বৃহস্পতিবার , ০২ নভেম্বর ২০১৭

মোবাইল চুরির অভিযোগে ৪ বছরের শিশুকে নির্যাতন

  বৃহস্পতিবার , ০২ নভেম্বর ২০১৭

মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরের বামনী এলাকায় চার বছরের শিশু পিয়াসকে নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাত ১০টার দিকে গুরুতর আহত অবস্থায় পিয়াসকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক।

বুধবার সন্ধ্যায় মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে একই এলাকার তৌহিদুল ইসলামের ছেলে রাকিব হোসেন শিশু পিয়াসকে ডেকে নিয়ে বস্তাভরে নির্যাতন করে বলে অভিযোগ করেন শিশুর বাবা। পিয়াসের চোখ, মুখে ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পিয়াস রায়পুরের বামনি গ্রামের মো. সোহেলের ছেলে।পুলিশ জানায়, রাকিব হোসেনের একটি মোবাইল ফোন কে বা কারা নিয়ে যায়। ওই মোবাইল ফোন চুরির অপবাদ দিয়ে সন্ধ্যায় পিয়াসকে ডেকে নেয় রাকিব হোসেন। পরে চুরির অপবাদ দিয়ে বেদম মারধর করে তাকে। এক পর্যায়ে বস্তাবন্দি করে নির্যাতন করা হয় বলে দাবী করেন শিশুর বাবা। শিশু পিয়াসকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে, পরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।পরে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পিয়াসকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। পিয়াসের অবস্থায় আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. নাছির উদ্দিন। তিনি জানান, শিশু পিয়াসের চোখ ও মুখে মারাত্মক জখমের চিহ্ন রয়েছে। রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম আজিজুর রহমান মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় শিশুটির পরিবারের পক্ষে থেকে এখনও অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

 সারা বাংলা থেকে আরোও সংবাদ

আর্কাইভ