বুধবার , ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩

শীত ও ঠান্ডাজনিত রোগে দুই মাসে ৮৮ মৃত্যু

দেশকাল অনলাইন   বুধবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

শীতের তীব্রতা বাড়ায় নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, শ্বাসতন্ত্রের প্রদাহজনিত অসুস্থতাসহ শীতকালীন বিভিন্ন রোগ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ঠান্ডাজনিত অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ইনফেকশনসে (এআরআই) আক্রান্ত হয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়াও ২০২২ সালের ১৪ নভেম্বর থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে এআরআইতে ৮৫ এবং ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে শিশুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (১৮ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের শীতজনিত রোগে ১৪ নভেম্বর থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত আক্রান্ত ও মৃত্যুর বিবরণে এ তথ্য জানানো হয়েছে।


এতে বলা হয়, গত ১৪ নভেম্বর থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত সারাদেশে ৫৮ হাজার ৪৭৮ জন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণজনিত রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৮৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। শীতকালীন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন লাখ ৪৭ হাজার ১৯০ জন। আর এতে মারা গেছেন তিনজন।

এছাড়াও গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে শীতকালীন রোগ অ্যাকিউট রেসপিরেটরি ইনফেকশনস (এআরআই) এবং ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে তিন হাজার ৩১৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এছাড়া মারা গেছেন তিনজন।

বিভাগভিত্তিক তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে (মহানগর ব্যতীত) ১৪ হাজার ৩৭৫ জন শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া ময়মনসিংহে চার হাজার ৩৬৫ জন, চট্টগ্রামে ২০ হাজার ১১০ জন, রাজশাহীতে দুই হাজার ৪২৬ জন, রংপুরে দুই হাজার ১৬৮ জন, খুলনায় সাত হাজার ৮৯২ জন, বরিশালে তিন হাজার ৬১৮ জন এবং সিলেট বিভাগে তিন হাজার ৫২৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

আক্রান্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগে সর্বোচ্চ ৫৬ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এছাড়া ময়মনসিংহে ২৫ জন, খুলনায় দুইজন ও বরিশালে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি বিভাগগুলোতে শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণে কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।

ডায়রিয়ার তথ্য তুলে ধরে বলা হয়, এসময়ের মধ্যে ঢাকা বিভাগে সর্বোচ্চ দুই লাখ ৩১ হাজার ৫৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া ময়মনসিংহ বিভাগে ১৪ হাজার ৭৩৮ জন, চট্টগ্রামে ৩৫ হাজার ৪৪৩ জন, রাজশাহীতে ১৫ হাজার ৫১১ জন, রংপুরে ১০ হাজার ৪৭৩ জন, খুলনায় ১৯ হাজার ৪৩২ জন, বরিশালে ১১ হাজার ৫১৪ জন এবং সিলেট বিভাগে আট হাজার ৫২১ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।


রোগে আক্রান্ত হয়েও দেরিতে হাসপাতালে যাওয়ার কারণে শীতকালীন রোগের তীব্রতা বাড়ছে ও মৃত্যু হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

আইসিডিডিআর,বি’র তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতি বছর পাঁচ বছরের নিচে প্রায় ২৪ হাজার ৩০০ শিশু নিউমোনিয়ায় মারা যায়। সে হিসাবে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে নিউমোনিয়ায় প্রতিদিন মারা যায় ৬৭ জন। এদের ৫২ শতাংশ শিশু কোনো চিকিৎসা না পেয়ে বাড়িতেই মারা যায়।

দৈনিক দেশকাল/জেডইউ/ ১৮ জানুয়ারি, ২০২৩

 স্বাস্থ্যবার্তা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ