রবিবার , ১২ এপ্রিল ২০২০ |

খুনী মাজেদের ফাঁসিতে জনমনে স্বস্তি

  রবিবার , ১২ এপ্রিল ২০২০

জাকির এইচ. তালুকদার ঃ
জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনী মাজেদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় জনমনে স্বস্তি এসেছে। সে শুধু বঙ্গবন্ধুই নয় শিশু শেখ রাসেলেরও খুনী। এই নরপশুকে ফাঁসির রসিতে ঝুলিয়ে মারার সাথে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্ঠা বঙ্গবন্ধুর যে অপুরণীয় ঋণ তা কিঞ্চিত হলেও শোধ হয়েছে বলে মনে করছেন সুধী সমাজ।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্ম-স্বীকৃত খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) আবদুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর করা নিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম প্রকাশ করেছে। লন্ডন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি শিরোনাম করেছে, ‘ÔSheikh Mujibur Rahman: Army officer hanged formurder of Bangladesh's founding president (শেখ মুজিবুর রহমান : বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতির খুনি সেনাবাহিনী কর্মকর্তাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়েছে। কাতার ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা শিরোনাম করেছে ‘ÔBangladesh hangs killer of founding fatherMujibur Rahman  (জাতির পিতার খুনিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়েছে বাংলাদেশ)। পাকিস্তানের জনপ্রিয় ডন এর শিরোনাম ঠিক এরকম ‘Bangladeshexecutes killer of Sheikh Mujibur Rahman (শেখ মুজিবুর রহমানের খুনির ফাঁসি কার্যকর করেছে বাংলাদেশ)। এপি’র বরাত দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক টাইমস লিখেছে ‘Bangladeshexecutes killer of Sheikh Mujibur Rahman  (স্বাধীনতার নেতার হত্যাকারীর ফাঁসি কার্যকর করেছে বাংলাদেশ)’। ভারতের এনডিটিভি লিখেছে ‘BangladeshExecutes Ex-Army Captain Who Assassinated Sheikh Mujibur (শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকারী সাবেক সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেনের ফাঁসি কার্যকর করেছে বাংলাদেশ)। প্রতিবেনের ভেতরে তারা লিখেছে, পাকিস্তানের কাছ থেকে স্বাধীনতা অর্জনের চার বছরের মাথায় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যদের একদল বিপথগামী সেনা সদস্য নির্মমভাবে হত্যা করে। এছাড়া ভারতের দ্য হিন্দু, দ্য ইকোনোমিক টাইমস থেকে শুরু করে অধিকাংশ সংবাদমাধ্যমেই এই খবর এসেছে। সংযুক্ত আরব আমিরাতের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমস শিরোনাম করেছে ‘Bangladeshexecutes killer of founding leader (জাতির স্থপতির খুনির ফাঁসি কার্যকর করেছে বাংলাদেশ)।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাকি পাঁচ খুনিকে বাংলার মাটিতে এনে আমাদের সর্বোচ্চ আদালতের দেওয়া রায় কার্যকর করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, আব্দুল মাজেদের ফাঁসি কার্যকর হলেও আমাদের কাজ এখনও শেষ হয়নি। জনগণকে দেওয়া প্রতিশ্রুতির কিছুটা হয়তো পালন করতে পেরেছি।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর খুনিদের মধ্যে একজন আব্দুল মাজেদের ( বরখাস্ত ক্যাপ্টেন) ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।  জাতি আবার দায়মুক্ত হলো। তার ফাঁসি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ হতে দেশবাসীর জন্য মুজিব বর্ষের উপহার।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর খুনি আব্দুল মাজেদের ফাঁসির রায় কার্যকরে দেশবাসী স্বস্তি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।
এ প্রসঙ্গে দৈনিক দেশকালের সম্পাদক, সাবেক সচিব মোঃ কামালউদ্দিন তালুকদার বলেন, ১৫ আগষ্ঠে স্বপরিবারে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যারা হত্যা করেছে তারা পৃথিবীর সবচেয়ে ঘৃণিত ও জঘন্য অপরাধী। এমন নিষ্ঠুর হত্যাকান্ডের বিচার আরো আগেই হওয়া প্রয়োজন ছিলো। তিনি বলেন, অন্যদের পর খুনী মাজেদকে ফাঁসি কার্যকর করা বাংলাদেশীদের জন্য একটি বিরাট সুসংবাদ। তিনি এজন্য রাষ্ট্রপতির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
১৫ আগষ্ঠ পরবর্তী সময়ে পুলিশ বিভাগের সংশ্লিষ্ঠ দায়িত্বে নিযুক্ত থেকে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মস্বীকৃত খুনী এই মাজেদকে গ্রেফতার করে পুত্রহারা পুলিশের সাবেক আইজি জনাব আব্দুল মাবুদ বলেন, মাজেদ হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শিশু শেখ রাসেলের খুনী। ইতিহাসের জঘন্যতম এই অপরাধীর ফাঁসি কার্যকর করার পর আমি অত্যন্ত আনন্দিত ও তৃপ্ত বোধ করছি। জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যাকারী বাকী খুনীদেরও দেশে এনে ফাঁসি কার্যকর করার জন্য প্রধানমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ঠ সবার প্রতি তিনি অনুরোধ জানান।
এবিষয়ে তৎকালীন সময়ে অবরুদ্ধ থাকা বিশিষ্ঠ্য লেখক নিমচন্ত্র ভৌমিক বলেন, ১৫ আগষ্টে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের ধারাবাহিকতা থামিয়ে দেওয়ার যে জঘন্যতম ঘটনা ছিলো বঙ্গবন্ধুকন্যার মাধ্যমে সেই অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনাটাই ছিলো জাতীর জন্য আরেকটি কলঙ্কমুক্তির ইতিহাস। এমন নির্মম ঘটনার হোতাদের ফাঁসি কার্যকরের মাধ্যমে বাঙ্গালী জাতি কিছুটা হলেও দায়মুক্ত হবার স্বস্তি পাচ্ছে বলে মনে করেন তিনি। তিনি বলেন, মাজেদের মত নির্মম খুনিদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মারার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দ্বার আবার নতুন করে উন্মোচিত হচ্ছে। তিনি অন্য খুনীদের দ্রুত এনে ফাঁসি কার্যকরের আশাবাদ ব্যক্ত করে।
বঙ্গবন্ধুর খুনী মাজেদের ফাঁসিতে দেশকাল পরিচালনা পর্ষদও আনন্দ ও স্বস্তি প্রকাশ করেছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী এধরনের অপরাধীমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে একে অভিষ্ঠ্য লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে সক্ষম হবেন বলে মনে করে দেশকাল পরিচালনা পর্ষদ।  
 
 

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ