মঙ্গলবার , ২৮ জুন e ২০২২ |

অর্থদণ্ডের ক্ষমতা পাচ্ছে প্রেস কাউন্সিল

দেশকাল প্রতিবেদক, ঢাকা   সোমবার , ২০ জুন e ২০২২

ঢাকা : অর্থদণ্ডের বিধান রেখে দ্য প্রেস কাউন্সিল (এমেন্ডমেন্ট) অ্যাক্ট ২০২২ এর খসড়ায় নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (২০ জুন) মন্ত্রিসভা বৈঠকে আইনটির প্রাথমিক অনুমোদন দেয়া হয়। পরে সচিবালয়ে সংবাদিকদের ব্রিফ করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা, জনশৃঙ্খলা, নৈতিকতা ইত্যাদি ক্ষুন্ন বা ভঙ্গের অপরাধে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ডের প্রস্তাব করা হলে তাতে সায় দেয়নি মন্ত্রিসভা। আইন মন্ত্রণালয়ের যাচাই বাছাইয়ের পর আইনটিকে আবারও মন্ত্রিসভায় তোলা হবে বলে জানান খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।


তিনি বলেন, এটা ১৯৭৪ সালে একটা প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ছিল, সেটার সংশোধনী নিয়ে আসা হয়েছিল আজ। আগে প্রেস কাউন্সিলের সদস্য সংখ্যা ১৪ ছিল, সেটা ১৭ করা হয়েছে।

‘তথ্য অধিদপ্তর থেকে প্রেসকাউন্সিলের একজন প্রতিনিধি, মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয় থেকে একজন এবং সামাজিক সংগঠনের একজন নারী সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করে বাড়ানো হয়েছে। কাউন্সিলের সেক্রেটারিকে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা করা হয়েছে।

মন্ত্রিসভা সচিব বলেন, সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থার মানোন্নয়ন ও সংরক্ষণ ও অপসাংবাদিকতা দূর করতে কাউন্সিল কর্তৃক রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা, জনশৃঙ্খলা, নৈতিকতা ইত্যাদি ক্ষুণ্ন বা ভঙ্গের দায়ে অর্থদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। ওনারা একটা প্রস্তাব নিয়ে এসেছিলেন, কিন্তু কেবিনেট এটাতে রাজি হয়নি। এখন তিরস্কারের দণ্ড আছে।


কাউন্সিল কর্তৃক প্রদত্ত আদেশ সংশ্লিষ্ট পত্রিকায় প্রকাশের বিধান নতুন যুক্ত করা হয়েছে। রাষ্ট্রের নিরাপত্তা, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের পক্ষে হানিকর বা প্রেস কাউন্সিলের আচরণ বিধিমালা পরিপন্থি সংবাদ, প্রতিবেদন, কার্টুন ইত্যাদি প্রকাশের দায়ে কোনো সংবাদপত্র বা সংবাদ সংস্থার বিরুদ্ধে স্বত: প্রণোদিত হয়ে ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

সংবাদ সংস্থা বলতে প্রিন্ট মিডিয়া এবং সব ডিজিটাল মিডিয়াকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’যে অর্থদণ্ডের কথা আইনে উল্লেখ করা আছে সেটি সংশ্লিষ্ট সংস্থা বহন করবে বলেও জানান তিনি।

দৈনিক দেশকাল/এবি/২০ জুন ২০২২

 মিডিয়াওয়াচ থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ