মঙ্গলবার , ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১ |

করোনাকালে যাদের হারিয়েছে বাংলাদেশ

রাসেল আহম্মেদ   শুক্রবার , ০১ জানুয়ারী ২০২১

করোনা মহামারির ফলে ২০২০ সালে রাজনীতি,চলচ্চিত্র, শিক্ষা, সাহিত্য, ক্রীড়া ও সংস্কৃতি অঙ্গনের অনেককে হারিয়েছে বাংলাদেশ।মহামারির ফলে অন্য বছরের তুলনায় এই বছরটিতে মৃত্যুর এই তালিকাটিও বেশ দীর্ঘ।

ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি

সাবেক সংসদ সদস্য ফজিলাতুন্নেসারবাপ্পি নিউমোনিয়া ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার চার দিন পর ২ জানুয়ারিতার মৃত্যু ঘটে। পরে নমুনা পরীক্ষায় তার সোয়াইন ফ্লু সংক্রমণের বিষয়টি ধরা পড়ে।

পেশায় আইনজীবী বাপ্পির বয়স হয়েছিল ৪৯বছর। যুব মহিলা লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনের পর নবম ও দশম সংসদেসংরক্ষিত আসনের সদস্য ছিলেন তিনি।

আবদুল মান্নান

সংসদ সদস্য আবদুল মান্নান ৬৬ বছর বয়সে১৮ জানুয়ারি মারা যান। ছাত্রলীগের সাবেক এই সভাপতি এক সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিকসম্পাদকের দায়িত্বও পালন করেন।

ইসমাত আরা সাদেক

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সাবেকপ্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক ২১ জানুয়ারি মারা যান।

যশোর-৬ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যছিলেন তিনি। ওই আসনে এক সময় তার স্বামী সাবেক শিক্ষামন্ত্রী এএইচএসকে সাদেক সংসদসদস্য ছিলেন। 

রহমত আলী

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেটরহমত আলী ৭৫ বছর বয়সে ১৬ ফেব্রুয়ারি মারা যান। তিনি বার্ধক্যজনিত নানা রোগেভুগছিলেন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য রহমত আলী গাজীপুর-৩(শ্রীপুর-ভাওয়ালগড়-পিরুজালী-মির্জাপুর) আসন থেকে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

১৯৯৯ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০০১ সালেরজুলাই পর্যন্ত তিনি স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রীরদায়িত্বও পালন করেন। 

বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েররাষ্ট্রবিজ্ঞানের সাবেক শিক্ষক বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর ২৩ মার্চ চিরবিদায় নেন।৮৪ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি।

বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর কবিতা,গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ, শিল্প সমালোচনা, সাহিত্য সম্পাদনার ক্ষেত্রে ছিলেন অনন্য।

ছোটগল্পে অবদানের জন্য ১৯৬৯ সালে তিনিবাংলা একাডেমি পুরস্কার পান; শিক্ষা ও গবেষণায় অবদানের জন্য ২০০৯ সালে পান একুশেপদক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপনার পরজাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যের দায়িত্বও পালন করেন বোরহানউদ্দিনজাহাঙ্গীর।

শামসুর রহমান শরীফ ডিলু

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা শামসুর রহমানশরীফ ডিলু ৮৪ বছর বয়সে ২ এপ্রিল মারা যান। তিনি বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন।

পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য ডিলু ওইএলাকা থেকে পাঁচ বার নির্বাচিত হন। আমৃত্যু পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেনতিনি। একাত্তরে ৭ নম্বর সেক্টর থেকে তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন।

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান থেকে ১৯৯৬সালে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর কখনও ভোটে হারেননি তিনি। ২০১৪ সালেরআওয়ামী লীগ সরকারে ভূমিমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন তিনি। 

রাখী দাশ পুরকায়স্থ

দেশের নারী আন্দোলনের অন্যতম নেত্রী,মুক্তিযোদ্ধা রাখী দাশ পুরকায়স্থ ৬৮ বছর বয়সে ৬ এপ্রিল মৃত্যুবরণ করেন। লিভারেরচিকিৎসা নিতে ভারতের আসামে গিয়েছিলেন তিনি, সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের সাবেকযুগ্ম সচিব রাখী দাশ মহিলা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তার স্বামী পঙ্কজভট্টাচার্য বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও সামাজিক আন্দোলনের নেতা। 

সুফিয়া আহমেদ

ভাষাসৈনিক ও দেশের প্রথম নারী জাতীয়অধ্যাপক সুফিয়া আহমেদ ৮৭ বছর বয়সে ১০ এপ্রিল মারা যান। তিনি বার্ধ্যক্যজনিত রোগেভুগছিলেন। ভাষা আন্দোলনে অবদানের জন্য ২০০২ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ওবিচারপতি মুহাম্মদ ইব্রাহিমের মেয়ে সুফিয়া আহমেদ। তার স্বামী ছিলেন দেশেরখ্যাতিমান আইনজীবী, তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ব্যারিস্টার সৈয়দ ইশতিয়াকআহমেদ। 

সা’দত হুসাইন

মন্ত্রিপরিষদের সাবেক সচিব, পিএসসিরসাবেক চেয়ারম্যান সা’দত হুসাইন ৭৩ বছর বয়সে ২২ এপ্রিল মারা যান। তিনি কিডনিরজটিলতাসহ নানা সমস্যায় ভুগছিলেন।

রোজিনা আক্তার

বাংলাদেশ টেলিভিশনের প্রথম নারীক্যামেরাপারসন রোজিনা আক্তার ২৪ এপ্রিল মারা যান। তিনি রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনেরজ্যেষ্ঠ ক্যামেরাপারসন পদে কর্মরত ছিলেন।

জামিলুর রেজা চৌধুরী

জাতীয় অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী ২৮এপ্রিল চিরবিদায় নেন। ৭৭ বছর বয়সে হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে(বুয়েট) দীর্ঘদিন অধ্যাপনা করা জামিলুর রেজা চৌধুরী ১৯৯৬ সালের তত্ত্বাবধায়কসরকারের উপদেষ্টাও ছিলেন।

বুয়েট থেকে অবসরে যাওয়ার পর ২০০১ সালেব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপচার্য হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি। মৃত্যুর সময়ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের উপাচার্য ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু সেতু, পদ্মা বহুমুখী সেতু,ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, কর্ণফুলী টানেলসহ দেশের বিভিন্ন বড় অবকাঠামো প্রকল্পেবিশেষজ্ঞ প্যানেলের নেতৃত্বে ছিলেন তিনি।

দেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি খাতেঅবদানের জন্য ২০১৭ সালে সরকার তাকে একুশে পদক দেয়।

জাপান সরকার জামিলুর রেজা চৌধুরীকেসম্মানজনক 'অর্ডার অব দ্য রাইজিং সান, গোল্ড রেইস উইথ নেক রিবন' খেতাবে ভূষিত করে।ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটি থেকে সম্মানসূচক ডক্টর অব ইঞ্জিনিয়ারিংডিগ্রি পাওয়া একমাত্র বাংলাদেশি তিনি। 

হাবিবুর রহমান মোল্লা

ঢাকা-৫ (ডেমরা-দনিয়া-মাতুয়াইল) আসনেরসংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা ৭৮ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত জটিলতায় ৬ মে মারা যান।

আনিসুজ্জামান

১৪ মে মারা যান দেশের বুদ্ধিবৃত্তিকআন্দোলনের ‘বাতিঘর’ অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। ৮৩ বছর বয়সী এই অধ্যাপক বার্ধক্যজনিক জটিলতায়ভুগছিলেন, এর মধ্যে তারও করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ে।

বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অবদানের জন্যবাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ও একুশে পদকে ভূষিত ছিলেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।ভারত সরকারের পদ্মভূষণ খেতাবও পান তিনি।

১৯৫২ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সেইআনিসুজ্জামান মাতৃভাষা রক্ষার আন্দোলনে সম্পৃক্ত হয়ে ‘রাষ্ট্রভাষা কী ও কেন?’শিরোনামে রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনের ওপর প্রথম পুস্তিকা রচনা করেন।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালেসংবিধানের ইংরেজি খসড়া তৈরি হয় কামাল হোসেনের নেতৃত্বে, বাংলায় অনুবাদ করেনআনিসুজ্জামান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রামবিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলার অধ্যাপকের পরিচয় ছাপিয়ে সাহিত্য-গবেষণা, লেখালেখি, সাংগঠনিককার্যক্রম ও সঙ্কটকালে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যের জন্য অনেকের চোখে তিনি ছিলেন‘জাতির অভিভাবক’। 

আজাদ রহমান

আজাদ রহমানের গত  ১৬ মে; ৭৬ বছরবয়সে মারা যান। হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী এই সুরকার,সঙ্গীত পরিচালক ও কণ্ঠশিল্পীর।

বাংলাদেশে খেয়াল জনপ্রিয় করার পেছনেআজাদ রহমানের অবদান সবচেয়ে বেশি। তিনি বেশ কিছু দিন নজরুল ইনস্টিটিউটেও পড়িয়েছেন।

‘জন্ম আমার ধন্য হলো মা গো’র মতোকালজয়ী দেশাত্মবোধক গানে সুরটি আজাদ রহমানই বেঁধেছেন। চলচ্চিত্রে অনেক গানেরসুরস্রষ্টা হিসেবে তিনি ছিলেন জনপ্রিয়ও। 

হাসান ইমাম

নৃত্যশিল্পী, নৃত্যপরিচালক হাসান ইমাম৬৭ বছর বয়সে ১৬ মে মারা যান। পরিবার জানায়, হৃদরোগে তার মৃত্যু হয়। করোনাভাইরাসেবোনের মৃত্যুর তিন দিন পর তার মৃত্যু ঘটে।

দেশের ‍নৃত্যশিল্পীদের মধ্যে অগ্রগন্যহাসান ইমাম টেলিভিশন নৃত্যশিল্পী সংস্থার সাবেক সভাপতি; সুরঙ্গমা একাডেমি নামেএকটা নাচের স্কুল পরিচালনা করতেন।

মজিবর রহমান দেবদাস

নাম বদলে পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠীরনিপীড়নের প্রতিবাদ জানানো সেই মজিবর রহমান দেবদাস ১৮ মে মারা যান। ৯২ বছর বয়সেজয়পুরহাটের ভাদসা ইউনিয়নের মহুরুল গ্রামে নিজের বাড়িতে বার্ধক্যজনিত কারণে তারমৃত্যু ঘটে।

মজিবর রহমানের জন্ম ১৯২৮ সালে। ঢাকাবিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত গণিতে পড়াশোনা শেষ করে তিনি বগুড়া ও কুমিল্লার দুটি কলেজেঅধ্যাপনা করেন। পরে মেলবোর্নে যান উচ্চতর শিক্ষার জন্য। ফিরে এসে তিনি যোগ দেনকরাচি বিশ্ববিদ্যালয়ে। পরে সেখান থেকে চলে আসেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে, যোগ দেনগণিত বিভাগে।

১৯৭১ সালে পাকিস্তানিদের নিপীড়নের মুখেবাংলাদেশের অনেক হিন্দু যখন জীবন বাঁচাতে মুসলমান নাম নিচ্ছিলেন, তখন নিজের নামপরিবর্তন করে ‘দেবদাস’ রাখেন মজিবর রহমান।

এরপর মুক্তিযুদ্ধকালীন রাজশাহীবিশ্ববিদ্যালয়ের জোহা হল থেকে তাকে ধরে নিয়ে যায় পাক হানাদার বাহিনী। তাদেরবর্বরতায় অধ্যাপক দেবদাস মানসিক ভারসাম্য হারান। মুক্তিযুদ্ধের পর তিনি অধ্যাপনাথেকে স্বেচ্ছায় অবসরে যান ১৯৭৩ সালে।

স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর ২০১৫ সালে এইগুণীকে একুশে পদক দিয়ে সম্মান জানায় সরকার।

মকবুল হোসেন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪ মে মারাযান আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, ঢাকার সাবেক সংসদ সদস্য হাজি মকবুলহোসেন।

নিলুফার মঞ্জুর

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৬ মে ঢাকারসানবিমস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ নিলুফার মঞ্জুর মারা যান।

বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়ী ওতত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা সৈয়দ মঞ্জুর এলাহীর স্ত্রী নিলুফার ১৯৭৪সালের ১৫ জানুয়ারি ঢাকার সানবিমস স্কুলের প্রতিষ্ঠা করেন, যা এখন দেশের অন্যতমসেরা ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত।

আবদুল মোনেম

মোনেম গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুল মোনেম৩১ মে মারা যান। ৮৬ বছর বয়সী এই ব্যবসায়ীর ব্রেইন স্ট্রোক হয়েছিল।

বাংলাদেশে ছোট থেকে শুরু করে বড়ব্যবসায়ী ব্যক্তির ক্ষেত্রে মোনেম বড় উদাহরণ হিসেবে বিবেচিত। নির্মাণ খাতেরব্যবসার সাফল্য তাকে বড় উচ্চতায় নিয়ে যায়।

ক্রীড়ামোদী মোনেম ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৪-৯৫মৌসুম পর্যন্ত ঢাকার মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের সভাপতি ছিলেন।

এন আই খান

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিনবিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. নুরুল ইসলাম খান বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগে৬ জুন মারা যান।

এই মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এন আই খান নামেইপরিচিত ছিলেন।

মোহাম্মদ নাসিম

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকরোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ব্রেইন স্ট্রোকে ১৩ জুন মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়সহয়েছিল ৭২ বছর।

জাতীয় নেতা ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীরছেলে নাসিম ষাটের দশকে ছাত্র আন্দোলনে যুক্ত হয়ে রাজনীতিতে পা রাখেন। ১৯৭৫ সালের ৩নভেম্বর কারাগারে মনসুর আলী হত্যাকাণ্ডের শিকার হওয়ার পর আওয়ামী লীগে সক্রিয় হনতিনি।

১৯৮৬ সাল থেকে ছয় বার সিরাজগঞ্জ থেকেসংসদ সদস্য নির্বাচিত হন নাসিম। ১৯৯১ সালের সংসদে বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ ছিলেনতিনি। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগের সরকারে তিনি ডাক ও টেলিযোগাযোগ, গৃহায়ন ও গণপূর্তএবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৪ সালে শেখ হাসিনার সরকারেস্বাস্থ্যমন্ত্রী ছিলেন তিনি। 

শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আবদুল্লাহ১৩ জুন হার্ট অ্যাটাকে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

আওয়ামী লীগের সাবেক ধর্ম বিষয়ক সম্পাদকশেখ আব্দুল্লাহ গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণবিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন। গোপালগঞ্জে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার আসনেতার প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন শেখ আব্দুল্লাহ।

তিনি টেকনোক্র্যাট কোটায় ২০১৮ সালেধর্ম প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। 

সাইফুল আজম

যুদ্ধক্ষেত্রে বৈমানিক হিসেবেবীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য যুক্তরাষ্ট্র বিমানবাহিনী কর্তৃক ‘লিভিং ঈগল’স্বীকৃতিধারী সাইফুল আজম ৮০ বছর বয়সে ১৪ জুন মারা যান।

১৯৬৭ সালের তৃতীয় আরব-ইসরায়েলি ছয়দিনের যুদ্ধে তিনি চারটি ইসরায়েলি বিমান ভূপাতিত করে বিশ্বরেকর্ড গড়েন। 

সাইফুল আজম বাংলাদেশের পাবনা-৩ আসনথেকে পঞ্চম ও ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে দুবার দায়িত্ব পালনকরেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ছিলেন।

বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র ওআওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকরোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৫ জুন মারা যান।

২০০২ সালে সিলেট পৌরসভা সিটি করপোরেশনেউন্নীত হওয়ার পর ২০০৩ সালে প্রথম নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন কামরান।

১৯৮৯ সাল থেকে সিলেট শহর আওয়ামী লীগেরসাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ২০০২ সালে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হনকামরান। ২০১৬ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য পদপান। 

কামাল লোহানী

যার কণ্ঠে বাংলাদেশের যুদ্ধ জয়ের খবরপ্রথম এসেছিল, সেই কামাল লোহানীর কণ্ঠ গত ২০ জুন করোনাভাইরাসে স্তব্ধ হয়ে যায়।

কামাল লোহানী একাধারে ছিলেন সাংবাদিক,সাংস্কৃতিক আন্দোলনের সংগঠক, রাজনৈতিক সংগ্রামের পরামর্শক।

ছেলেবেলায় বাঙালির ভাষা আন্দোলনে জড়িয়েপড়ার পর বাঙালির প্রতিটি সংগ্রামে সক্রিয় ছিলেন তিনি। কমিউনিস্ট মতাদর্শেরবিশ্বাসী কামাল লোহানী ১৯৫৫ সালে দৈনিক মিল্লাত পত্রিকার সাংবাদিক হিসেবেকর্মজীবন শুরু করেন। একাত্তরে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃত্বে ছিলেন তিনি; যুদ্ধশুরুর পর স্বাধীন বাংলা বেতারে যুক্ত হন।

কামাল লোহানী সাংবাদিকতার জন্য ২০১৫সালে একুশে পদকে ভূষিত হন। 

খোন্দকার মোজাম্মেল হক

এরশাদের সামরিক শাসনামলে ‘গেদু চাচারখোলা চিঠি’ কলাম লিখে জনপ্রিয় সাংবাদিক খোন্দকার মোজাম্মেল হক ২৯ জুন মারা যান।করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়েই প্রবীণ এই সাংবাদিকের মৃত্যু হয়।

লতিফুর রহমান

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পোদ্যোক্তা ওট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমান ৭৫ বছর বয়সে ১ জুলাই মারা যান।

ব্যবসায় সামাজিক দায়বদ্ধতা ও নৈতিক মানরক্ষার জন্য ২০১২ সালে অসলো বিজনেস ফর পিস অ্যাওয়ার্ড পান তিনি।

দৈনিক প্রথম আলোর পরিচালনাকারীপ্রতিষ্ঠান মিডিয়াস্টার লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন লতিফুররহমান। ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান মিডিয়াওয়ার্ল্ডেরপ্রতিষ্ঠাতা পরিচালক তিনি। মিডিয়াস্টার এবিসি রেডিও এবং মিডিয়াওয়ার্ল্ড সাপ্তাহিক২০০০ এরও মূল মালিক প্রতিষ্ঠান। 

এন্ড্রু কিশোর

দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনে সারা জাগানোগানের গায়ক এন্ড্রু কিশোরের জীবনের গল্প থেকে যায় ৬ জুলাই; ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াইকরে ৬৪ বছর বয়সেই পৃথিবীকে বিদায় জানাতে হয় তাকে।

জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প, হায়রেমানুষ রঙিন ফানুস, আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি, ডাক দিয়েছেন দয়াল আমারে, সবাই তোভালবাসা চায়, ভালবেসে গেলাম শুধু, ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা, বেদের মেয়ে জোছনাআমায় কথা দিয়েছে, পড়ে না চোখের পলক- তার এমন অনেক গান এখনও মানুষের মুখে ‍মুখেফেরে।

সাহারা খাতুন

দেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীহিসেবে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই করে নেওয়া সাহারা খাতুন ৯ জুলাই ৭৭ বছর বয়সেথাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

নুরুল ইসলাম বাবুল

দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী, যমুনাগ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বাবুল ১৩ জুলাই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারাযান।

১৯৪৬ সালে জন্ম নেওয়া নুরুল ইসলামবাবুল ১৯৭৪ সালে যমুনা গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেন। একে একে শিল্প ও সেবা খাতে গড়ে তোলেনতিন ডজন কোম্পানি।

ঢাকার বারিধারায় যমুনা ফিউচার পার্কএবং নির্মাণাধীন মেরিয়টস হোটেলের মালিকানাও রয়েছে যমুনা গ্রুপের হাতে। দৈনিকযুগান্তর ছাড়াও যমুনা টেলিভিশন যমুনা গ্রুপের দুটি প্রতিষ্ঠান।

শাহজাহান সিরাজ

শাহজাহান সিরাজ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে৭৭ বছর বয়সে ১৪ জুলাই মারা যান।

ছাত্রলীগ, জাসদ ও পরে বিএনপির নেতা হয়েশাহজাহান সিরাজ মন্ত্রী হলেও একাত্তর সালে উত্তাল মার্চে ছাত্র সমাজের পক্ষেস্বাধীনতার ইশতেহার পাঠকারী হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে নাম লেখা থাকবে তার।

টাঙ্গাইলে জন্ম নেওয়া শাহজাহান সিরাজস্বাধীতার আগে ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে ‘চার খলিফা’র একজন হিসেবে খ্যাত তিনি। 

স্বাধীনতার পরে আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়েজাসদ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল তার। গত শতকের ৯০ এর দশকে এসে বিএনপিতে যোগদেন তিনি। ২০০১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারে তিনি বন ও পরিবেশমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকরেন। মৃত্যুর সময় দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি।

এমাজউদ্দীন আহমদ

রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক এমাজউদ্দীনআহমদ ৮৮ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ১৭ জুলাই মারা যান।

১৯৯২-৯৬ সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েরউপাচার্যের দায়িত্ব পালন করা অধ্যাপক এমাজউদ্দীন সর্বশেষ ইউনির্ভাসিটি অবডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভের (ইউডা) উপাচার্য ছিলেন।

খালেদা জিয়ার একজন পরামর্শদাতা হিসেবেপরিচিত ছিলেন এমাজউদ্দীন। বিএনপি সমর্থক বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে গঠিত শত নাগরিক কমিটিরসভাপতির দায়িত্বেও ছিলেন এমাজউদ্দীন।

১৯৯২ সালে শিক্ষা ক্ষেত্রের অবদানেরজন্য একুশে পদক পান তিনি।

ইসরাফিল আলম

করোনাভাইরাস সংক্রমণ মুক্ত হওয়ার পরফুসফুসের জটিলতা নিয়ে ২৭ জুলাই মারা যান নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য ইসরাফিল আলম।তার বয়স হয়েছিল ৫৪ বছর।

আলাউদ্দিন আলী

ঢাকাই চলচ্চিত্রের বহু জনপ্রিয় গানেরগীতিকার, সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী সুরের ভুবন ছেড়ে চলে যান ৯ অগাস্ট।৬৮ বছর বয়সী এই সুরস্রষ্টা ক্যান্সারের পাশাপাশি নিউমোনিয়ায় ভুগছিলেন।

একবার যদি কেউ ভালোবাসতো, যে ছিলদৃষ্টির সীমানায’, প্রথম বাংলাদেশ- আমার শেষ বাংলাদেশ, ভালোবাসা যতো বড়ো জীবন ততবড় নয়, দুঃখ ভালোবেসে প্রেমের খেলা খেলতে হয়, হয় যদি বদনাম হোক আরো, আছেন আমারমোক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টা’, সুখে থাকো ও আমার নন্দিনীসহ কালজয়ী অসংখ্য গানেপেছনের কারিগর আলাউদ্দিন আলী।

সুন্দরী সিনেমার জন্য ১৯৮০ সালে এবংকসাই ও যোগাযোগ চলচ্চিত্রের জন্য ১৯৮৮ সালে শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালকের জাতীয়পুরস্কার পান তিনি। এছাড়া ১৯৮৫ সালে শ্রেষ্ঠ গীতিকার হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্রপুরস্কার পান আলাউদ্দিন আলী। খ্যাতিমান পরিচালক গৌতম ঘোষ পরিচালিত পদ্মা নদীর মাঝিচলচ্চিত্রেও তিনি সংগীত পরিচালনা করেছেন। 

মুর্তজা বশীর

বাংলাদেশের শিল্পকলার অন্যতম নক্ষত্রহিসেবে বিবেচিত মুর্তজা বশীর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৫ আগস্ট চিরবিদায় নেন।

বাংলার জ্ঞানতাপস ড. মুহম্মদশহীদুল্লাহর ছোট সন্তান মুর্তজা বশীরের জন্ম ১৯৩২ সালের ১৭ অগাস্ট। বায়ান্নের ভাষাআন্দোলন, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ ও নব্বইয়ের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে, প্রতিবাদেমুর্তজা বশীর ছিলেন অগ্রভাগে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে অধ্যাপনারপাশাপাশি বাংলাদেশের শিল্পকলা আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ছিলেন তিনি।

‘দেয়াল’, ‘শহীদ শিরোনাম’, ‘কালেমাতাইয়্যেবা’, ‘পাখা’ শিল্পী মুর্তজা বশীরের আঁকা উল্লেখযোগ্য সিরিজ। তিনি ‘বিমূর্তবাস্তবতা’ নামে একটি শিল্পধারার প্রবর্তক। এছাড়াও ফিগারেটিভ কাজে পূর্ব পশ্চিমেরমেলবন্ধনে তিনি স্বকীয়তার স্বাক্ষর রেখেছেন।

চিত্রকলায় অবদানের জন্য ২০১৯ সালেস্বাধীনতা পদক, ১৯৮০ সালে একুশে পদক, ১৯৭৫ সালে শিল্পকলা একাডেমি পদক পেয়েছেনমুর্তজা বশীর। 

সি আর দত্ত

মুক্তিযুদ্ধকালীন ৪ নম্বর সেক্টরেরকমান্ডার অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল চিত্তরঞ্জন দত্ত ৯৩ বছর বয়সে ২৫ অগাস্টযুক্তরাষ্ট্রে মারা যান। তিনি বাসায় পড়ে গিয়ে ব্যথা পেয়েছিলেন, পরে অস্ত্রোপচারকরলেও আর জীবনে ফিরতে পারেননি।

বীর উত্তম সি আর দত্ত ছিলেন বাংলাদেশহিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। সেক্টর কমান্ডারসফোরামেরও নেতা ছিলেন তিনি। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে সারা দেশে ঘুরেবেড়িয়েছেন সি আর দত্ত। 

রাহাত খান

প্রবীণ সাংবাদিক ও কথাসাহিত্যিক রাহাতখান ৮০ বছর বয়সে ২৮ অগাস্ট মারা যান। তিনি হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন।

দীর্ঘদিন দৈনিক ইত্তেফাকে কাজ করারাহাত খান সর্বশেষ দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদের সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

‘অমল ধবল চাকরি’, ‘ছায়াদম্পতি’,‘শহর’, ‘হে শূন্যতা’, ‘হে অনন্তের পাখি’, ‘মধ্য মাঠের খোলোয়াড়’, ‘একপ্রিয়দর্শিনী’, ‘মন্ত্রিসভার পতন’, ‘দুই নারী’, ‘কোলাহল’ এর মত উপন্যাস ওগল্পগ্রন্থের রচয়িতা তিনি। 

সাহিত্যে অবদানের জন্য ১৯৯৬ সালে রাহাতখান একুশে পদক পান। তার আগে ১৯৭৩ সালে পান বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার।

আবু ওসমান চৌধুরী

স্বাধীনতা যুদ্ধের বীর সেনানী আবুওসমান চৌধুরী ৮০ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫ সেপ্টেম্বর না ফেরার দেশেপাড়ি জমান।

মুক্তিযুদ্ধকালীন ৮ নম্বর সেক্টরেরকমান্ডার ছিলেন আবু ওসমান চৌধুরী; তার স্ত্রী নাজিয়া খানম রণাঙ্গনেরমুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে খাবার ও পানীয়, টাকাপয়সা পৌঁছে দেওয়া এবং প্রয়োজনেওষুধপত্রের ব্যবস্থা করা, অস্ত্রশস্ত্র ও গোলাবারুদ পাহারা দেওয়ার মতো কাজ করেনসাহসিকতার সঙ্গে।

বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর ১৯৭৫ সালেরঘটনাবহুল ৭ নভেম্বর সিপাহীদের অভ্যুত্থানের সময় একদল সেনসদস্য আবু ওসমান চৌধুরীকেহত্যার জন্য তার গুলশানের বাড়িতে হামলা করে। বাড়িতে না থাকায় তিনি সেদিন প্রাণেবেঁচে গেলেও নিহত হন তার স্ত্রী। জিয়াউর রহমানের আমলে সেনাবাহিনী থেকে অবসরেপাঠানো হয় তাকে।

পরবর্তী সময়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারেরদাবিতে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন আবুওসমান চৌধুরী। তিনি সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যানের পদেওছিলেন।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায়এলে আবু ওসমান চৌধুরীকে বিজেএমসির চেয়ারম্যান করা হয়। পরে তিনি চাঁদপুর জেলাপরিষদের প্রশাসকের দায়িত্ব পান।

স্বাধীনতাযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানেরজন্য ২০১৪ সালে আবু ওসমান চৌধুরীকে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করে সরকার। 

জিয়াউদ্দিন তারেক আলী

মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি এবংসম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি জিয়াউদ্দিন তারেক আলী করোনাভাইরাসে আক্রান্তহয়ে ৭ সেপ্টেম্বর মারা যান।

একাত্তরের যে গানের দল বিভিন্ন স্থানেঘুরে ঘুরে গান গেয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রাণিত করেছিল, সেই দলের সদস্য ছিলেনতারিক আলী। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর গড়ে উঠেছে, তিনি তাদেইএকজন।

জিয়াউদ্দিন তারিক আলী রবীন্দ্রসংগীতসম্মিলিন পরিষদ ও ছায়ানটের নির্বাহী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। পাশাপাশি তিনিসম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। 

কে এস ফিরোজ

অভিনেতা কে এস ফিরোজ করোনাভাইরাসেআক্রান্ত হয়ে ৭৬ বছর বয়সে ৯ সেপ্টেম্বর মারা যান।

 অভিনয়ে আসার আগে সেনাবাহিনীতেছিলেন তিনি।

অভিনয় জীবনের শুরুর দিকে থিয়েটারের‘কিং লেয়ার’ মঞ্চ নাটকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করে পরিচিত পান তিনি। ‘সাত ঘাটেরকানাকড়ি’, ‘রাক্ষসী’সহ আরও বেশ কয়েকটি মঞ্চ নাটকে দেখা গেছে তাকে।

তিনি মঞ্চ এবং ছোট ও বড় পর্দায় যুগপৎঅভিনয় করেছেন; নাট্যদল থিয়েটারের জ্যেষ্ঠ সদস্য ও সভাপতি ছিলেন। পাশাপাশি টিভিবিজ্ঞাপনেও কাজ করেছেন তিনি।

টিভিতে তার অভিনীত প্রথম নাটক ‘দীপতবুও জ্বলে’। পরে ‘লাওয়ারিশ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে বড়পর্দায় যাত্রা করেন কে এসফিরোজ। আবু সাইয়িদের ‘শঙ্খনাদ’, ‘বাঁশি’, মুরাদ পারভেজ’র ‘চন্দ্রগ্রহণ’,‘বৃহন্নলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। 

সাদেক বাচ্চু

অভিনেতা সাদেক বাচ্চু করোনাভাইরাসেআক্রান্ত হয়ে ৬৬ বছর বয়সে ১৪ সেপ্টেম্বর মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ,ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন।

ডাকবিভাগের সাবেক কর্মকর্তা সাদেকহোসেন বাচ্চু টেলিভিশনে অভিনয় করে নাম কুড়িয়ে ১৯৮৫ সাল চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন।‘রামের সুমতি’র মাধ্যমে যাত্রা শুরুর পর বহু জনপ্রিয় চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেনতিনি। খল চরিত্রের অভিনেতা হিসেবে দর্শকদের কাছে পেয়েছেন আলাদা পরিচিতি।

২০১৮ সালে ‘একটি সিনেমার গল্প’ ছবিতেঅভিনয়ের জন্য খল চরিত্রে সেরা অভিনেতার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান সাদেকবাচ্চু। 

শাহ আহমদ শফী

হেফাজতে ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা,চট্টগ্রামের হাটহাজারীর আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসারমহাপরিচালক শাহ আহমদ শফী শত বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত কারণে ১৮ সেপ্টেম্বর মারা যান।

দেশে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষার ভিত মজবুতকরতে তার ভূমিকা এবং দেওবন্দের অনুসারী আলেমদের কাছে আহমদ শফী ছিলেন অত্যন্তশ্রদ্ধার পাত্র, তাকে ডাকা হত ‘বড় হুজুর’ বলে।

নওশেরুজ্জামান

স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়নওশেরুজ্জামান ৭০ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২১ সেপ্টেম্বর মারা যান।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

১৯৫০ সালের ৫ ডিসেম্বর মুন্সিগঞ্জেজন্ম নেওয়া নওশেরুজ্জামান ক্লাব ক্যারিয়ার শুরু করেন ১৯৬৭ সালে রেলওয়ের হয়ে। এরপরওয়ারী, ফায়ার সার্ভিস, ওয়াপদা ঘুরে ১৯৭৫ সালে যোগ দেন মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে।১৯৭৮ থেকে ৮০ সাল পর্যন্ত খেলেছেন ওয়ান্ডারার্সে।

মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীন বাংলা ফুটবলদলের হয়ে খেলা নওশেরুজ্জামান পরে বাংলাদেশের জার্সিতে খেলেছেন ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৬ সালপর্যন্ত। ফুটবলের মতো ক্রিকেটের আঙিনাও মাতিয়েছিলেন তিনি। মোহামেডান, ভিক্টোরিয়া ওকলাবাগানের হয়ে ক্রিকেট খেলেছেন ১৭ বছর। 

মাহবুবে আলম

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ৭১ বছরবয়সে গত ২৭ সেপ্টেম্বর মারা যান। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সংক্রমণমুক্তহলেও সুস্থ হয়ে আর ফিরতে পারেননি তিনি।

মাহবুবে আলম ২০০৯ সালে অ্যাটর্নিজেনারেলের পদে নিয়োগ পান। তারপর মৃত্যু অবধি ওই পদে ছিলেন। পদাধিকার বলে বাংলাদেশবার কাউন্সিলের চেয়ারম্যানও ছিলেন তিনি।

অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে সর্বোচ্চআদালতে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার বিচারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকারেখেছিলেন মাহবুবে আলম। এছাড়া সংবিধানের পঞ্চম, সপ্তম, ত্রয়োদশ ও ষোড়শ সংশোধনীমামলা পরিচালনাও করেন তিনি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানেরহত্যাকাণ্ডের মামলায়ও যুক্ত ছিলেন মাহবুবে আলম। আলোচিত বিডিআর বিদ্রোহ মামলায়রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবীর দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

তিনি এক মেয়াদে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবীসমিতির সভাপতি এবং এক মেয়াদে সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন। 

রশীদ হায়দার

কথাশিল্পী ও নজরুল ইন্সটিটিউটের সাবেকনির্বাহী পরিচালক রশীদ হায়দার ৭৯ বছর বয়সে গত ১৩ অক্টোবর মারা যান। বার্ধক্যজনিতবিভিন্ন জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি।

১৯৬১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়তখনকার জনপ্রিয় সিনে ম্যাগাজিন চিত্রালীতে কাজ শুরু করেন রশীদ হায়দার। দেশ স্বাধীনহওয়ার পর ১৯৭২ সালে বাংলা একাডেমিতে চাকরি নেন। ১৯৯৯ সালে বাংলা একাডেমির পরিচালকহিসেবে তিনি অবসরে যান। পরে নজরুল ইন্সটিটিউটের নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্বপালন করেন।

বাংলা একাডেমিতে থাকাকালে রশীদহায়দারের সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় মুক্তিযুদ্ধে স্বজন হারানো মানুষের স্মৃতিচারণানিয়ে গ্রন্থ ‘স্মৃতি: ১৯৭১’, যাকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ বিষয়ে অন্যতমগুরুত্বপূর্ণ ‘দালিলিক গ্রন্থ’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

গল্প, উপন্যাস, নাটক, অনুবাদ, নিবন্ধ,স্মৃতিকথা ও সম্পাদিত গ্রন্থ মিলিয়ে রশীদ হায়দারের প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৭০ এরবেশি। 

বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য সরকার২০১৪ সালে রশীদ হায়দারকে একুশে পদকে ভূষিত করে। তার আগে ১৯৮৪ তিনি বাংলা একাডেমিসাহিত্য পুরস্কার পান। 

মনসুর উল করিম

একুশে পদকপ্রাপ্ত চিত্রশিল্পীচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের সাবেক অধ্যাপক মনসুর উল করিম ৭০বছর বয়সে ৫ অক্টোবর মারা যান। তার হার্ট অ্যাটাক হয়েছিল।

বাংলাদেশের চিত্রশিল্পে অবদানেরস্বীকৃতি হিসেবে সরকার ২০০৯ সালে তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে। এছাড়া ১৯৯৩ সালেবাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী পুরস্কারসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

রফিক-উল হক

বাংলাদেশের আইন অঙ্গনের অন্যতম পরিচিতমুখ ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ৮৫ বছর বয়সে ২৪ অক্টোবর মৃত্যুবরন করেন। 

সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারআমলে দুই প্রধান রাজনৈতিক নেত্রী শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী হিসেবে আলোচিতছিলেন তিনি। ফুসফুসে সংক্রমণ নিয়ে অসুস্থ থাকা অবস্থায় তার স্ট্রোক হয়েছিল।

হায়দার আনোয়ার খান জুনো

কমিউনিস্ট নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা হায়দারআনোয়ার খান জুনো ২৯ অক্টোবর হার্ট অ্যাটাকে মারা যান।

কমিউনিস্ট নেতা হায়দার আকবর খান রণোরছোট ভাই জুনো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় মাস্টার্স করলেও বাম ধারারাজনীতিকেই তিনি পেশা হিসেবে নেন। 

স্বাধীনতার পর জুনো রাজনৈতিককর্মকাণ্ডের পাশাপাশি প্রগতিশীল গণমুখী সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তুলতেও ভূমিকারেখেছেন। গণ-সংস্কৃতি ফ্রন্টের সভাপতি ছিলেন তিনি। 

আবুল হাসনাত

সাহিত্য পত্রিকা কালি ও কলমের সম্পাদক,কবি ও সাংবাদিক আবুল হাসনাত ৭৫ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ১ নভেম্বর মারা যান।

আবুল হাসনাত লিখতেন মাহমুদ আল জামানছদ্মনামে। ‘জ্যোৎস্না ও দুর্বিপাক, 'কোনো একদিন ভুবনডাঙায়’, ‘ভুবনডাঙার মেঘ ও নধরকালো বেড়াল’ আবুল হাসনাতের উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ। তার প্রবন্ধগ্রন্থের মধ্যেরয়েছে সতীনাথ, মানিক, রবিশঙ্কর ও অন্যান্য ও জয়নুল, কামরুল, সফিউদ্দীন ওঅন্যান্য। শিশু ও কিশোরদের জন্য তিনি লিখেছেন ‘ইস্টিমার সিটি দিয়ে যায়’, ‘টুকু ওসমুদ্রের গল্প’, ‘যুদ্ধদিনের ধূসর দুপুরে’, ‘রানুর দুঃখ-ভালোবাসা’।

দীর্ঘ ২৪ বছর দৈনিক সংবাদের সাহিত্যসাময়িকী সম্পাদনা করা আবুল হাসনাত আমৃত্যু কালি ও কলমের সম্পাদকের দায়িত্বেছিলেন। পাশাপাশি চিত্রকলা বিষয়ক ত্রৈমাসিক ‘শিল্প ও শিল্পী’রও তিনি সম্পাদকছিলেন। ২০১৪ সালে তিনি বাংলা একাডেমির সম্মানসূচক ফেলো মনোনীত হন। 

শওকত আলী

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও জাতীয়সংসদের সাবেক ডেপুটি স্পিকার অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল শওকত আলী ৮৪ বছর বয়সে গত ১৬নভেম্বর মারা যান।

পাকিস্তান আমলে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে যেআগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা হয়েছিল, তাতে শওকত আলীকে ২৬ নম্বর আসামি করা হয়।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীতে ক্যাপ্টেনপদে দ্বায়িত্ব পালন করা শওকত আলী ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন।স্বাধীনতার পর আবার সেনাবাহিনীতে ফেরেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু সপরিবারে নিহত হওয়ারপর শওকত আলীকে সেনাবাহিনী থেকে অবসরে পাঠানো হয়।

সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা পরে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে সক্রিয়া হন এবং শরীয়তপুর-২ আসন থেকে ছয় বার সংসদ সদস্য নির্বাচিতহন। তিনি মুক্তিসংহতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এবং ৭১ ফাউন্ডেশনের প্রধানউপদেষ্টা ছিলেন। 

বাদল রায়

গত শতকের আশির দশকে মাঠ কাঁপানোফুটবলার বাদল রায় লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ২২ নভেম্বর মৃত্যুবরন করেন।

জাতীয় দলের হয়ে ১৯৮১ থেকে ৮৬ পর্যন্তখেলা বাদল মোহামেডান স্পোর্টিংয়ের হয়ে ১৯৭৭ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত খেলেন। দলটিরহয়ে জেতেন পাঁচটি লিগ শিরোপা। শুধু মোহামেডান নয়, জাতীয় দলেও বাদল রায় ছিলেনঅপরিহার্য ফুটবলার। ১৯৮২ দিল্লি এশিয়াডে তার জয়সূচক গোল রয়েছে ভারতের বিপক্ষে।ইনজুরির জন্য বাদল রায়ের ক্যারিয়ার খুব বেশি দীর্ঘ হয়নি।খেলা ছাড়ার পর মোহামেডানেরম্যানেজার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

বাদল রায় খেলোয়াড়ি জীবন থেকেই ছিলেনরাজনীতি সচেতন। ছাত্রলীগের প্যানেল থেকে ডাকসুর ক্রীড়া সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেনতিনি। আওয়ামী লীগের হয়ে ১৯৯১ সালে কুমিল্লার একটি আসনে সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীওছিলেন তিনি। 

মুনীরুজ্জামান

দৈনিক সংবাদের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক,কলামনিস্ট খন্দকার মুনীরুজ্জামান ৭৩ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর ২৪নভেম্বর পৃথিবী থেকে চিরবিদায় নেন।

ছাত্র আন্দোলনের সক্রিয় কর্মী ১৯৭০সালে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির মুখপত্র সাপ্তাহিক একতায় সাংবাদিকতার শুরুকরেন। পরে রাজনৈতিক বিশ্লেষণধর্মী কলাম লেখক হিসেবে তিনি পরিচিতি পান। দীর্ঘদিনদৈনিক সংবাদে কাজ করেন তিনি। ২০১৯ সালে তিনি প্রেস কাউন্সিলের সদস্য হিসেবে মনোনীতহন। 

আলী যাকের

ক্যান্সারের সঙ্গে চার বছরেরও বেশি সময়লড়াই করে ২৭ নভেম্বর চির বিদায় নেন একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনেতা, স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্রের শব্দসৈনিক আলী যাকের।

১৯৭২ সালের আরণ্যক নাট্যদলের ‘কবর’নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে পথচলা শুরু করেন এই নাট্যব্যক্তিত্ব। মঞ্চে নূরলদীন,গ্যালিলিও ও দেওয়ান গাজীর চরিত্রে আলী যাকেরের অভিনয় এখনও দর্শক মনে রেখেছে।‘বহুব্রীহি’, ‘তথাপি পাথর’, ‘আজ রবিবার’এর টিভি নাটকে অভিনয় করেও তিনি জনপ্রিয়তাপান।

অভিনয়, নির্দেশনার বাইরে তিনি ছিলেনএকজন নাট্যসংগঠক; পাশাপাশি যুক্ত ছিলেন লেখালেখির সঙ্গে। নাটকে অবদানের জন্য ১৯৯৯সালে সরকার তাকে একুশে পদকে ভূষিত করে।

স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে তিনিএশিয়াটিকের দায়িত্ব নেন, মৃত্যুর সময় তিনি কোম্পানির গ্রুপ চেয়ারম্যানছিলেন। 

চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী চৌধুরী কামালইবনে ইউসুফ ৮০ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৭ ডিসেম্বর মারা যান।

মুসলিম লীগের এক সময়ের প্রতাপশালী নেতাফরিদপুরের ইউসুফ আলী চৌধুরী মোহন মিয়ার ছেলে কামাল ইবনে ইউসুফ বিএনপির ভাইসচেয়ারম্যান ছিলেন। খালেদা জিয়ার দুই মেয়াদের সরকারে মন্ত্রী ছিলেন তিনি।

নূর হোসাইন কাসেমী

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব নূর হোসাইনকাসেমী ৭৫ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৩ ডিসেম্বর মারা যান।

১৯৪৫ সালের ১০ জানুয়ারি জন্ম নেওয়া নূরহোসাইন কাসেমী জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব, বেফাকের সহসভাপতি ওআল-হাইয়া বোর্ডেরও কো-চেয়ারম্যান ছিলেন।

হেফাজতে ইসলাম প্রতিষ্ঠার পর থেকে তিনিকওমি মাদ্রাসাভিত্তিক এ সংগঠনের ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন।গত ১৫ নভেম্বর নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি হলে সেখানে তাকে মহাসচিবের দায়িত্বদেওয়া 

আবু তাহের

চিত্রশিল্পী আবু তাহের ৮৭ বছর বয়সে ১৮ডিসেম্বর মারা যান। তিনি মস্তিষ্ক ও কিডনি জটিলতাসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগেভুগছিলেন।

শিল্পকলায় অবদানের জন্য একুশে পদকসহবিভিন্ন পদক ও পুরস্কার পেয়েছেন তিনি।

মনজুরে মওলা

কবি, প্রাবন্ধিক মনজুরে মওলা ৮০ বছরবয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০ ডিসেম্বর মারা যান।

মনজুরে মওলা পেশাজীবনে বিভিন্নমন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গত শতকের আশির দশকের শুরুর দিকেবাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক ছিলেন। বাংলা একাডেমিতে তার তিন বছরের কার্যকালেইআনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় অমর একুশে গ্রন্থমেলা।

ঐতিহাসিক বর্ধমান ভবন সংস্কার, প্রথমজাতীয় ফোকলোর কর্মশালার আয়োজন, আরজ আলী মাতুব্বর বা খোদা বক্স সাঁইয়ের মতোলোকমনীষাকে ফেলোশিপ দেওয়ার পাশাপাশি বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস, ডেভিডসনেরচিকিৎসাবিজ্ঞান কিংবা আনিসুজ্জামানের পুরনো বাংলা গদ্যের মতো বই প্রকাশে উদ্যোগীহয়েছিলেন মনজুরে মওলা। ‘ভাষা শহীদ গ্রন্থমালার’ ১০১টি বই বাংলা একাডেমিতে তারঅসামান্য কীর্তি। 

মান্নান হীরা

নাট্যকার, নির্দেশক, চলচ্চিত্রনির্মাতা মান্নান হীরা ৫৫ বছর বয়সে ২৩ ডিসেম্বর মারা যান। তিনি হৃদরোগে ভুগছিলেন।

মান্নান হীরা বাংলাদেশ পথনাটক পরিষদেরসভাপতি ছিলেন। ২০০৬ সালে তিনি নাটকের জন্য বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার লাভকরেন। তিনি আরণ্যক নাট্যদলের অধিকর্তা ছিলেন। মঞ্চ ও টিভির জন্য অসংখ্য নাটকলিখেছেন তিনি।

মান্নান হীরার উল্লেখযোগ্য নাটকেরমধ্যে আছে ‘লাল জমিন’, ‘ভাগের মানুষ’, ‘ময়ূর সিংহাসন’, ‘সাদা-কালো’। ‘মূর্খ লোকেরমূর্খ কথা’ মান্নান হীরা রচিত ও নির্দেশিত পথনাটক। ২০১৪ সালে সরকারি অনুদানেরচলচ্চিত্র ‘একাত্তরের ক্ষুদিরাম’ নির্মাণ করেন তিনি।‘গরম ভাতের গল্প’ ও ‘৭১-এররঙপেন্সিল’ নামে দুটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রও নির্মিত হয় মান্নান হীরারহাতে। 

এম এ হাসেম

পারটেক্স গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতাচেয়ারম্যান এম এ হাসেম ৭৮ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ডিসেম্বর মারাযান।

ব্যবসায়ী হাসেম ২০০১ সালের জাতীয়নির্বাচনে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিতহয়েছিলেন। সেনা নিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন তিনি,মুক্তি পেয়ে রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়েন। ২০১৬ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপি ছাড়ারঘোষণা দেন তিনি।

আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আখ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন ৭৩ বছর বয়সে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ডিসেম্বর মারাযান।

তিনি পটুয়াখালী-৩ (গলাচিপা-দশমিনা) আসনথেকে চার বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। শেখ হাসিনার ১৯৯৬ সালের সরকারেবস্ত্র প্রতিমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

আবদুল কাদের

ক্যান্সারের চিকিৎসা চলাকালেকরোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৬ ডিসেম্বর চিরবিদায় নেন অভিনেতা আবদুল কাদের। তার বয়সহয়েছিল ৬৯ বছর।

মঞ্চ ও টেলিভিশন নাটকে সমান সক্রিয়ছিলেন আবদুল কাদের। তাকে বিপুল জনপ্রিয়তা দিয়েছিল হুমায়ূন আহমেদের টিভি সিরিজ‘কোথাও কেউ নেই‘র বদি চরিত্রটি।

 বিশেষ খবর থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ