বুধবার , ১৭ এপ্রিল ২০২৪

মোঃ আলমগীর, টেকনাফ:টেকনাফে ঘূর্ণিঝড় ও বন্যার পূর্বাভাসের সতর্কতার ব্যবস্থা থাকলেও ভূমিধসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের স্থায়ী ও আইনগতভাবে স্বীকৃত কোনো ব্যবস্থা নেই। এতে হঠাৎ করে হওয়া ভূমিধসে জানমালের ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েন টেকনাফ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মানুষ। এই ক্ষতি এড়াতে ভূমিধসের আগাম সতর্কতা বিষয়ে একটি পদ্ধতি আবিষ্কার করা হয়েছে। এতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণের ওপর নির্ভর করে ঝুঁকি এলাকা নিরূপণ করে অধিবাসীদের সতর্ক করা ও সরিয়ে নেওয়া হয়। ভূমিধসের পূর্ব সতর্কতা ও আগাম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণে সহায়তামূলক প্রকল্প উপজেলা পর্যায়ে অবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কারিতাস বাংলাদেশ চট্টগ্রাম অঞ্চলের আয়োজনে বুধবার সকাল ১১টায় টেকনাফ উপজেলা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আদনান চৌধুরী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন টেকনাফ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী, মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওসমান গণি, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তাহেরা আক্তার মিলি, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাকিরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকৌশলী রবিউল হুসাইন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার নুরুল আফসার, বীর মুক্তিযোদ্ধা জহির হোসেন এমএ, কারিতাস বাংলাদেশের চট্টগ্রামস্থ প্রোগ্রাম অফিসার ডানিয়েল শিপু গমেজ, পিও মাজহারুল ইসলাম, প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর জাবেদ মিয়ানদাদ, প্রোগ্রাম ম্যানেজার সিআরএস আব্দুর রহমান, উপজেলা কো-অর্ডিনেটর সোসেফ ত্রিপুরা, ডিআরআর স্পেশালিষ্ট প্রিয়াংকা নাগ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মুকুল কুমার নাথ, টেকনাফ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা বিদ্যুৎ বিহারী, সিপিপির শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত হওয়ায় পদকপ্রাপ্ত ও নারী নেত্রী কুলসুমা বেগম ও বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মী উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ভূমিধসের পূর্ব সতর্কতা এবং আগাম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে আলাপ আলোচনা শেষে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। অন্যদিকে আজ বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ একইদিন উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের লক্ষ্যে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ এরফানুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আদনান চৌধুরী। সভায় যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের লক্ষ্যে আলোচনা শেষে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

 নগর-মহানগর থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ