সোমবার , ১৬ অক্টোবর ২০১৭

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষের চলমান ভর্তি পরীক্ষার ৮ম দিনে প্রক্সি পরীক্ষা দেওয়ার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। রোববার সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে এ রায় দেওয়া হয়। আটকৃত রাকিবুল হাসান (১৯) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র। রোববার সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের (‘বি’ ইউনিট) প্রথম শিফটের পরীক্ষা চলাকালে প্রবেশ পত্রের ছবির সাথে মিল না পাওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে রাকিবুলকে আটক করা হয়। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলায়। তিনি কামরুজ্জামান লিজু নামে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর সাথে মোটা অঙ্কের টাকার চুক্তিতে জাবিতে প্রক্সি দিতে আসেন। জয়নুল আবেদিন (রোল ২১৫৪১৯) নামে এক শিক্ষার্থীর পরিবর্তে পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েল বিজয় একাত্তর হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। আটককৃত রাকিবুল সাংবাদিকদের সামনে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনা স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে রায় প্রদানকারী বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রণব কুমার ঘোষ বলেন, ১৮৬০ এর ১৮৮ ধারায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের যে নির্দেশনা ছিল তা সে অমান্য করেছে। এজন্য তাকে ৬ মাসের জন্য বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। তার সাথে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আরো ৩ জন এসেছে। সে প্রথমে আদালতকে ভুল তথ্য দিয়েছে। তার এটিচিউড ছিল অন্যান্য চক্রদের নিয়ে দাঙ্গা ঘটানোর। তার সঙ্গে অনেক বড় চক্র জড়িত। তার ফেসবুক মেসেঞ্জার থেকে অনেক তথ্য পেয়েছি। সে চেষ্টা করেছিল তার বয়স ১৮’র নিচে রাখার জন্য যাতে সে কিশোর অপরাধী হিসেবে কম সাজা পায়। তার সাথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ইডেন মহিলা কলেজের অনেকে জড়িত। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাকি জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।
এর আগে গত সোমবার (৯ অক্টোবর) একই অভিযোগে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ¯œাতক ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী কামরুজ্জামান রাজ্জাক ও জাবির ভূতাত্ত্বিক বিজ্ঞান বিভাগের ৪৬ ব্যাচের শিক্ষার্থী মোহাইমিনুল ইসলাম সালমাকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদ- দেয় ভ্রাম্যমান আদালত।

 আদালত থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ