভিযোগ।

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ