শুক্রবার , ১৯ July ২০২৪

ঢাকা : আইনি লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েকোটাবিরোধী আন্দোলনকারীরা সঠিক পথে হাঁটছেন বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।এ জন্য তিনি তাদের সাধুবাদও জানিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নেরজবাবে এসব কথা বলেন আইনমন্ত্রী। আনিসুল হক বলেন, ‘সরকারের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে এটাআর নাই। এটার, কোটা সংস্কারের ইস্যুটা এখন সর্বোচ্চ আদালতের কাছে আছে। সর্বোচ্চ আদালতসেখানে সিদ্ধান্ত নেবেন, সব পক্ষকে শুনে, আমি মনে করি সর্বোচ্চ আদালত সব দিক বিবেচনাকরে সিদ্ধান্ত দেবেন।

তাদের আন্দোলন তো চলছে। তাদের আন্দোলনেজনগণের হয়রানি হচ্ছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমি তো এখনশুনলাম তারা আপিল বিভাগে যে মামলা, সেই মামলায় পক্ষভুক্ত হতে দরখাস্ত করেছেন। এই পক্ষভুক্তহওয়ার আবেদন, আমি যতদূর শুনেছি আগামীকাল (বুধবার) বোধ হয় তার শুনানি হবে। সেক্ষেত্রেআমি তো মনে করছি তারা সঠিক পথে হাঁটছেন। তিনি বলেন,‘আমি যতদূর জেনেছি, যখন হাইকোর্ট বিভাগে এই মামলা চলে তখন আজকে যারা কোটাবিরোধী আন্দোলনকরছেন তাদের বক্তব্য পেশ করার জন্য বা আদালতে উপস্থাপনের জন্য কোনো আইনজীবী নিয়োগকরেন নাই, তাদের বক্তব্য সেখানে দেন নাই। তারপর মামলার রায় হয়ে গেছে, মামলাটা এখনআপিল বিভাগে। সেখানেও কিন্তু গতকাল পর্যন্ত তাদের কোনো আইনজীবী ছিল না, তাদের বক্তব্যউপস্থাপনের জন্য।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমি এই কথাটা বলছি এইকারণে যে ঘটনা ঘটেছে আদালতে, রাজপথে এখানে আন্দোলন করে বা চেঁচামেচি করে বা বকা-বাদ্যকরে এটার কিন্তু নিরসন হবে না। এটা করলে যেটা হয়, একটা পর্যায়ে হয়তো আদালত অবমাননাওহয়ে যেতে পারে। সেই ক্ষেত্রে সঠিক জায়গা কোনটা? আমি গতকালকেও বলেছি, সঠিক জায়গাহচ্ছে তারা যদি পক্ষভুক্ত হয়ে তাদের বক্তব্য উপস্থাপন করেন তবে অবশ্যই আপিল বিভাগসব পক্ষ শুনবেন। সব পক্ষ শুনে আপিল বিভাগ একটা ন্যায়বিচার করবেন, এটাই আমাদের আশা।আমার মনে হয় সেটাই হবে।

তিনি বলেন, ‘তো সেই ক্ষেত্রে আমি আজকেদেখছি যে একটা ইতিবাচক পদক্ষেপ তারা নিয়েছেন। আমি তাদের সাধুবাদ জানাই এবং তারা তাদেরবক্তব্য আদালতে দেবেন। আমি আশা করব, যেহেতু তারা আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেনতাহলে আন্দোলন প্রত্যাহার করবেন।

 আইন-অপরাধ থেকে আরোও সংবাদ

ই-দেশকাল

আর্কাইভ