বুধবার , ১৬ আগষ্ট ২০১৭

কাশ্মীর ঢুকে পড়ার চেষ্টা চীনা সেনাদের, মারপিট

নিজস্ব প্রতিবেদক   বৃহস্পতিবার , ০১ জানুয়ারী ১৯৭০

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মীরের লাদাখ সীমান্তে দুই দফা ঢুকে পড়ার চেষ্টা করেছে চীনা সেনারা।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু ও কাশ্মীরের লাদাখ সীমান্তে দুই দফা ঢুকে পড়ার চেষ্টা করেছে চীনা সেনারা।

মঙ্গলবার কাশ্মীরের লাদাখে পশ্চিম হিমালয় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এতে ভারতীয় সেনারা বাধা দিলে তাদের লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ে মারে চীনা সেনারা।

এক পর্যায়ে উভয় পক্ষে ধস্তাধস্তি ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়।

সিকিম সীমান্তে ডোকলামকে ঘিরে চীন ও ভারতের মধ্যে গত দুই মাস ধরে টানাপোড়েনের মধ্যে লাদাখে ঢুকে পড়ার চেষ্টা করলো চীনা সেনারা।

এ ঘটনায় দুই দেশের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে।

সীমান্তের সামরিক পরিস্থিতি অবহিত করা হয়েছে নয়াদিল্লির এমন একটি সূত্র সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, লাদাখের পাংগং হৃদের কাছে চীনা সেনা বাহিনীর একটি দলের ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে পড়ার চেষ্টা নস্যাত করে দেয়া হয়েছে।

এ সময় চীনা সেনাদের হাতে লোহার রড এবং পাথর ছিল। উভয় পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্যে উভয় পক্ষে কয়েকজন সামান্য আহত হয়েছে বলে জানায় সূত্র।

তবে ঘটনার ব্যাপারে চীনের প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

চীন ও ভারত প্রায় সময়েই পরষ্পরের বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগ করে থাকে। কিন্তু তাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা খুবই বিরল।

ভারতীয় সামরিক বাহিনী ঘটনার ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে।

ঘটনার বিষয়ে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগরের একজন পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, পাংগং হৃদের কাছে উভয় পক্ষের বিবাদ হয়েছে।

এছাড়া শ্রীনগেরর একটি সেনা সূত্রও বলেছে, চীনা সেনারা পাংগং হৃদ এলাকায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে উভয় পক্ষে বিবাদের ঘটনা ঘটেছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এবিপি আনন্দ জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর ৬টা এবং সকাল ৯টার দিকে পাংগং হৃদ সংলগ্ন ফিঙ্গার ফোর ও ফিঙ্গার ফাইভ অঞ্চল দিয়ে চীনা সেনারা ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশের চেষ্টা করে।

চীনা সেনার সামনে এগোতে থাকলে ভারতীয় জওয়ানরা মানবপ্রাচীর গড়ে তুলে তাদের বাধা দেয়। এ সময় চীনা সেনারা তাদের লক্ষ্য করে পাথর ছুড়ে মারে। জবাবে ভারতীয় সেনারাও পাথার ছোড়ে। এনিয়ে উভয়পক্ষে কয়েকজন আহত হয়।

সেনা সূত্রের বরাতে এবিপি আনন্দ জানায়, প্রায় ৩০ মিনিট ধরে সংঘাত চলে। তবে পরিস্থিতি মাত্রাতিরিক্ত অবনতি হওয়ার আগে উভয় পক্ষই নিয়মমাফিক ব্যানার ড্রিল করে নিজ নিজ জায়গায় ফিরে যায়।

উল্লেখ্য, কাশ্মীরের বিখ্যাত পাংগাং হৃদের ৯০ কিলোমিটার চীনের এবং ৪৫ কিলোমিটার ভারতের দখলে রয়েছে। তবে উভয় দেশই পুরো হৃদের মালিকানা দাবি করে আসছে।

১৯৯০ সালে ভারত ওই এলাকার নিয়ন্ত্রণ দাবি করলে চীন তা নাকচ করে দেয়। পরে দেশটি ফিঙ্গার ফোর অঞ্চল পর্যন্ত পাকা সড়ক তৈরি করে শক্ত অবস্থান গড়ে তোলে।

এখন সিকিম সেক্টরে ডোকালাম নিয়ে চীন ও ভারতের সেনাদের চলমান উত্তেজনার মধ্যে পাংগাংয়ে হানা দিল চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)।

 আরোও সংবাদ

আর্কাইভ