রবিবার , ১২ এপ্রিল ২০২০ |

গাজীপুরের সিভিল সার্জনসহ ১২ সহকর্মী কোয়ারেন্টাইনে

অনলাইন ডেস্ক   রবিবার , ১২ এপ্রিল ২০২০

গাজীপুরে শনিবার পাঁচজনের দেহে করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) পাওয়ার পর দেড় শতাধিক ব্যক্তিকে রবিবার ভোর থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। এদের মধ্যে গাজীপুরের সিভিল সার্জন ও তার অফিসের ১২ কর্মকর্তা-কর্মচারীও রয়েছেন। সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুজ্জামান নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শনিবার গাজীপুর মহানগরীর চারজন ও কাপাসিয়ার এক ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষার পর করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে। ওই পাঁচজনের মধ্যে তার অফিসের নাইটগার্ডও রয়েছেন।

সিভিল সার্জন বলেন, করোনা রোগীরা যাদের সংস্পর্শে আসেন তাদেরও সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে। এজন্য তিনিসহ তার অফিসের ১৩ কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সংস্পর্শে আসা মোট ১৫০ জনকে শনাক্ত করে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শনিবার ওই কর্মচারীরা নমুনা রিপোর্টে করোনা পজিটিভ আসে। তাকে তাৎক্ষণিকভাবে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

সিভিল সার্জন জানান, করোনা সংক্রমণ রোধে শনিবার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অন্য স্টাফদেরও নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। তিনি সরকারি বাসাতে কোয়ারেন্টাইনে থেকেই কাজ করছেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, শনিবার পর্যন্ত জেলায় ২ হাজার ৯৪৪ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এর মধ্যে দুই হাজার ৫৮৩ জন নির্দিষ্ট সময়ের পর কোয়ারেন্টাইন ছেড়ে চলে গেছেন।

এখন পর্যন্ত ৩০১ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। এর মধ্যে ১১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। পরিস্থিতি অবনতি ঘটায় শনিবার সন্ধ্যা থেকে জেলা প্রশাসন গাজীপুর জেলা লকডাউন ঘোষণা করেছে।

 রাজধানী থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ