মঙ্গলবার , ২৫ জুন e ২০২৪

কুমিল্লায় স্মার্ট ভূমি সেবায় এগিয়ে দাউদকান্দি উপজেলা

দেশকাল ডেস্ক   বুধবার , ০৫ জুন e ২০২৪

লিটন সরকার বাদল,  কুমিল্লা (উত্তর) প্রতিনিধি 

কুমিল্লা : কুমিল্লাজেলার দাউদকান্দি উপজেলা ভূমি অফিস শতভাগ ডিজিটাল ভূমি সেবার মাধ্যমে জেলায় প্রথম স্থানঅর্জন করেছে। 'স্মার্ট ভূমি সেবায় ভূমি মন্ত্রণালয়' এ প্রতিপাদ্য নিয়ে দাউদকান্দি উপজেলারডিজিটাল ভূমি সেবা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আর এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি)মোঃ জিয়াউর রহমান। তার দক্ষ নেতৃত্বে দাউদকান্দি ভূমি সেবায় এ সফলতা অর্জিত হয়েছে।ভূমি সেবায় দাউদকান্দি এখন দেশের মডেল ও স্মার্ট উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি পাবার দাবিদারহয়ে উঠেছে। সহজে ভূমি সেবা পেয়ে এখানকার মানুষও খুব খুশি।

জানা গেছে, মোঃজিয়াউর রহমান গত  ২৪ জুলাই  ২০২২ সাল থেকে দাউদকান্দি  উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি  (এ্যাসিল্যান্ড)হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি এ সময়ে উপজেলার সরকারি খাস জমি উদ্ধার, মিসকেসে (নামজারিজমাভাগ খারিজ সংক্রান্ত) মামলা শুনানির মাধ্যমে দ্রম্নত মামলার নিষ্পত্তি, ভূমি নিয়েস্থানীয় বিরোধের অবসান, স্বচ্ছতার সঙ্গে ভূমি সেবা প্রদান, সহজীকরণ, মিউটেশন (ই নামজারি)তে শতভাগ সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন। এ সবের বাইরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা,ভেজালবিরোধী অভিযান, অবৈধভাবে জমিতে ড্রেজিং , পরিবেশ রক্ষার অভিযান, বাল্যবিয়ে ও ইভটিজিংপ্রতিরোধ, নিয়মিত ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরির্দশন করে দাউদকান্দিবাসীর প্রশংসা কুড়িয়েছেনতিনি। জানা যায়, উপজেলার ইউনিয়ন ভূমি অফিসে জনবল সংকটে ভূমি সেবার কার্যক্রম কিছুটাব্যাহত হচ্ছে। এ সংকটের মধ্যেও সহকারী কমিশনার ভূমি (এ্যাসিল্যান্ড) মোঃ জিয়াউর রহমানদক্ষতার সঙ্গে ভূমি উন্নয়ন ও জটিলতাসহ সব ধরনের সমস্যা নিরসনে কাজ করে যাচ্ছেন। তারবলিষ্ঠ নেতৃত্বে এ বছর দাউদকান্দি উপজেলা ভূমি অফিস ই-নামজারিতে কুমিল্লা জেলায় গড়নিষ্পত্তি দিনের ভিত্তিতে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। তথ্য অনুযায়ী দাউদকান্দি উপজেলায় গড় নিষ্পত্তি সময় ১০ দিন, যা কুমিল্লা জেলার১৭টি উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে কম। ই-নামজারি সেবা সহজীকরণে ও জনগণকে স্বল্পতম সময়ে এ সেবাদিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন দাউদকান্দি উপজেলা

সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও সদ্য সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে পদোন্নতি প্রাপ্ত মোঃ জিয়াউর রহমান। এ ব্যাপারেসহকারী কমিশনার (ভূমি) ও সদ্য সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে পদোন্নতি প্রাপ্ত মোঃ জিয়াউররহমান বলেন, জনবান্ধব জনসেবা নিশ্চিত করতে আমরা বদ্ধপরিকর। একজন মানুষও যাতে ভোগান্তিরশিকার না হয় সেজন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে উপজেলার ইউনিয়ন অফিসে জনবলসংকটের কারণে মানুষকে সব ধরনের সেবা প্রদান করা সম্ভব হয় না। তারপরও আমরা সবসময়ই চেষ্টাকরি সর্বোচ্চ সেবা দিতে। কুমিল্লা জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মহোদয়েরদিক-নির্দেশনার আলোকে আমরা আইনানুগভাবে নির্ধারিত সময় ও পদ্ধতিতে মানুষকে দ্রুততম সময়েভূমি সেবা ও ভূমি বিষয়ক পরামর্শ প্রদানে বদ্ধপরিকর। সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক সরাসরিশুনানি গ্রহণ, ইউনিয়ন ও উপজেলায় কর্মরত সংশ্লিষ্ট অফিসারদের তৎপরতার ফলে দালাল তথাতৃতীয় পক্ষের দৌরাত্ম্য কমেছে। দাউদকান্দিও মানুষ এখন অনলাইন/স্মার্ট ভূমি ব্যবস্থাপনারসুফল পাচ্ছে।

এই কর্মকর্তাআরো বলেন, বর্তমান কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা মোতাবেক ই-নামজারি সেবা দিতেআমরা বদ্ধপরিকর। যখন আমি এ উপজেলার দায়িত্ব গ্রহন করি তখন গড় নিষ্পত্তি সময় ছিল ৪০থেকে ৫০ দিন। ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা, সার্ভেয়ার, কানুনগো, অফিস সহকারীসহ সংশ্লিষ্টসবার সহযোগিতায় এ সেবা বর্তমানে ১০ দিনে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে। ভবিষ্যতে আরও স্বল্প সময়েএ সেবা দেওয়ার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

 সারাবাংলা থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ